Begin typing your search above and press return to search.

ক্যাব পাস করবো,বিজেপির ইস্তাহার প্ৰকাশ করে বললেন রাজনাথ

ক্যাব পাস করবো,বিজেপির ইস্তাহার প্ৰকাশ করে বললেন রাজনাথ

Sentinel Digital DeskBy : Sentinel Digital Desk

  |  9 April 2019 8:01 AM GMT

নয়াদিল্লিঃ স্বরাষ্ট্ৰমন্ত্ৰী রাজনাথ সিং সোমবার বলেছেন তাঁর সরকার নাগরিকত্ব সংশোধনী বিল(ক্যাব)সংসদে পাস করবে। ‘আমরা নাগরিকত্ব সংশোধনী বিল সংসদে পাস করার চেষ্টা করবো এবং সেইসঙ্গে অঞ্চলগুলোর অস্তিত্ব রক্ষারও ব্যবস্থা করবো’।

লোকসভা নির্বাচনের বিজেপি-র ইস্তাহার প্ৰকাশ করে সিং একথা বলেন। দলের ইস্তাহারে আরও বলা হয়েছে,রাষ্ট্ৰীয় নাগরিক পঞ্জি(এনআরসি)সারা দেশে রূপায়ণ করা হবে। দেশের নিরাপত্তা ব্যবস্থা আরও সক্ৰিয় ও জোরদার করে তুলতে প্ৰযুক্তির ব্যাপক ব্যবহারের মাধ্যমে দেশের সব সীমান্তে স্মার্ট ফ্যান্সিঙের প্ৰতিশ্ৰুতিও দেওয়া হয়েছে ইস্তাহারে।

প্ৰথম দফা নির্বাচনের হাতে গোনা দুএকটা দিন বাকি থাকতেই বিজেপি এখানে তাদের দলীয় কার্যালয়ে নির্বাচনি ইস্তাহারটি প্ৰকাশ করে। প্ৰধানমন্ত্ৰী নরেন্দ্ৰ মোদি,বিদেশ মন্ত্ৰী সুষমা স্বরাজ,দল সভাপতি অমিত শাহ এবং অন্যান্য বেশকজন নেতা ইস্তাহার প্ৰকাশ অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন।

‘পড়শি দেশে নির্যাতনের শিকার হয়ে এদেশে পালিয়ে আসা ধর্মীয় সংখ্যালঘু সম্প্ৰদায়ের ব্যক্তিদের সুরক্ষায় নাগরিকত্ব সংশোধনী বিলকে আইনি রূপ দিতে আমরা প্ৰতিশ্ৰুতিবদ্ধ। ‘আমরা এই ইস্যুটি নিয়ে উত্তর পূর্বাঞ্চলের জনগণকে সবধরনের স্পষ্টীকরণ দেওয়ার চেষ্টা করবো। কারণ এই বিলটিকে আইনে রূপান্তরের প্ৰশ্নে তাদের মনে আশঙ্কা জন্মেছে। পড়শি দেশগুলিতে ধর্মীয় নির্যাতনের শিকার হয়ে এদেশে পালিয়ে আসা হিন্দু,জৈন,বৌদ্ধ ও শিখদের ভারতীয় নাগরিকত্ব দেওয়া হবে’-বলা হয়েছে ইস্তাহারে।

বিজেপি-র এই ইস্তাহারে ক্যাব-এর প্ৰসঙ্গটি নিয়ে কংগ্ৰেসের সঙ্গে তাদের সরাসরি বিরোধ সৃষ্টি হয়েছে। কংগ্ৰেস তাদের ইস্তাহারে বলেছে,তারা এই বিতর্কিত বিলটি বাতিল করবে,যদি ক্ষমতায় আসে।

ক্যাব নিয়ে ইতিমধ্যেই উত্তর পূর্বাঞ্চলের রাজ্যগুলিতে বিতর্কের পাশাপাশি এক উত্তেজনাকর পরিস্থিতির সৃষ্টি হয়েছিল। সংসদের শেষ অধিবেশনেও বিলটি নিয়ে এক টালমাটাল পরিস্থিতি দেখা গেছে।

অসমে বিজেপি নেতৃত্বাধীন জোট সরকার থেকে অসম গণ পরিষদ(অগপ)দল বেরিয়ে এসেছিল ওই বিলের প্ৰতিবাদে। তবে লোকসভা নির্বাচনের মুখে দুটো দলের মধ্যে ফের সমঝোতা হয়েছে। এদিকে অবৈধ অনুপ্ৰবেশ সম্পর্কে বিজেপি-র ইস্তাহারে বলা হয়েছে,‘অবৈধ অনুপ্ৰবেশের ঘটনায় উত্তর পূর্বের কিছু এলাকায় সাংস্কৃতিক ও ভাষিক অস্তিত্বের ব্যাপক পরিবর্তন দেখা গেছে। এরফলে স্থানীয় মানুষের জীবন যাত্ৰা ও নিয়োগের ক্ষেত্ৰে এর ব্যাপক প্ৰভাব পড়েছে। তাই এই অঞ্চলে অগ্ৰাধিকার ভিত্তিতে এনআরসির কাজ ক্ষিপ্ৰতার সঙ্গে সম্পূর্ণ করতে চাইছি আমরা। ভবিষ্যতে দেশের অন্যান্য স্থানেও আমরা পর্যায়ক্ৰমে এনআরসি-র রূপায়ণ করবো’।

উত্তর পূর্বাঞ্চলের রাজ্যগুলিতে অবৈধ অনুপ্ৰবেশ রুখতে আমরা সক্ৰিয় পদক্ষেপ নেবো। আর সেজন্যই আমরা চাইছি সীমান্তে শক্তিশালী ব্যবস্থা গ্ৰহণ করতে। এই উদ্দেশ্যে ধুবড়িতে স্মার্ট ফ্যান্সিং ব্যবস্থা রূপায়ণ করা হয়েছে। আমরা সব সীমান্তে এই ব্যবস্থা রূপায়ণ করবো’-বলা হয়েছে বিজেপির ইস্তাহারে।

Next Story