Begin typing your search above and press return to search.

রাফাল যুদ্ধ বিমানের গোপন নথি চুরি গেছে প্ৰতিরক্ষা মন্ত্ৰক থেকে,সুপ্ৰিমকোর্টকে জানাল কেন্দ্ৰ

রাফাল যুদ্ধ বিমানের গোপন নথি চুরি গেছে প্ৰতিরক্ষা মন্ত্ৰক থেকে,সুপ্ৰিমকোর্টকে জানাল কেন্দ্ৰ

Sentinel Digital DeskBy : Sentinel Digital Desk

  |  7 March 2019 10:43 AM GMT

নয়াদিল্লিঃ প্ৰতিরক্ষা মন্ত্ৰকের কার্যালয় থেকে চুরি গেছে রাফাল লড়াকু বিমান ক্ৰয় সংক্ৰান্ত গোপন নথি। কেন্দ্ৰীয় সরকার বুধবার রাফাল মামলার শুনানিকালে সুপ্ৰিমকোর্টকে এই বিস্ফোরক তথ্য জানায়। অ্যাটর্নি জেনারেল কেকে বেণুগোপাল এদিন রাফাল সম্পর্কে রায় পুনর্বিবেচনার শুনানিকালে একথা জানান শীর্ষ আদালতকে। ফ্ৰান্সের কাছ থেকে ৩৬টি রাফাল যুদ্ধ বিমান কেনা সম্পর্কে সুপ্ৰিমকোর্ট গত ১৪ ডিসেম্বর এক রায়ে সরকারকে ক্লিন চিট দিয়েছিল। বেণুগোপাল আদালতকে আরও বলেছেন সংবাদপত্ৰে প্ৰকাশিত তথ্যের ওপর নির্ভর করে যারা রাফাল মামলা পুনর্বিবেচনার দাবি জানিয়েছেন তারা প্ৰকৃতার্থে সরকারি গোপনীয়তা আইন লঙ্ঘন করেছেন।

সুপ্ৰিমকোর্টের প্ৰধান বিচারপতি রঞ্জন গগৈ,বিচারপতি সঞ্জয় কিষেন কৌল ও বিচারপতি কেএম যোসেফকে নিয়ে গঠিত ডিভিশন বেঞ্চকে অ্যাটর্নি জেনারেল বলেছেন,প্ৰতিরক্ষা মন্ত্ৰকের পূর্বের অথবা বর্তমানের কোনও কর্মী এই গোপন নথিগুলি চুরি করে থাকতে পারেন।

প্ৰধান বিচারপতি গগৈ রাফাল নথি চুরি যাওয়ার ঘটনার পর সরকার কী পদক্ষেপ নিয়েছে তা অ্যাটর্নি জেনারেলের কাছে জানতে চান। জবাবে বেণুগোপাল বলেন,সরকারি গোপন আইন অনু্যায়ী এবিষয়ে তদন্ত শুরু করা হয়েছে। রাফাল ইস্যুতে তিন সদস্যের ইন্ডিয়া নিগোসিয়েটিং টিমের(আইএনটি)-র আট পৃষ্টার নোটের কথাও উল্লেখ করেছেন অ্যাটর্নি জেনারেল। রাফাল ইস্যুতে ‘দ্য হিন্দু’ সংবাদপত্ৰে প্ৰকাশিত প্ৰতিবেদনটি আদালতে পেশ করার আর্জি জানান রায় পুনর্বিবেচনার আবেদনকারীদের আইনজীবী। বিচারপতি গগৈ অবশ্য আবেদনকারীদের আইনজীবীকে বলেছেন,এব্যাপারে নতুন কোনও তথ্য জানতে তারা আগ্ৰহী নন। কারণ ইতিপূর্বে পেশ করা যাবতীয় তথ্য তারা খুটিয়ে খুটিয়ে পড়েছেন। গত ১৪ ডিসেম্বর রাফাল মামলা সংক্ৰান্ত রায়ে সুপ্ৰিমকোর্ট জানিয়েছিল এই মামলায় কোনওরকম দুর্নীতি হয়নি। এতে সরকারও কিছুটা স্বস্তি পেয়েছিল। ওই রায়ের পরই এই মামলা পুনর্বিবেচনার আর্জি জানিয়ে আদালতে দুটি পৃথক মামলা দায়ের করেন যশবন্ত সিনহা,অরুণ শৌরি ও আম আদমি পার্টির সঞ্জয় সিং। ১৪ ডিসেম্বরের রায়ে আদালত জানিয়েছিল কোর্টের তদারকিতে এই মামলার কোনও তদন্ত আর হবে না।

বুধবারের শুনানিকালে অ্যাটর্নি জেনারেল বেণুগোপাল গত ২৭ ফেব্ৰুয়ারি পাকিস্তানের বেশকটি এফ-১৬ বিমানের ভারতীয় আকাশসীমা লঙ্ঘনের প্ৰসঙ্গ তুলে বলেন,ওই দিন ভারতীয় বায়ু সেনা মিগ-২১ নিয়ে পাক বিমানের পিছু ধাওয়া করেছিল। এফ-১৬-এর চেয়ে মিগ-২১ অনেকটা সেকেলে। মামলাকারীদের তাক করে অ্যাটর্নি জেনারেল বলেন,পাকিস্তানের এফ-১৬ বিমান ভারতের সীমায় ঢুকে বোমা ফেলেছে। রাফাল ছাড়া এফ-১৬-র মোকাবিলা করা সম্ভব নয়। কিন্তু মামলাকারীদের এধরনের ভূমিকা রাফাল হাতে পাওয়ার প্ৰক্ৰিয়াকে যে পিছিয়ে দিচ্ছে আদালতকে একথাও বোঝাতে চেয়েছেন অ্যাটর্নি জেনারেল। তবে বিচারপতি রঞ্জন গগৈ জানান রাফাল পুনর্বিবেচনা সংক্ৰান্ত মামলার পরবর্তী শুনানি হবে ১৪ মার্চ।

Next Story