Begin typing your search above and press return to search.

এনআরসি নবায়নে ঢিলেমির জন্য কেন্দ্ৰকে ভর্ৎসনা সুপ্ৰিমকোর্টের

এনআরসি নবায়নে ঢিলেমির জন্য কেন্দ্ৰকে ভর্ৎসনা সুপ্ৰিমকোর্টের

Sentinel Digital DeskBy : Sentinel Digital Desk

  |  6 Feb 2019 11:29 AM GMT

নয়াদিল্লিঃ অসমে রাস্ট্ৰীয় নাগরিক পঞ্জি(এনআরসি)নবায়নে প্ৰক্ৰিয়া সম্পূর্ণ করার ব্যাপারে কেন্দ্ৰ ও রাজ্য সরকারের সদিচ্ছার অভাব রয়েছে। এই মন্তব্য করেছে সুপ্ৰিমকোর্টে। আসন্ন লোকসভা নির্বাচনের কথা মাথায় রেখে অসমে এনআরসি নবায়নের কাজ সাময়িকভাবে স্থগিত রাখার জন্য মঙ্গলবার স্বরাষ্ট্ৰমন্ত্ৰকের তরফে সুপ্ৰিমকোর্টে আবেদন জানান অ্যাটর্নি জেনারেল কে বেণুগোপাল।

আসন্ন লোকসভা নির্বাচনের কথা মাথায় রেখে রাজ্যে মোতায়েন থাকা আধা সামরিক বাহিনী তুলে নিতে স্বরাষ্ট্ৰমন্ত্ৰকের তরফে যে আবেদন জানানো হয়েছে তারই প্ৰতিক্ৰিয়া স্বরূপ সুপ্ৰিমকোর্ট বলেছে,এনআরসি নবায়ন প্ৰক্ৰিয়া চালিয়ে নিতে কেন্দ্ৰের সদিছার অভাব স্পষ্ট পরিলক্ষিত হচ্ছে। সলিসিটর জেনারেল তুষার মেহতা অসম সরকারের তরফে শীর্ষ আদালতকে অনুরোধ করেছেন মনোনয়ন দাখিলের শেষ দিন থেকে ভোট গ্ৰহণের দিন পর্যন্ত অসমে এনআরসি নবায়ন প্ৰক্ৰিয়া স্থগিত রাখার জন্য। এতেই বেদম চটে যান মুখ্য বিচারপতি রঞ্জন গগৈ।

বিচারপতি গগৈ ও রোহিন্টন ফলি নরিম্যানকে নিয়ে গঠিত ডিভিশন বেঞ্চ এব্যাপারে কেন্দ্ৰ ও রাজ্য সরকারকে তীব্ৰ ভর্ৎসনা করেছে। বিচারপতিরা বলেন,স্বরাষ্ট্ৰমন্ত্ৰক এনআরসি নবায়ন প্ৰক্ৰিয়া এগিয়ে নিতে চায় না। বেণুগোপাল রাজ্যে এনআসি-র কাজ চালাতে আরও সুসপ্তাহ সময়সীমা সম্প্ৰসারণ করার অনুরোধ করেছেন আদালতে। ভোটের জন্য অসমে মোতায়েন থাকা আধা সামরিক বাহিনী তুলে নিয়ে তাদের ফের মোতায়েন করার সুবিধার্থেই ওই বাড়তি সয় চেয়েছেন বেণুগোপাল। অসমে এনআরসি নবায়নের কাজে মোতায়েন থাকা ১৬৭ কোম্পানি কেন্দ্ৰীয় সশস্ত্ৰ আধা সামরিক বাহিনী তুলে নেওয়ার জন্য শীর্ষ আদালতের অনুমতি চেয়েছে কেন্দ্ৰ। কেন্দ্ৰের তরফ থেকে বলা হয়েছে অসম থেকে আধাসামরিক বাহিনী তুলে নিয়ে নির্বাচনের সময় আইনশৃঙ্খলা রক্ষায় দেশের বিভিন্ন স্থানে তাদের মোতায়েন করতে হবে।

দিল্লি এবং দিশপুর সরকারের মতে,এনআরসি নবায়নের কাজে রাজ্য সরকারের ৫০ হাজারের বেশি কর্মী নিয়োজিত রয়েছেন। সরকারের তরফে যুক্তি দেখানো হয়েছে এই পরিমাণ কর্মী দিয়ে এনআরসি ও নির্বাচনের কাজ সমান্তরালভাবে চালিয়ে যাওয়া কঠিন হয়ে দাঁড়াবে। এতেই প্ৰচণ্ড ক্ষুব্ধ হয়ে ওঠেন মুখ্য বিচারপতি রঞ্জন গগৈ। তিনি বলেন,নির্বাচন সুষ্ঠু ও শান্তিপূর্ণ হোক সেটা সবারই কা্য্য। সমান্তরালভাবে এনআরসি নবায়নের কাজও সম্পূর্ণ হওয়া চাই। গগৈ বলেন,সরকার যদি চায় যে এনআরসির কাজ সমান্তরালভাবে এগিয়ে চলুক,তাহলে এক হাজার একটা পথ বেরিয়ে আসবে। বেঞ্চ এদিন স্পষ্ট করে দেয়,পূর্বের নির্দেশ অনু্যায়ী আগামি ৩১ জুলাইয়ের মধ্যেই এনআরসির পূর্ণাঙ্গ তালিকা প্ৰকাশ করতে হবে। চূড়ান্ত এনআরসি প্ৰকাশের নির্ধারিত এই তারিখ আর বাড়ানো যাবে না-সাফ জানিয়ে দিয়েছে বেঞ্চ। এনআরসি নবায়নে রাজ সরকারের ভূমিকারও কড়া সমালোচনা করেছে সুপ্ৰিম কোর্ট।

Next Story