Begin typing your search above and press return to search.

‘গোপন হত্যা’: শইকিয়া কমিশন অসাংবিধানিক,রায় হাইকোর্টের

‘গোপন হত্যা’: শইকিয়া কমিশন অসাংবিধানিক,রায় হাইকোর্টের

Sentinel Digital DeskBy : Sentinel Digital Desk

  |  4 Sep 2018 8:30 AM GMT

গুয়াহাটিঃ গৌহাটি হাইকোর্ট এক গুতুত্বপূর্ণ রায়ে রাজ্যে ‘গোপন হত্যাকাণ্ড’ মামলা নিয়ে তদন্ত চালানো কেএন শইকিয়া কমিশনকে অসাংবিধানিক বলে ঘোষণা করেছে। হাইকোর্টের এই রায়ে প্ৰাক্তন মুখ্যমন্ত্ৰী প্ৰফুল্লকুমার মহন্তকে কিছুটা হলেও স্বস্তির নিঃশ্বাস ফেলতে সাহায্য করবে। গোপন হত্যাকাণ্ডের অভিযোগ সংক্ৰান্ত মামলাটি তাঁর রাজনৈতিক জীবনে দীর্ঘদিন ধরে একটা কালো ছায়া ফেলেছিল।

কেএন শইকিয়া কমিশন তাদের রিপোর্টে বলেছে,‘গৃহ বিভাগের যোগসাজশ ছাড়া রাজ্যে কোনও গোপন হত্যাকাণ্ড হতে পারে না’। ওই সময় প্ৰফুল্ল কুমার মহন্তই গৃহ বিভাগের দায়িত্বে ছিলেন। কমিশনের ওই রিপোর্টে পাল্টা প্ৰতিক্ৰিয়া ব্যক্ত করে ২০০৮ সালে কমিশনের আইনি বৈধতা নিয়ে মহন্ত গৌহাটি হাইকোর্টে একটি আইনি আবেদন(ডব্লিউপিসি/৭৪৬/২০৮)দাখিল করেছিলেন। সোমবার মামলাটি নিয়ে হাইকোর্ট তাদের রায়ে কমিশনকে অসাংবিধানিক আখ্যা দিয়ে কমিশনের রিপোর্ট বৈধ নয় বলে উল্লেখ করে। দিশপুরে ক্ষমতায় আসার পরপরই রাজ্যে ‘গোপন হত্যা’ মামলা নিয়ে প্ৰাক্তন মুখ্যমন্ত্ৰী তরুণ গগৈ মামলার তদন্তে তিনটি কমিশন গঠন করেছিলেন। গগৈ সরকার প্ৰথমে মীরা শর্মা কমিশন গঠন করে ১১টি গোপন হত্যার তদন্ত করার নির্দেশ দিয়েছিল। কিন্তু ব্যক্তিগত কারণ দেখিয়ে বিচারপতি মীরা শর্মা তদন্ত থেকে সরে দাঁড়ান। এরপর সরকার বিচারপতি জেএন শর্মা কমিশন গঠন করে। এই কমিশন সময়মতোই রিপোর্ট দাখিল করেছিল কিন্তু তাতে মহন্তকে অভিযুক্ত করার পক্ষে কিছুই ছিল না। এরপরই কেএন শইকিয়া কমিশন গঠন করা হয়েছিল।

Next Story