ব্ৰেকিংনিউজ

বগীবিল সেতু-র উদ্বোধন হচ্ছে আর কিছুক্ষণের মধ্যেইঃ উপস্থিত প্ৰধানমন্ত্ৰী

বগীবিল সেতু

আর কিছুক্ষণের মধ্যেই  উদ্বোধন হবে দেশের দীর্ঘতম দোতলা রেল-সড়ক সেতু বগিবিল সেতু। উদ্বোধন করবেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী। অসমের ডিব্রুগড় থেকে অরুণাচল সীমান্তে ধেমাজি জেলা সংযুক্ত করতে চলেছে ব্রহ্মপুত্রের ওপরে এই সেতু। এর ফলে ডিব্রুগড় এবং ধেমাজির মধ্যে যাত্রার সময়ে কমবে চার ঘণ্টা, দূরত্বও কমবে ১৭০ কিমি। চিন সীমান্তের কাছাকাছি হওয়ার ফলে ভারতের প্রতিরক্ষা খাতেও এই সেতুর গুরুত্ব অপরিসীম।

দেখে নিন এই সেতুর ব্যাপারে কিছু চমকপ্রদ তথ্য

এই সেতুর মোট দূরত্ব ৪.৯ কিমি। সেতু তৈরি করতে খরচ হয়েছে ৫,৯০০ কোটি টাকা।

সেতুর প্রথম তলে রয়েছে দুটি ট্র্যাক বিশিষ্ট রেল লাইন এবং দ্বিতীয় তলে রয়েছে তিনটে লেন বিশিষ্ট সড়ক।

এই সেতুর শিলান্যাস হয়েছিল ১৯৯৭ সালে। করেছিলেন তৎকালীন প্রধানমন্ত্রী এইচডি দেবেগৌড়া। ২০০২ সালে বাজপেয়ীর আমলে এই সেতুর কাজ শুরু।

সুইডেন এবং ডেনমার্ক সংযোগকারী সেতুর মতোই এই সেতু তৈরি। বগিবিলই ভারতের প্রথম যা পুরোপুরি ঝালাই করে তৈরি। এর ফলে রক্ষণাবেক্ষণের খরচও অনেক কম। কোনো রকম রক্ষণাবেক্ষণ ছাড়া এই সেতু ১২০ বছর টিকে থাকতে পারবে।

এই সেতু তৈরিতে লেগেছিল ৩০ লক্ষ সিমেন্টের ব্যাগ।

অতি-ভূমিকম্পপ্রবণ এলাকা হিসেবে পরিচিত এই অঞ্চল। কিন্তু বড়ো ভূমিকম্পতেও এই সেতুর কোনো ক্ষতি হবে না বলে জানিয়েছেন নর্থ ইস্ট ফ্রন্টিয়ার রেলের মুখ্য জনসংযোগ আধিকারিক প্রণবজ্যোতি শর্মা।