Top
undefined
Begin typing your search above and press return to search.

দৃষ্টিহীনদের দৃষ্টি ফেরাতে চ্যালেঞ্জের মুখে অসম

দৃষ্টিহীনদের দৃষ্টি ফেরাতে চ্যালেঞ্জের মুখে অসম

Sentinel Digital DeskBy : Sentinel Digital Desk

  |  25 April 2019 1:25 PM GMT

গুয়াহাটিঃ দৃষ্টিহীন লোকেদের এই সুন্দর পৃথিবী চাক্ষুষ করার পদক্ষেপ গ্ৰহণে অসমে যেন একটা উদাসীনতা পরিলক্ষিত হচ্ছে। রাজ্যে কর্নিয়া দানের ক্ষেত্ৰে নেওয়া পদক্ষেপ অনু্যায়ী ভারতীয় নেত্ৰ ব্যাংক অ্যাসোসিয়েশন ২০১৭-১৮ বর্ষে মাত্ৰ ১৫৮টি নেত্ৰ সংগ্ৰহ করার তথ্য প্ৰকাশ করেছে। অন্যদিকে,২০১৭-১৮ বর্ষে পড়শি রাজ্য বাংলা ও ওড়িশায় নেত্ৰদানের হিসেব হচ্ছে ১,৮৬৫ এবং ১,২৬৩। ২০১৭ ও ১৮ সালের চেয়ে ২০১৬-১৭ বর্ষে চক্ষু সংগ্ৰহের সংখ্যা ছিল ২১৪টি। এদিকে ২০১১ সালের জনগণনার তথ্য ও প্ৰতিবন্ধী বিভাগের তথ্য অনু্যায়ী অসমে মোট দৃষ্টিহীন এবং নেত্ৰহীন লোকের সংখ্যা ৮০,৫৫৩ জন।

ভারতীয় আই ব্যাংক সংস্থা দেশে চক্ষুদানের ক্ষেত্ৰে জনগণকে সচেতন করার লক্ষ্যে কাজ করছে। কর্নিয়া সংগ্ৰহের পরিমাণ সীমিত হওয়ার কারণ হচ্ছে অন্ধবিশ্বাস ও জনজাগরণের অভাব।

সে সব সংস্থা কর্নিয়া সংগ্ৰহের কাজে জড়িত তারা রোগী বা যেকোনও ব্যক্তি মৃত্যুর প্ৰাক্কালে কর্নিয়া দান করার পরও পরিবারের লোকজনের আপত্তির জন্য কর্নিয়া সংগ্ৰহ করতে পারেন না। জনৈক চক্ষু রোগ বিশেষজ্ঞ বলেন,রাজ্যে বড়সড় নেত্ৰ ব্যাংক খুবই আবশ্যক। তবে অনেকেই জানেন না কিভাবে চক্ষু দান করতে হয়। একজন ব্যক্তির মৃত্যু হওয়ার ৬ ঘণ্টার মধ্যে চক্ষু সংগ্ৰহ করার নিয়ম। মৃত ব্যক্তির চোখ সংগ্ৰহের ২৪ ঘণ্টা পর তা সংস্থাপিত করতে হয় অথবা চক্ষু নেত্ৰব্যাংকে ১৪ দিন পর্যন্ত রাখা যেতে পারে-বলেন তিনি।

Next Story