Top
Begin typing your search above and press return to search.

নগদ অর্থ সহ সন্দেহভাজন তিন কংগ্ৰেস কর্মী গ্ৰেপ্তার নগাঁওয়ে

নগদ অর্থ সহ সন্দেহভাজন তিন কংগ্ৰেস কর্মী গ্ৰেপ্তার নগাঁওয়ে

Sentinel Digital DeskBy : Sentinel Digital Desk

  |  17 April 2019 12:57 PM GMT

নগাঁওঃ এসআই গৌরব মহন্তের নেতৃত্বে পুলিশ ও ফ্লাইং স্কোয়াডের একটি দল সোমবার রাতে হয়বরগাঁওয়ের একটি হোটেলে যৌথ অভিযান চালিয়ে নির্বাচনী আচরণ বিধি লঙ্ঘনের দায়ে তিন সন্দেহভাজন কংগ্ৰেস কর্মীকে গ্ৰেপ্তার করেছে। একই সঙ্গে ধৃতদের কাছ থেকে বাজেয়াপ্ত করা হয়েছে ১৪.৯৩ লক্ষ টাকা। নগাঁও শহরের হয়বরগাঁওয়ের একটি হোটেলে আশ্ৰয় নিয়েছিল ওই তিন ব্যক্তি। টাকাগুলো কয়েকটি খামের মধ্যে রাখা হয়েছিল। নগাঁও কেন্দ্ৰের কংগ্ৰেস প্ৰার্থী প্ৰদ্যুৎ বরদলৈর পক্ষে ভোট টানার জন্য ভোটারদের মধ্যে বিতরণ করতেই এই টাকা আনা হয়েছিল বলে সন্দেহ করা হচ্ছে।

সূত্ৰটির মতে,নগদ অর্থ আনা সম্পর্কে বিশেষ সূত্ৰে খবর পেয়ে জেলা নির্বাচন কর্তৃপক্ষ ফ্লাই স্কোয়াড ও পুলিশ প্ৰশাসনকে ওই তিন সন্দেহভাজন কংগ্ৰেস কর্মীর বিরুদ্ধে ব্যবস্থা গ্ৰহণের নির্দেশ দেয়। জেলা নির্বাচন কর্তৃপক্ষের নির্দেশের পরিপ্ৰেক্ষিতে ফ্লাইং স্কোয়াড ও নগাঁও টাউন পুলিশ অভিযানে নেমে অবশেষে এই সাফল্যের মুখ দেখে। ওই তিন ব্যক্তি গুয়াহাটি ও মার্ঘেরিটার বলে পুলিশ ও ফ্লাইং স্কোয়াড জানতে পেরেছে। পুলিশ এদের কাছ থেকে পুরো টাকা বাজেয়াপ্ত করতে সফল হয়েছে। এদের নগাঁওয়ের ফৌজদারিপট্টির জিতেন গোস্বামী,মার্ঘেরিটার শাকিল আখতার এবং গুয়াহাটির চান্দমারি মিলনপুরের বাসিন্দা অরিন্দম কাকতি নামে শনাক্ত করা গেছে। তবে মঙ্গলবার সকালে এদের জামিনে মুক্তি দেওয়া হয়েছে বলে জানিয়েছে সূত্ৰটি।

এই ঘটনার সমালোচনা করে নগাঁও কেন্দ্ৰের কংগ্ৰেস প্ৰার্থী প্ৰদ্যুৎ বরদলৈ বলেন,নির্বাচনী এজেন্টদের জন্য ওই টাকা বরাদ্দ হয়েছিল এবং এই টাকা সম্পূর্ণ বৈধ এবং এব্যাপারে পুরো নথিপত্ৰ রয়েছে। কংগ্ৰেসের সুনাম নষ্ট করতেই এই ষড়যন্ত্ৰ রচনা করা হয়েছে-বলেন বরদলৈ।

ওদিকে হোজাই এবং গুয়াহাটির আটগাঁওয়ে অন্য এক অভিযান চালিয়ে ১২ লাখ টাকা বাজেয়াপ্ত করা হয়েছে। এই ঘটনায় পুলিশ দুই ব্যক্তিকে আটক করেছে।

Next Story