Uncategorized

গুয়াহাটিতে অনুষ্ঠিত তৃতীয় শ্রীহট্ট সম্মেলন

শ্রীহট্ট সম্মেলন

সিলেট গণভোটে গোপীনাথ বরদলৈয়ের কোনো ভূমিকা ছিল না। ইতিহাস ভুলে যাওয়াটা যন্ত্রণাদায়ক দুঃখের কথা। কিন্তু তা ইতিহাসে আটকে যাওয়াটা ঠিক নয়। এরজন্যই সবার সঙ্গে পায়ে পা মিলিয়ে এগিয়ে যাওয়ার আহ্বান জানান মেঘালয়ের রাজ্যপাল তথাগত রায়।

রবিবার গুয়াহাটি মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালের প্রেক্ষাগৃহে সিলেটি সম্মেলন গুয়াহাটির উদ্যোগে অনুষ্ঠিত তৃতীয় শ্রীহট্ট উৎসবে মুখ্য অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন রাজ্যপাল রায়। এতে অংশ নিয়ে নিজের ভাষণে তিনি বলেন মুসলিম লিগের দাবির জন্যই সিলেট গণভোট হয়েছিল। সে সময়ে সাড়ে তিনটে থানা অর্থাৎ রাতাবাড়ি এবং করিমগঞ্জের কিছু অংশ বাদ নিয়ে বাকিটা চলে যায় পাকিস্তানে।তবে হিন্দু-মুসলিম লাইনে বিভাজন হয়নি। বলেন বলেন এই গণভোট কেন্দ্র করে তখন অসমের মুখ্যমন্ত্রী গোপীনাথ বোর্ডিয়ের বিরুদ্ধে অভিযোগের আঙ্গুল উঠেছিল।

যদিও সেই ধারণা একেবারেই ভুল। গণভোটে তাঁর কোনও ভূমিকায় ছিল না। তার কথায় পড়শি দেশ বাংলাদেশের সঙ্গে ভারতের সুসম্পর্ক রয়েছে আর থাকবে। উল্লেখ্য এই অনুষ্ঠানে বিসিথ অতিথি হিসেবে অংশ নেন গৌহাটি বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য মৃদুল হাজারিকা। তিনি বলেন শ্রীহট্ট উৎসব সম্প্রীতি এবং সাংস্কৃতিক চর্চার বার্তা বহন করছে। অন্যদিকে সারা ভারত সিলেটি সন্মেলিনের সভানেত্রী কৃষ্না দাস দাস এতে উপস্থিত ছিলেন। শুধু তাই নয় কলকাতায় একটি শ্রীহট্ট ভবন নোমানের পরিকল্পনা হাতে নেয়া হয়েছে।