Top
undefined
Begin typing your search above and press return to search.

অগপ-বিজেপি-র মধ্যে তিক্ততা বেড়েই চলেছে

অগপ-বিজেপি-র মধ্যে তিক্ততা বেড়েই চলেছে

Sentinel Digital DeskBy : Sentinel Digital Desk

  |  26 Nov 2018 12:19 PM GMT

গুয়াহাটিঃ রাজ্যে পঞ্চায়েত নির্বাচনের ডামাডোলের মধ্যেই শরিক দল অগপ-র সঙ্গে সংঘাতের লক্ষণ স্পষ্ট হয়ে উঠেছে শাসক দল বিজেপি-র। রাজ্যের অর্থমন্ত্ৰী হিমন্তবিশ্ব শর্মার সঙ্গে কংগ্ৰেসের গোপন বোঝাপড়া থাকার অভিযোগ এনেছে অসম গণ পরিষদ(অগপ)। আজ দিশপুরে এক সাংবাদিক সম্মেলনে অগপ দল চরম অসন্তষ্টি প্ৰকাশ করেছে বিজেপির বিরুদ্ধে।

এদিকে নাগরিকত্ব সংশোধনী বিল নিয়ে রবিবার এক সাংবাদিক সম্মেলনে মন্ত্ৰী হিমন্তবিশ্ব শর্মা বলেছিলেন,‘অগপ-র নাগরিকত্ব সংশোধনী বিল ২০১৬-এর বিরোধিতা করার কোনও নৈতিক অধিকার নেই। শর্মা একইসঙ্গে আরও বলেছেন,‘অগপর জন্যই প্ৰায় ১ কোটি বাংলাদেশি নাগরিকত্ব লাভ করেছেন। নাগরিকত্ব বিলের বিরোধিতাকারী অন্য সংগঠনের বিরুদ্ধে বিজেপি-র তেমন কিছু বলার নেই। তবে অগপ যদি বিলের বিরোধিতা করে যায় তাহলে বিজেপি নীরব হয়ে বসে থাকতে পারে না’।

‘অসমে অবৈধ বাংলাদেশি চিহ্নিতকরণ ও বহিষ্কারে ১৯৫১ সালকে ভিত্তিবর্ষ ধরার পরিবর্তে অগপ নেতৃত্ব ১৯৭১ সালকে ভিত্তিবর্ষ মেনে অসম চুক্তি স্বাক্ষর করেছিল। অগপ নেতৃত্ব ১৯৭৯ সালে চুক্তিটি সই করতে পারতো। কিন্তু তারা ন্যস্ত স্বার্থের জন্য ১৯৭৯-এর পরিবর্তে ১৯৮৫ সালে চুক্তিটি সই করে। অসম চুক্তির জন্য প্ৰায় ১কোটি বাংলাদেশি ভারতীয় নাগরিকত্ব অর্জন করতে সক্ষম হয়। এটা ছিল অগপর ঐতিহাসিক ভুল। এখন ওই একই দলই নাগরিকত্ব বিলের বিরোধিতা করছে,যে বিলে হিন্দু বাংলাদেশিদের নাগরিকত্ব দিতে চাওয়া হচ্ছে’-বলেন শর্মা। মিত্ৰতা বজায় রাখার জন্য বিজেপি এতদিন কিছুই বলেনি। কিন্তু এখন পঞ্চায়েত নির্বাচনের প্ৰাক্কালে অগপর কিছু নেতা ও বিধায়ক নাগরিকত্ব বিল নিয়ে যেভাবে বিজেপিকে আক্ৰমণ করছেন তাতে আমরা খুবই উদ্বিগ্ন বোধ করছি-শর্মা উল্লেখ করেন।

শর্মা অভিযোগ করেন,নাহরকটিয়ার অগপ বিধায়ক নরেন সোনোয়াল পঞ্চায়েত নির্বাচনের প্ৰচারে গিয়ে কংগ্ৰেসের সঙ্গে বিজেপির গোপন সমঝোতা রয়েছে বলে প্ৰকাশ্যে ইঙ্গিত দিচ্ছেন। বিভিন্ন ক্ষেত্ৰে বিজেপিকে তারা বিব্ৰত করছে। তাই এখন সময় হয়েছে অগপ যাতে মানুষকে ভুল পথে পরিচালিত করতে না পারে তার জবাব দেওয়ার-বলেছেন শর্মা। ‘তাই আমার বিবৃতিতে অসন্তুষ্ট হলে তারা জোট ভাঙার সিদ্ধান্ত নিতেই পারে। আমাদের অভিন্ন শত্ৰু হচ্ছে কংগ্ৰেস ও এআইইউডিএফ। অগপ নেতৃত্বের এই সমীকরণটা বোঝা উচিত’-বলেন শর্মা।

ড.শর্মার এই বিবৃতির পর অগপ শিবিরে ব্যাপক প্ৰতিক্ৰিয়ার সৃষ্টি হয়েছে। দিশপুরে আজ সাংবাদিক সম্মেলনে অগপ বলেছে,হিমন্তের কাছ থেকে নীতি শিক্ষা গ্ৰহণের কিছু নেই। কংগ্ৰেসের সঙ্গে শর্মার গোপন সমঝোতা রয়েছে বলে অভিযোগ করেছে অগপ। বিজেপির সঙ্গে মিত্ৰতা থাকবে কিনা সেবিষয়েও অগপ সিদ্ধান্ত নেবে বলে জানায়।

গতকালের ওই সাংবাদিক সম্মেলনে নেডার আহ্বায়ক হিমন্তবিশ্ব শর্মা আরও বলেছিলেন,অগপ ভেতরে ভেতরে তৃণমূল কংগ্ৰেসের সঙ্গে জোট গড়তে চাইছে। নাহরকটিয়ার বিধায়ক সোনোয়ালই একথা প্ৰকাশ করেছেন। অন্যদিকে বিলের জন্য নবপ্ৰজন্মের যুবক যুবতীরা আলফায় যোগ দিচ্ছে না একথা উল্লেখ করে শর্মা প্ৰশ্ন করেন বিলটি যখন প্ৰকাশ্যে আসেনি তখন কি আলফায় ছেলে মেয়েরা যায়নি?

Next Story