Begin typing your search above and press return to search.

ব্ৰিটিশ আমলের ৪৯৭ ধারা আইন বাতিল করে পরকীয়াকে ছাড়পত্ৰ দিল সুপ্ৰিমকোর্ট

ব্ৰিটিশ আমলের ৪৯৭ ধারা আইন বাতিল করে পরকীয়াকে ছাড়পত্ৰ দিল সুপ্ৰিমকোর্ট

Sentinel Digital DeskBy : Sentinel Digital Desk

  |  28 Sep 2018 9:53 AM GMT

নয়াদিল্লিঃ ব্ৰিটিশ আমলের ৪৯৭ ধারা বাতিল করে সুপ্ৰিমকোর্ট বৃহস্পতিবার পরকীয়া এখন আর অপরাধ নয় বলে ঐতিহাসিক রায় দিল। ১৯৮ বছরের পুরনো ধারাটিকে বাতিল করে এই গুরুত্বপূর্ণ রায়টি দেয় সুপ্ৰিমকর্টের প্ৰধান বিচারপতি দীপক মিশ্ৰ-র নেতৃত্বাধীন পাঁচ সদস্যের বেঞ্চ। কোর্ট ব্ৰিটিশ জমানার ওই বিতর্কিত আইনটিকে অসাংবিধানিক,স্বেচ্ছাচারিতার তুল্য হিসেবে বর্ণনা করেছে। ওই আইনটি নারীর আত্মসম্মানকে খর্ব করে। পরকীয়া সংক্ৰান্ত ৪৯৭ ধারাকে চ্যালেঞ্জ জানিয়ে দায়ের করা এক জনস্বার্থ মামলার রায়ে শীর্ষ আদালত সাফ জানিয়ে দেয় পরকীয়া কোনও অপরাধ নয়। তবে এটা বিয়ে ভেঙে যাওয়ার কারণ হতে পারে। ‘এটা গোপনীয়তার বিষয়। স্ত্ৰী কখনওই স্বামীর সম্পত্তি হতে পারে না। পুরুষের সম অধিকার রয়েছে মহিলাদেরও’-বলেন প্ৰধান বিচারপতি দীপক মিশ্ৰ। অথচ পুরনো আইনে স্ত্ৰীকে স্বামীর সম্পত্তি হিসেবেই গণ্য করা হতো। মিশ্ৰ বলেন,কোনও ব্যক্তি যদি কোনও বিবাহিতা মহিলার সঙ্গে যৌন সম্পর্ক করেন,তবে সেটা অপরাধ নয়। বলেন,বিশ্বের অনেক দেশে ওই পুরনো আইনের অবলুপ্তি ঘটেছে। ভারতীয় সমাজ ব্যবস্থায় আজ আর ওই আইনের কোনও প্ৰাসঙ্গিকতা নেই। মিশ্ৰ বলেন,পুরুষ-মহিলার অধিকার এখন সমান। তবে কোনও ভাবেই মহিলাদের অসম্মান করা চলবে না। পরকীয়ার অভিযোগে বিবাহ বিচ্ছেদের মামলা হলেও তা কখনও ফৌজদারি অপরাধ হিসেবে গণ্য হবে না-বলেছে আদালত।

এরআগে চলতি মাসেই শীর্ষ আদালত ব্ৰিটিশ আমলের আরও একটি আইন ৩৭৭ ধারা বাতিল করে সমকামিতাকে বৈধতা দিয়েছে। বিচারপতি মিশ্ৰ আরও বলেন,কোনও আইন ব্যক্তিগত মর্যাদায় আঘাত হানলে তা বহাল রাখার যুক্তি নেই। পাঁচ সদস্যের বেঞ্চে ছিলেন বিচারপতি এএম খানউইলকর,বিচারপতি নরিম্যান,বিচারপতি ডিওয়াই চন্দ্ৰচূড় ও বিচারপতি ইন্দু মালহোত্ৰা।

Next Story