Top
Begin typing your search above and press return to search.

শিলঙের সোহরা অর্কিডেরিয়াম পর্যটক আকর্ষণের কেন্দ্ৰ হয়ে উঠছে

শিলঙের সোহরা অর্কিডেরিয়াম পর্যটক আকর্ষণের কেন্দ্ৰ হয়ে উঠছে

Sentinel Digital DeskBy : Sentinel Digital Desk

  |  4 Jun 2019 1:13 PM GMT

শিলং: দেশের বিভিন্ন প্ৰান্ত যখন কাঠফাটা রোদে পুড়ছে,তাপমাত্ৰা যখন ৫০ ডিগ্ৰি সেলসিয়াসে পৌঁছেছে সেই সময় পর্যটকরা বিভিন্ন পাহাড়ি রাজ্যে পাড়ি জমাচ্ছেন দাবদাহের হাত থেকে স্বস্তি পেতে। স্কুল,কলেজগুলিতে এসময়ে গরমের ছুটি ঘোষণা করা হয়। তাই ঘোরাফেরার এটাই উপযুক্ত সময়। লক্ষাধিক ঘরোয়া পর্যটক এসময়ে মেঘালয় সহ উত্তর পুবের রাজ্যগুলো সফর করে থাকেন এই অঞ্চলের নৈসর্গিক সৌন্দর্য উপভোগ করার লক্ষ্যে। মেঘালয়ে সোহরা(চেরাপুঞ্জি)এসময়ে পর্যটকদের আকর্ষণের কেন্দ্ৰবিন্দু হতে পড়ে। চেরাপুঞ্জিতে বিশ্বের মধ্যে সবচেয়ে বেশি বৃষ্টি হয়ে থাকে।

পর্যটক আগমনের প্ৰতি লক্ষ্য রেখে ইন্সটিটিউট অফ বায়োরিসোর্সেস অ্যান্ড সাসটেনেবল ডেভেলপমেন্ট(আইবিএসডি)আপার শিলঙে তাদের প্ৰতিষ্ঠান চত্বরে একটি অর্কিডেরিয়াম খুলেছে। আইবিএসডি বায়ো টেকনোলজি বিভাগের একটি স্বশাসিত প্ৰতিষ্ঠান।

আপার শিলঙে আইবিএসডি ৬ হাজার বর্গ কিলোমিটার এলাকা জুড়ে এই অর্কিডেরিয়ামটি স্থাপন করেছে। অর্কিডেরিয়ামটি এককথায় অনবদ্য এবং দেশের মধ্যে একটি সেরা অর্কিডেয়াম। আবহাওয়া নিয়ন্ত্ৰিত ব্যবস্থায় স্থাপন করা হয়েছে এটি। বিভিন্ন প্ৰজাতির অর্কিড রয়েছে এই অর্কিডেরিয়ামে,যা চোখ জুড়িয়ে যায়-বলেন আইবিএসডির ডিরেক্টর দিনবন্ধু সাহু।

তিনি বলেন,এই অঞ্চলের বায়ো-ইকোনমিকে শক্তিশালী করতে আইবিএসডি অর্কিড ভিত্তিক বায়ো-এণ্ট্ৰিপ্ৰেনারশিপের উন্নতি ঘটানোর চেষ্টা করছে।

তিনি বলেন,সোহরার অর্কিডেরিয়ামে উত্তরপূর্ব ভারতের প্ৰায় ৯০০ প্ৰজাতির চোখ ধাধানো অর্কিড রয়েছে। অর্কিডের মোহময়ী রূপ ছাত্ৰ ও নাগরিকদের মধ্যে প্ৰকৃতির প্ৰতি ভালবাসা ও মমত্ব বোধ জাগাতে উৎসাহিত করবে। তাছাড়া এই অঞ্চলের কৃষক ও বেকার যুবকদের জন্য কর্মসংস্থানের পথও খুলে দেবে।

এই অর্কিডেরিয়ামে পর্যটক,ছাত্ৰ ও পুষ্পপ্ৰেমীদের কাছে থাইল্যান্ড,সিঙ্গাপুর,জাপান,ইংল্যান্ড এবং অন্যান্য কিছু দেশের মতো একই স্থানে বিভিন্ন প্ৰজাতির অর্কিড দেখার সুবিধা রয়েছে-বলেন সাহু।

Next Story