Begin typing your search above and press return to search.

১৯৮৪-এর শিখ বিরোধী দাঙ্গাঃ কংগ্ৰেস নেতা সজ্জন কুমারকে যাবজ্জীবন সাজা

১৯৮৪-এর শিখ বিরোধী দাঙ্গাঃ কংগ্ৰেস নেতা সজ্জন কুমারকে যাবজ্জীবন সাজা

Sentinel Digital DeskBy : Sentinel Digital Desk

  |  17 Dec 2018 6:47 AM GMT

পাঁচ রাজ্যের বিধানসভা নির্বাচনে ভরাডুবির পর রাফাল নিয়ে সুপ্রিম কোর্টের রায় কিছুটা স্বস্তি দিয়েছিল শাসক বিজেপিকে। এ বার দিল্লি হাইকোর্টের রায় বিজেপি-এর কংগ্রেস বিরোধিতার পালে জোরদার হাওয়া জোগাল। নিম্ন আদালতের রায় খারিজ করে দিয়ে ১৯৮৪-এর শিখ-বিরোধী দাঙ্গায় কংগ্রেস নেতা সজ্জন কুমারকে দোষী সাব্যস্ত করল দিল্লি হাইকোর্ট।হাইকোর্ট সোমবার সজ্জন কুমারের যাবজ্জীবন ঘোষণা করেছে।১৯৪৪-তে দিল্লিতে শিখ-বিরোধী দাঙ্গার যাঁরা শিকার হয়েছিলেন তাঁদের, সিবিআই এবং যাঁরা দোষী তাঁদের তরফে যে সব আর্জি পেশ করা হয়েছিল, সেগুলি নিয়ে দিল্লি হাইকোর্টে শুনানি শেষ হয় ২৯ অক্টোবর।

বিচারপতি এস মুরলীধর এবং বিচারপতি বিনোদ গোয়েলের বেঞ্চ রায়দান স্থগিত রাখে।তৎকালীন প্রধানমন্ত্রী ইন্দিরা গান্ধী খুন হওয়ার পর দিলিতে শিখ-বিরোধী দাঙ্গার জেরে ১৯৮৪ সালের ১ নভেম্বর দিল্লি ক্যান্টনমেন্টে রাজনগর এলাকায় এক পরিবারের পাঁচ সদস্য খুন হয়। সেই ঘটনায় প্রাক্তন কংগ্রেস কাউন্সিলর বলবন্ত খোখর, অবসরপ্রাপ্ত নৌ অফিসার ক্যাপ্টেন ভাগমল, গিরধারী লাল এবং আরও দু’ জনকে দোষী সাব্যস্ত করেছিল নিম্ন আদালত। এদের মধ্যে বলবন্ত খোখর, ভাগমল ও লালকে যাবজ্জীবন কারাদণ্ড দেওয়া হয়। বাকি দু’ জন, প্রাক্তন বিধায়ক মহেন্দ্র যাদব ও কিশান খোখরকে তিন বছরের জেল দেওয়া হয়। আদালত সজ্জন কুমারকে খালাস করে দেয়।নিম্ন আদালতে ২০১৩-এর এই রায়কে চ্যালেঞ্জ জানিয়ে দোষীদের পক্ষ থেকে হাইকোর্টে আর্জি পেশ করা হয়। তদন্তকারী সংস্থা সিবিআই এবং দাঙ্গায় ক্ষতিগ্রস্ত পরিবার সজ্জন কুমারের খালাসের বিরুদ্ধে হাইকোর্টে আপিল করে।

Next Story