Top
Begin typing your search above and press return to search.

পিআরসি ইস্যুঃ অরুণাচল প্ৰদেশের মুখ্যমন্ত্ৰী পেমা খান্ডুর ইস্তফা দাবি বিরোধী দলগুলির

পিআরসি ইস্যুঃ অরুণাচল প্ৰদেশের মুখ্যমন্ত্ৰী পেমা খান্ডুর ইস্তফা দাবি বিরোধী দলগুলির

Sentinel Digital DeskBy : Sentinel Digital Desk

  |  6 March 2019 1:02 PM GMT

ইটানগরঃ স্থায়ী আবাসিকের প্ৰমাণপত্ৰ(পিআরসি)ইস্যু নিয়ে সম্প্ৰতি অরুণাচল প্ৰদেশের রাজধানী শহর ইটানগরে যে হিংসাশ্ৰয়ী ঘটনা ঘটেছে তাতে সব বিরোধী রাজনৈতিক দল তীব্ৰ ক্ষোভ ব্যক্ত করেছে। বিরোধীরা ওই ঘটনার নৈতিক দায়িত্ব স্বীকার করে মুখ্যমন্ত্ৰী পেমা খান্ডুকে পদত্যাগ করার দাবি জানিয়েছে। পিআরসি ইস্যুকে কেন্দ্ৰ করে সম্প্ৰতি রাজ্যের পরিস্থিতি অগ্নিগর্ভ হয়ে উঠেছিল। হিংসাশ্ৰয়ী ঘটনা,অগ্নিসংযোগ ও পুলিশের গুলিতে তিনজনের মৃত্যুও হয়। প্ৰাক্তন মুখ্যমন্ত্ৰী গেগং আপাঙের পৌরোহিত্যে রাজ্যের সব বিরোধী দলকে নিয়ে এখানে এক বৈঠক অনুষ্ঠিত হয়। আপাং সম্প্ৰতি জনতা দল(সেকুলার)-এ যোগ দিয়েছেন।

এই বৈঠকে উপস্থিত থাকা দলগুলির মধ্যে ছিল অরুণাচল প্ৰদেশ কংগ্ৰেস কমিটি। কংগ্ৰেসের রাজ্য সভাপতি তাকম সঞ্জয় দলের হয়ে বৈঠকে নেতৃত্ব দেন। এছাড়াও ন্যাশনাল পিপলস পার্টির(এনপিপি)বিধান পরিষদীয় দলের নেতা টাঙ্গা বায়ালিং এবং পিপলস পার্টি অফ অরুণাচল প্ৰদেশ(পিপিএ)সভাপতি খাফা বেঙ্গিয়া বৈঠকে উপস্থিত ছিলেন।

প্ৰদেশ কংগ্ৰেস সভাপতি তাকম সঞ্জয় সাংবাদিকদের বলেন,বৈঠকে একটি সর্বদলীয় সমন্বয় কমিটি গঠন করা হয়েছে। কমিটির আহ্বায়ক করা হয়েছে সঞ্জয়কে। বৈঠকে সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে ১৫ সদস্যের একটি প্ৰতিনিধি দল খুব শিগগিরই রাজ্যপালের সঙ্গে সাক্ষাৎ করে এব্যাপারে তাঁর হাতে একটি স্মারকপত্ৰ তুলে দেবে।

ওই স্মারকপত্ৰে তাঁরা খান্ডু এবং তাঁর সরকারকে ক্ষমতাচ্যুত করার দাবি জানাবে। এইক্ষেত্ৰে ব্যবস্থা গ্ৰহণে ব্যর্থ হলে রাজ্যপালকে হাই কোর্টের একজন বর্তমান অথবা অবসরপ্ৰাপ্ত বিচারপতির নেতৃত্বে একটি তদন্ত কমিশন গঠন করার দাবি জানানো হবে। পিআরসি ইস্যুকে কেন্দ্ৰ করে পুলিশের গুলিতে নিহত রিসো তারি,ভিকি রুজা এবং টিসেরিং ওয়াংডিকে শহিদ হিসেবে ঘোষণা করারও দাবি জানাবে তারা-বলেন সঞ্জয়।

‘বর্তমান শাসক দল ক্ষমতায় থাকার আধিকার হারিয়ে ফেলেছে উল্লেখ করে সঞ্জয় বলেন,রাজ্যে বসবাসকারী ছয় জনগোষ্ঠীকে পিআরসি ইস্যু করতে রাজ্য সরকারের প্ৰস্তাবের বিরুদ্ধে কাতারে কাতারে মানুষ পথে নেমে এসেছিলেন। কিন্তু মানুষের আবেগ অনুভুতির প্ৰতি কোনও গুরুত্বই দেয়নি সরকার। আইন শৃঙ্খলা রক্ষায়ও এই সরকার শোচনীয়ভাবে ব্যর্থ হয়েছে’। রাজ্যের সাম্প্ৰতিক অরাজক পরিস্থিতির জন্য বিরোধী দলগুলি খান্ডুকে ইস্তফা দেওয়ার দাবি জানিয়েছে।

Next Story