Begin typing your search above and press return to search.

রাজ্যসভায় নাগরিকত্ব বিলের বিরুদ্ধে ভোট দিতে রাজনৈতিক দলগুলিকে আহ্বান আসুর

রাজ্যসভায় নাগরিকত্ব বিলের বিরুদ্ধে ভোট দিতে রাজনৈতিক দলগুলিকে আহ্বান আসুর

Sentinel Digital DeskBy : Sentinel Digital Desk

  |  1 Feb 2019 10:28 AM GMT

গুয়াহাটিঃ সারা অসম ছাত্ৰ সংস্থা(আসু)নাগরিকত্ব(সংশোধনী)বিল ২০১৯-এর(সিএবি)বিরুদ্ধে রাজ্যসভায় ভোট দিতে ইউপিএ এবং সেইসঙ্গে এনডিএ-র(বিজেপি ছাড়া)শরিক সহ সব রাজনৈতিক দলগুলির প্ৰতি আর্জি জানিয়েছে। ‘অসম এবং উত্তর পূর্বাঞ্চলের স্থানীয় ভূমিপুত্ৰদের সুরক্ষা ও নিরাপত্তার স্বার্থেই আসুর ওই আহ্বান’। রাজ্যের সর্বোচ্চ ছাত্ৰ সংগঠনটি বিলের বিরুদ্ধে গণতান্ত্ৰিক আন্দোলন আরও জোরদার করে তোলারও আহ্বান জানিয়েছে।

আসুর সাধারণ সম্পাদক লুরিনজ্যোতি গগৈ দ্য সেন্টিনেল-এর সঙ্গে কথা বলতে গিয়ে বলেন,‘নাগরিকত্ব(সণ্গশোধনী)বিল পাস করতে কেন্দ্ৰীয় সরকার দৃঢ় সংকল্পবদ্ধ। বিজেপি সভাপতি অমিত শাহ তো বিলের সমর্থনে প্ৰকাশ্যেই বক্তব্য রাখছেন। প্ৰধানমন্ত্ৰী নরেন্দ্ৰ মোদিও শিলচরে এক জনসভায় বিলটি সমর্থন করেছেন। এমনকি শেষপর্যন্ত রাষ্ট্ৰপতি রামনাথ কোবিন্দও সংসদে বিলের পক্ষেই মতামত রেখেছেন। ‘তাই বিল নিয়ে যে হুমকির সৃষ্টি হয়েছিল তা এখন বাস্তব রূপ নিতে চলেছে’।

‘ত্ৰিপুরার ভূমিপুত্ৰরা নিজের স্বভূমিতে ইতিমধ্যেই সংখ্যালঘুতে পরিণত হয়েছে। একবার এই বিল পাস হলে অসম ও উত্তরপূর্বাঞ্চলের অন্যান্য রাজ্যগুলিও অনুরূপ হুমকির মুখে পড়বে’।

‘বিজেপি নেতৃত্বাধীন কেন্দ্ৰ ও রাজ্য সরকার বলপূর্বক এঅঞ্চলের মানুষের কাঁধে এই বিল চাপিয়ে দিতে চাইছে। বিলের বিরুদ্ধে সম্মিলিত আওয়াজ ওঠা সত্ত্বেও উভয় সরকার তাতে কানই দিচ্ছে না’।

মুখ্যমন্ত্ৰী সর্বানন্দ সোনোয়ালকে আক্ৰমণ করে আসু নেতা বলেন,‘সোনোয়ালের মতো একজন রাবার স্টাম্প মুখ্যমন্ত্ৰী অসমের মানুষ কখনোই আশা করেননি। কারণ,সোনোয়াল এখন ওই বিতর্কিত বিলের পক্ষেই সাফাই গাইছেন। কালো পতাকা দেখার ভয়ে মুখ্যমন্ত্ৰী এখন অবাধে চলাফেরা করতে পারছেন না। ‘সোনোয়ালের আমলে যদি এই বিল পাস হয় তাহলে রাজ্যের মানুষ কখনোই তাঁকে ক্ষমা করবেন না’-বলেন গগৈ।

গগৈ ছাত্ৰ সংগঠনের নেতা,সদস্য ও সমর্থকদের সবধরনের হিংসা পরিহার করে গণতান্ত্ৰিক উপায়ে শান্তিপূর্ণভাবে বিল বিরোধী আন্দোলন চালিয়ে যাওয়ার আহ্বান জানান।

Next Story