Top
undefined
Begin typing your search above and press return to search.

রাজ্যে বেশকজন হেভিওয়েট মনোনয়নপত্ৰ জমা দিলেন

রাজ্যে বেশকজন হেভিওয়েট মনোনয়নপত্ৰ জমা দিলেন

Sentinel Digital DeskBy : Sentinel Digital Desk

  |  23 March 2019 8:41 AM GMT

গুয়াহাটিঃ দোল উৎসব চলার মধ্যেই শুক্ৰবার থেকে উজান অসমে নির্বাচনী জ্বর চেপে বসেছে। শুক্ৰবার উৎসবের ডামাডোলের মধ্যেই উজানের তিনজন হেভিওয়েট বিজেপি-র রামেশ্বর তেলি,সুশান্ত বরগোঁহাই ও কংগ্ৰেসের গৌরব গগৈ তাঁদের মনোনয়নপত্ৰ জমা দিয়েছেন। এই তিনজন প্ৰার্থী নিজেদের সংশ্লিষ্ট কেন্দ্ৰে দলবল নিয়ে মিছিল করে গিয়ে রিটার্নিং অফিসারের কাছে মনোনয়নপত্ৰ জমা দেন। মিছিলকারীদের দলীয় প্ৰার্থীদের সমর্থনে শ্লোগান দিতেও দেখা গেছে।

ডিব্ৰুগড় কেন্দ্ৰে কংগ্ৰেস প্ৰার্থী পবন সিং ঘাটোয়ার এদিন মনোনয়নপত্ৰ জমা দিতে রিটার্নিং অফিসারের কার্যালয়ে গিয়েছিলেন। কিন্তু নথিপত্ৰ কম থাকায় মনোনয়নপত্ৰ দাখিল করতে পারেননি। ঘাটোয়ার আগামি ২৫ মার্চ তাঁর মনোনয়নপত্ৰ দাখিল করবেন। আগামী ১১ এপ্ৰিল অনুষ্ঠেয় প্ৰথম দফার নির্বাচনের জন্য মনোনয়নপত্ৰ দাখিলের শেষ দিন ২৫ মার্চ।

ডিব্ৰুগড়ে বিজেপি প্ৰার্থী রামেশ্বর তেলি মুখ্যমন্ত্ৰী সর্বানন্দ সোনোয়াল ও নেডার আহ্বায়ক হিমন্তবিশ্ব শর্মার সঙ্গে রিটার্নিং অফিসারের কার্যালয়ে গিয়ে তাঁর মনোনয়নপত্ৰ দাখিল করেন শুক্ৰবার। তেলি বলেন,‘২০১৪-র লোকসভা নির্বাচনে আমি মাত্ৰ ১.৮৫ লক্ষ ভোটের ব্যবধানে জয়ী হয়েছিলাম। এই কেন্দ্ৰের মানুষ উন্নয়নের গতিপ্ৰকৃতি দেখেছেন। তাই আমি আশা করছি এবার আমি প্ৰচুর ভোটে জিতবো’।

কংগ্ৰেসের যোরহাট কেন্দ্ৰের প্ৰার্থী সুশান্ত বরগোঁহাই শিবসাগরের শিবদৌলে পুজো দিয়ে যোরহাটে রিটার্নিং অফিসারের কার্যালয়ে গিয়ে মনোনয়ন জমা দেন। তাঁর সঙ্গ নেয় সমর্থকদের বিশাল মিছিল। মনোনয়নপত্ৰ দাখিল করে বরগোঁহাই বলেন,বিগত পাঁচ বছর সময়কালে বিজেপি সাংসদ এই কেন্দ্ৰের উন্নয়নে নজর কাড়ার মতো কিছুই করেননি। তাছাড়া নাগরিকত্ব বিল সমর্থন করে বিজেপি যে খেল দেখিয়েছে তার জন্য কেন্দ্ৰের ভোটাররা এবার বিজেপির প্ৰতি বেঁকে বসেছেন। ‘আমি নির্বাচনে জিতলে ভাঙন সমস্যা,আন্তঃরাজ্য সীমান্ত উন্নয়নে সংসদে অগ্ৰাধিকার দেবো-বলেন বরগোঁহাই।

ওদিকে কংগ্ৰেসের গৌরব গগৈ কলিয়াবর কেন্দ্ৰ থেকে এদিন তাঁর মনোনয়নপত্ৰ দাখিল করেছেন নগাঁওয়ের রিটার্নিং অফিসারের কাছে। গগৈর সঙ্গে ছিলেন কংগ্ৰেস বিধায়ক তথা রাজ্যের প্ৰাক্তনমন্ত্ৰী রকিবুল হুসেন,অজন্তা নেওগ,রোশলিনা তির্কি এবং প্ৰাক্তন মন্ত্ৰী বিষ্মিতা গগৈ। তাঁরা মিছিল করে বরদোওয়া থানে গিয়ে পুজো দেওয়ার পর রিটার্নিং অফিসারের কার্যালয়ে যান।

মনোনয়ন দাখিল করে গগৈ বলেন,‘আমি আবার সংসদে যাবো। বিজেপি-অগপ আঁতাত সম্পূর্ণ নৈতিকতাহীন ওই দলের তৃণমূল স্তরের কর্মীরাও এই আঁতাত মেনে নেননি’।

শুক্ৰবার মোট সাতজন প্ৰার্থী মনোনয়নপত্ৰ জমা দিয়েছেন। এরমধ্যে কলিয়াবর কেন্দ্ৰে ভাস্কর শর্মা নির্দল হিসেবে তাঁর মনোনয়ন জমা দিয়েছেন। যোরহাটে সিপিআইর হয়ে কনক গগৈ,হেমকান্ত মিরি,এসইউসিআই-র হয়ে মনোনয়ন জমা দিয়েছেন লখিমপুর কেন্দ্ৰে। তেজপুরে নির্দল প্ৰার্থী হিসেবে মনোনয়ন জমা দিয়েছেন জিয়াউর রহমান। এই নিয়ে এখন পর্যন্ত মোট ৮ জন মনোনয়নপত্ৰ জমা দিলেন। কংগ্ৰেস প্ৰার্থী অনিল বরগোঁহাই লখিমপুর কেন্দ্ৰে মনোনয়ন জমা দিয়েছেন গত ২০ মার্চ।

এদিকে মুখ্যমন্ত্ৰী সর্বানন্দ সোনোয়াল ও বিজেপি মিত্ৰ জোট রাজ্যের ১৪টি আসন কব্জা করার দিকে নজর রাখছেন। নেডার আহ্বায়ক তথা রাজ্যের অর্থমন্ত্ৰী হিমন্তবিশ্ব শর্মা আস্থার সঙ্গে বলেন,নির্বাচনে গোটা উত্তর পূর্বাঞ্চলে বিজেপি শরিক জোট ১৯-২০টি আসন পাবে।

ওদিকে সোনোয়াল বলেন,১৪টি আসনের প্ৰতি আমাদের চোখ রয়েছে। তবে ১২টি আসনে জয় নিশ্চিত। আমাদের এখন দৃঢ়তার সঙ্গে কাজ করা উচিত-বলেন তিনি।

Next Story