Begin typing your search above and press return to search.

উন্নয়নই উত্তর পুবে সন্ত্ৰাসী কার্যকলাপ হ্ৰাস করেছেঃ অমিত

উন্নয়নই উত্তর পুবে সন্ত্ৰাসী কার্যকলাপ হ্ৰাস করেছেঃ অমিত

Sentinel Digital DeskBy : Sentinel Digital Desk

  |  20 Aug 2019 1:37 PM GMT

নয়াদিল্লিঃ উত্তর পূর্বাঞ্চলের রাজ্যগুলি উন্নয়নের পথে এগিয়ে চলায় সন্ত্ৰাসী কার্যকলাপ হ্ৰাস পেয়েছে এবং রাজ্যগুলোতে শান্তিও ফিরেছে। স্বরাষ্ট্ৰমন্ত্ৰী অমিত শাহ সোমবার নয়াদিল্লিতে এই মন্তব্য করেন। দোয়ারকায় এদিন কার্বি ও ডিমাসা ভবনের শিলান্যাস অনুষ্ঠানে ভাষণ দিচ্ছিলেন তিনি। শাহ বলেন,উত্তর পূর্বাঞ্চলের সর্বাঙ্গীণ উন্নয়নের বিষয়টিতে সরকার অগ্ৰাধিকার দিচ্ছে। দেশ উত্তর পূর্বাঞ্চলের সংস্কৃতি সম্পর্কে গর্বিত এবং সরকারের লক্ষ্য হচ্ছে উত্তর পূর্বের সাংস্কৃতিক অস্তিত্বকে বাঁচিয়ে রেখে পুরো অঞ্চলটিকে বিকাশের পথে এগিয়ে নেওয়া। এই অঞ্চলে উন্নয়নের ধারা সন্ত্ৰাসবাদের গতি আটকে দিয়েছে এবং পুরো অঞ্চলটিতে এখন শান্তি বিরাজ করছে’-বলেন তিনি।

অমিত শাহ আরও বলেন,প্ৰধানমন্ত্ৰী নরেন্দ্ৰ মোদি উত্তরপুবের মানুষের বিকাশের স্বার্থে বেশি সময় দিচ্ছেন। ‘দীর্ঘ বছর ধরে উন্নয়নের ক্ষেত্ৰে উত্তর পূর্বাঞ্চল পিছিয়ে ছিল,কিন্তু প্ৰধানমন্ত্ৰী মোদির নেতৃত্বে সরকার গঠিত হওয়ার পর অঞ্চলটির উন্নয়নে গতি এসেছে। এখন সড়ক,রেল ও আকাশ পথে উত্তর পূর্বাঞ্চলে ভাল যোগাযোগ ব্যবস্থা গড়ে উঠেছে-বলেন শাহ।

তিনি আরও বলেন,‘উত্তর পুবের মানুষের প্ৰতি প্ৰধানমন্ত্ৰীর হৃদয়ে ভালবাসা ও শ্ৰদ্ধার জন্যই এটা সম্ভব হয়েছে’। সরকার প্ৰতি ১৫ দিন অন্তর কেন্দ্ৰীয় মন্ত্ৰীদের উত্তরপূর্ব সফর করার জন্য নিয়ম বেঁধে দিয়েছে-উল্লেখ করেন তিনি। এই সব মন্ত্ৰীরা উত্তর পূর্বাঞ্চলে কেন্দ্ৰীয় সরকারের স্কিমগুলো যথা্যথভাবে রূপায়ণ করা হচ্ছে কি না তা খতিয়ে দেখছেন।

উত্তর পূর্বাঞ্চলের জন্য তহবিল বরাদ্দ সম্পর্কে শাহ বলেন,এই অঞ্চলের জন্য তহবিল বরাদ্দের পরিমাণ ২৫৮ শতাংশ বৃদ্ধি করা হয়েছে ত্ৰয়োদশ ও চতুর্দশ অর্থ কমিশনের মধ্যে। এই অঙ্ক ৮৭,০০০ কোটি থেকে বাড়িয়ে ৩,১৩,৩৭৫ কোটি করা হয়েছে।

উত্তর পুবের জন্য যে সব স্কিম নির্ধারণ করা হয়েছে তার উল্লেখ করে তিনি বলেন,দক্ষতা উন্নয়ন কেন্দ্ৰ,মেডিক্যাল ও ল কলেজ সহ অন্যান্য স্কিমও রয়েছে। অসমে বাঁশ শিল্পের পার্ক স্থাপনে ডোনার মন্ত্ৰক কাজ শুরু করেছে বলে তিনি জানান।

উত্তর পূর্বাঞ্চলের প্ৰাকৃতিক সম্পদ ও ভেষজ বৃক্ষের ওপর গুরুত্ব আরোপ করে তিনি বলেন,ডোনার মন্ত্ৰক ঔষধি বৃক্ষকে কাজে লাগাতে গবেষণা ও উন্নয়ন কেন্দ্ৰ স্থাপন করবে।

তিনি বলেন,দিল্লিতে কার্বি ও ডিমাসা ভবন নির্মাণে ১৩০ কোটি টাকা ব্যয় হবে। এই ভবনগুলি কার্বি ও ডিমাসাদের চমকপ্ৰদ সাংস্কৃতিক অস্তিত্বকে বিশ্বের মানচিত্ৰে তুলে ধরতে সাহায্য করবে। অনুষ্ঠানে রাজ্যের মুখ্যমন্ত্ৰী সর্বানন্দ সোনোয়াল ও মন্ত্ৰী হিমন্তবিশ্ব শর্মা,সাংসদ ও বিধায়ক সহ বিশিষ্ট ব্যক্তিরা উপস্থিত ছিলেন।

অন্যান্য খবরের জন্য পড়ুনঃ অসমের বন্যা দুর্গতদের সাহায্যে ৫১ লক্ষ টাকা দান মেগাস্টার অমিতাভ বচ্চনের,অন্যান্যদেরও সাহায্যের অনুরোধ

অধিক খবরের জন্য ভিডিও দেখুন: Madhavdev Tithi observed at Dekhiyakhuwa Bornamghar in Teok

Next Story