Top
undefined
Begin typing your search above and press return to search.

এনআরএল বেসরকারিকরণের বিরুদ্ধে প্ৰদেশ কংগ্ৰেসের ধরনা

এনআরএল বেসরকারিকরণের বিরুদ্ধে প্ৰদেশ কংগ্ৰেসের ধরনা

Sentinel Digital DeskBy : Sentinel Digital Desk

  |  31 Oct 2019 10:00 AM GMT

নুমলিগড়ঃ অসম প্ৰদেশ কংগ্ৰেস কমিটি(এপিসিসি)নুমলিগড় শোধনাগার লিমিটেড(এনআরএল)বেসরকারি হাতে তুলে দেওয়ার প্ৰস্তাবের প্ৰতিবাদে বুধবার গোলাঘাট জেলার নুমলিগড়ে ধরনা কর্মসূচি পালন করে। শতাধিক প্ৰতিবাদকারী ধরনায় অংশ নেন এবং তারা নুমলিগড় তিনালিতে ৩৭ ও ৩৯নং রাষ্ট্ৰীয় সড়ক এক ঘণ্টারও বেশি সময় অবরোধ করে রাখেন।

প্ৰাক্তন মুখ্যমন্ত্ৰী তরুণ গগৈ,প্ৰদেশ কংগ্ৰেস সভাপতি রিপুন বরা,বিরোধী দল নেতা দেবব্ৰত শইকিয়া,এপিসিসির উপ সভাপতি রকিবুল হুসেন,কংগ্ৰেস সাংসদ প্ৰদ্যুৎ বরদলৈ,গৌরব গগৈ.বিধায়ক রূপজ্যোতি কুর্মি,রেকিবুদ্দিন আহমেদ,কমলাক্ষ দে পুরকায়স্থ,অজন্তা নেওগ এবং রোসেলিনা তির্কি,প্ৰাক্তন সাংসদ সুস্মিতা দেব,প্ৰাক্তন বিধায়ক রানা গোস্বামী,অরুণ ফুকন,বিস্মিতা গগৈ ও অন্যান্যরা ধরনা কর্মসূচিতে অংশ নেন।

এনআরএল সহ রাষ্ট্ৰায়ত্ত খণ্ডের প্ৰতিষ্ঠানগুলো বেসরকারিকরণে সরকারের দিদ্ধান্তের প্ৰতিবাদে মুখ খুলে প্ৰাক্তন মুখ্যমন্ত্ৰী তরুণ গগৈ বলেন যে ,কংগ্ৰেস শাসনকালেই অধিকাংশ রাষ্ট্ৰায়ত্ত শিল্প প্ৰতিষ্ঠান গড়ে উঠেছিল কিন্তু এখন নরেন্দ্ৰ মোদির নেতৃত্বাধীন বিজেপি সরকার সেগুলি এক এক করে বিক্ৰি করতে চলেছে। তিনি অভি্যোগ করেন,বিজেপি সরকার ইতিমধ্যেই দুটো কাগজ কল বন্ধ করে দিয়েছে,যা কংগ্ৰেস স্থাপন করেছিল। গগৈ সরকারের কঠোর ভাষায় সমালোচনা করে বলেন,সরকার রাষ্ট্ৰায়ত্ত খণ্ডের অন্যান্য শিল্প প্ৰতিষ্ঠান বেসরকারি হাতে তুলে দেওয়ার তোড়জোড় চালাচ্ছে। তিনি বলেন,বিপিসিএল/এনআরএল বিক্ৰি করার পর সরকার নিপকোও বিক্ৰি করে দেবে এবং এরপরই থাবা বসাবে ওএনজিসি-র ওপর।

প্ৰতিবাদ সমাবেশে ভাষণ দিতে গিয়ে রকিবুল হুসেন এবং প্ৰদ্যুৎ বরদলৈর মতো নেতারা বলেন,যেকোনও মূল্যে এনআরএল বেসরকারিকরণের প্ৰস্তাবটি তাঁরা মেনে নেবেন না। নুমলিগড়ে বেলা ১১টা থেকে ১টা পর্যন্ত এই ধরনা কর্মসূচি পালন করা হয়। এদিন প্ৰতিবাদকারীরা একটি রেলিও বের করেন। প্ৰতিবাদকারীরা নুমলিগড় তিনালিতে ৩৭ ও ৩৯ নং রাষ্ট্ৰীয় সড়ক এক ঘণ্টারও বেশি সময় অবরোধ করে রাখেন। অবরোধ চলাকালে সহস্ৰাধিক গাড়ি আটকে রাখা হয়। ফলে ওই অঞ্চলে তীব্ৰ যানজটের সৃষ্টি হয়। পরিস্থিতি একটা সময় উত্তপ্ত হয়ে ’ওঠায় পুলিশ হস্তক্ষেপ করে সমস্ত প্ৰতিবাদকারীদের আটক করে। প্ৰাক্তন মুখ্যমন্ত্ৰী এবং অন্যান্য কংগ্ৰেস নেতাদেরও আটক করে পুলিশ।

অন্যান্য খবরের জন্য পড়ুনঃ ২০০৮-এ ধারা বিস্ফোরণে নিহতদের প্ৰতি মুখ্যমন্ত্ৰীর শ্ৰদ্ধার্ঘ্য

অধিক খবরের জন্য ভিডিও দেখুন: BTAD Army Football League 2019-2020

Next Story