Begin typing your search above and press return to search.

তেজপুর ও আসাম বিশ্ববিদ্যালয়ে অসমিয়া বিভাগ নেই

তেজপুর ও আসাম বিশ্ববিদ্যালয়ে অসমিয়া বিভাগ নেই

Sentinel Digital DeskBy : Sentinel Digital Desk

  |  8 Feb 2019 12:40 PM GMT

গুয়াহাটিঃ অসম চুক্তি স্বাক্ষরের ফলশ্ৰুতিতে জন্ম নেওয়া রাজ্যের দুটি উচ্চ শিক্ষার প্ৰতিষ্ঠান তেজপুর কেন্দ্ৰীয় বিশ্ববিদ্যালয় ও শিলচরের আসাম বিশ্ববিদ্যালয়ে অসমিয়া বিষয়ের কোনও বিভাগ নেই। বিধানসভায় বৃহস্পতিবার অগপ বিধায়ক পবীন্দ্ৰ ডেকার এক প্ৰশ্নের জবাবে একথা জানানো হয়।

এই ইস্যু নিয়ে জবাব দিতে গিয়ে শিক্ষামন্ত্ৰী সিদ্ধার্থ ভট্টাচার্য বলেন,‘বিশ্ববিদ্যালয় দুটিতে যাতে অসমিয়া বিভাগ খোলা হয় তার জন্য রাজ্যসরকার বিষয়টি সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষের দরবারে তুলবে।

এদিন বিষয়টি উত্থাপন করে অগপ বিধায়ক ডেকা বলেন,অসম চুক্তি স্বাক্ষরের ফলশ্ৰুতিতে গড়ে ওঠা এই দুই বিশ্ববিদ্যালয়ে অসমিয়া বিভাগ না থাকাটা উদ্বেগের বিষয়। আমি প্ৰচার মাধ্যমের রিপোর্ট থেকে একথা জানতে পেরেছি। ‘রাজ্য সরকার এবং শিক্ষা বিভাগের এব্যাপারে পদক্ষেপ নেওয়া উচিত যাতে উভয় বিশ্ববিদ্যালয় শিগগিরই তাদের চত্বরে অসমিয়া বিভাগ খোলার বিষয়টি সুনিশ্চিত করে’।

এর জবাবে শিক্ষামন্ত্ৰী ভট্টাচার্য বলেন,আমরা উভয় বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষের কাছ থেকে এবিষয়ে রিপোর্ট পেয়েছি। তেজপুর কেন্দ্ৰীয় বিশ্ববিদ্যালয়ে অসমিয়ার কোনও বিভাগ নেই। তারা এর আগে বিভাগ খোলার জন্য ইউনিভার্সিটি গ্ৰাণ্টস কমিশনকে(ইউজিসি)প্ৰস্তাব দিয়েছিল। কিন্তু সেটি গ্ৰহণ করা হয়নি। তবে অসমিয়া বিষয়ের ওপর এই বিশ্ববিদ্যালয়ে একটা স্টাডি সেণ্টার থাকা প্ৰয়োজন এবং সেই সঙ্গে প্ৰয়োজন মহাপুরষ শ্ৰীমন্ত শঙ্করদেবের নামে একটি চেয়ার রাখা। ডিস্টেন্স এডুকেশন মোডেও অসমিয়া ভাষা শিক্ষার একটা ব্যবস্থা তাদের রাখা উচিত’। মন্ত্ৰী আশ্বাস দিয়ে বলেন,আমি ব্যক্তিগতভাবে বিষয়টি তুলবো যাতে বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষ ইউজিসির কাছে নতুন করে প্ৰস্তাব পাঠায় এবং তা গ্ৰহণের বিষয়টি সুনিশ্চিত করা হয়’।

আসাম বিশ্ববিদ্যালয় প্ৰসঙ্গে মন্ত্ৰী বলেন,এই বিশ্ববিদ্যালয়ের ডিফু ক্যাম্পাসে আসমিয়া বিভাগ রয়েছে। বিশ্ববিদ্যালয়ের মূল ক্যাম্পাসে যাতে অসমিয়া বিভাগ খোলা হয় তারজন্য আমি সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষের কাছে বিষয়টি তুলবো-বলেন ভট্টাচার্য।

Next Story