Top
Begin typing your search above and press return to search.

অসমের ৫৩৯টি গ্ৰামের মানুষ আজও পঞ্চায়েতি রাজ ব্যবস্থায় অন্তর্ভুক্ত হননি

অসমের ৫৩৯টি গ্ৰামের মানুষ আজও পঞ্চায়েতি রাজ ব্যবস্থায় অন্তর্ভুক্ত হননি

Sentinel Digital DeskBy : Sentinel Digital Desk

  |  10 Nov 2018 7:30 AM GMT

গুয়াহাটিঃ স্বাধীনতার ৭০ বছর পরও অসমের ৫৩৯ গ্ৰামের ৫০ হাজার মানুষ আজ অবধি পঞ্চায়েতি রাজ ব্যবস্থায় অন্তর্ভুক্ত হননি,যা বাস্তবিকই আশ্চর্যের বিষয়। অসম সরকারের ঘোষণা অনু্যায়ী এই সব গ্ৰামবাসী বনাঞ্চলের বাসিন্দা।

এদিকে নিখিল বোড়ো ছাত্ৰ সংস্থা(আবসু),ন্যাশনাল ডেমোক্ৰ্যাটিক ফ্ৰন্ট অব বোড়োল্যান্ড(এনডিএফবি-পি)এবং পিপলস জয়েন্ট অ্যাকশন কমিটি ফর বোড়োল্যান্ড মুভমেন্ট(পিজেএসিবিএম)এই সব গ্ৰামের মানুষজনকে পঞ্চায়েত রাজে অন্তর্ভুক্ত করতে রাজ্য সরকারকে এক সপ্তাহ সময় দিয়েছে। এরপরই ঘোষিত নির্ঘন্ট অনু্যায়ী স্থানীয় পর্ষদগুলির নির্বাচন অনুষ্ঠিত করার দাবি করেছে তারা। এমনটা করা হলেই সংগঠনগুলি স্থানীয় পর্ষদগুলির নির্বাচন পরিচালনায় স্বেচ্ছায় এগিয়ে আসবে।

রাজ্যের ৫৩৯টি গ্ৰামে বসবাসকারী মানুষ পঞ্চায়েত রাজ ব্যবস্থার অধীনে উন্নয়নের কোনও সু্যোগ সুবিধা পাচ্ছেন না। এরফলে স্বাস্থ্যরক্ষা,শিক্ষা,পানীয়জল,বিদ্যুৎ,সড়ক যোগাযোগ ইত্যাদি সু্যোগ সুবিধার ফায়দা থেকে তারা বঞ্চিত হচ্ছেন। এই ৫৩৯টি গ্ৰাম পড়েছে তেজপুর লোকসভা কেন্দ্ৰের অধীন শোণিতপুর ও বিশ্বনাথ জেলায় এবং চারটি বিধানসভা কেন্দ্ৰ হলো ঢেকিয়াজুলি,চতিয়া,রাঙাপাড়া ও বিশ্বনাথ। এরমধ্যে ৪৮২টি গ্ৰাম শুধু শোণিতপুর জেলায়।

আবসু সভাপতি প্ৰমোদ বোড়ো বলেন,৫৩৯ গ্ৰামে বসবাসকারী মানুষ কোনও প্ৰব্ৰজনকারী বা অবৈধ নাগরিক নন। তাঁরা প্ৰকৃত ভারতীয় নাগরিক এবং তাই পঞ্চায়েত নির্বাচনে ভোট দেওয়ার ন্যায্য অধিকার রয়েছে তাঁদের। এই সব মানুষ যেখানে বিধানসভা ও লোকসভা নির্বাচনে ভোট দিতে পারছেন সেখানে পঞ্চায়েত নির্বাচনে কেন ভোট দিতে পাবেন না-প্ৰশ্ন তুলেছে আবসু।

Next Story