Top
undefined
Begin typing your search above and press return to search.

অযোধ্যার বিতর্কিত জমিতে রাম মন্দিরই হচ্ছে,মুসলিমদের জন্য পৃথক জমি,রায় সুপ্ৰিমকোর্টের

অযোধ্যার বিতর্কিত জমিতে রাম মন্দিরই হচ্ছে,মুসলিমদের জন্য পৃথক জমি,রায় সুপ্ৰিমকোর্টের

Sentinel Digital DeskBy : Sentinel Digital Desk

  |  9 Nov 2019 6:29 AM GMT

নয়াদিল্লিঃ শতাব্দী পুরনো অযোধ্যার রাম জন্মভূমি-বাবরি মসজিদের বিতর্কিত ২.৭৭ একর জমি মামলা নিয়ে আজ চূড়ান্ত রায় দিয়েছে সুপ্ৰিমকোর্ট। বহু প্ৰতীক্ষিত এই বিতর্কিত মামলার রায় ঘিরে সারা দেশে নিরাপত্তা ব্যবস্থা চাঙ্গা করে তোলা হয়েছে। বিশেষ করে মন্দির শহর উত্তর প্ৰদেশকে নিরাপত্তার চাদরে মুড়ে দিয়েছে প্ৰশাসন।

সুপ্ৰিমকোর্টের মুখ্য বিচারপতি রঞ্জন গগৈর নেতৃত্বে পাঁচ সদস্যের বেঞ্চ টানা ৪০ দিন এই মামলার শুনানি গ্ৰহণ শেষে রায়দান স্থগিত রেখেছিল তবে আজ সুপ্ৰিমকোর্টের রায়ে বলা হয়েছে,বিতর্কিত জমিতে রাম মন্দির হবে। মুসলিমদের জন্য পৃথকভাবে পাঁচ একর জমি বরাদ্দ করা হবে।

এই মামলা নিয়ে এলাহাবাদ হাইকোর্ট ২০১০ সালের ৩০ সেপ্টেম্বর অযোধ্যার বিতর্কিত জমি রামলালা,কেন্দ্ৰীয় সুন্নি ওয়াকফ বোর্ড এবং নিরোমণি আখড়ার নামে সমান তিনভাগে বিভক্ত করার একটি রায় দিয়েছিল। এলাহাবাদ হাইকোর্টের ওই রায়কে চ্যালেঞ্জ জানিয়ে দাখিল করা একগুচ্ছ পিটিশনের শুনানি গ্ৰহণ করে মুখ্য বিচারসরির নেতৃত্বধীন সুপ্ৰিম কোর্টের দ্বারস্থ হয়েছিল ওই রায়ের পরিমার্জনের দাবি জানিয়েছে।

এরপরই বিতর্কিত অযোধ্য মামলা নিয়ে মুখ্য বিচারপতি রঞ্জন গগৈর নেতৃত্বধীন পাঁচ সদস্যের বেঞ্চ টানা ৪০ দিন বিভিন্ন পক্ষের শুনানি গ্ৰহণ করে। অযোধ্যার বিতর্কিত জমি নিয়ে হিন্দু ও মুসলিম সংগঠনগুলোর মধ্যে দীর্ঘদিন ধরে বিবাদ চলছিল। হিন্দুরা দাবি করে আসছিল অযোধ্যা রামের জন্মভূমি। তাই ওখানে রামমন্দির হওয়া যুক্তিযুক্ত। অন্যদিকে মুসলিম সংগঠনগুলো ওই জমিতে মসজিদ নির্মাণের দাবি জানিয়ে আসছিল। এই নিয়ে দীর্ঘদিন ধরে চলছিল উভয় পক্ষের খেয়োখেয়ি।

সুপ্ৰিম কোর্ট মামলাটি নিয়ে ৪০ দিন শুনানির পর এবং বিভিন্ন পক্ষের লিখিত মতামত গ্ৰহণের পর রায়দান ঝুলিয়ে রাখে। তবে সমস্ত সাক্ষী সাবুদ ও মতামত গ্ৰহণের পর সুপ্ৰিমকোর্ট আজ মামলা নিয়ে চূড়ান্ত রায়দান করে।

অযোধ্যার বিতর্কিত মামলার রায় ঘিরে মুম্বাই শহরে আগামিকাল বেলা ১১টা পর্যন্ত ১৪৪ ধারা জারি করা হয়েছে। রায় বলা হয়েছে,১৮৫৬-৫৭ সালের আগেও হিন্দুরা ওখানে পূজা অর্চনা করতেন। তাই অযোধ্যার বিতর্কিত ওই জমি হিন্দুদের পূজা অর্চনার জন্য থাকছে। মুসলিমদের জন্য বিকল্প জমির ব্যবস্থা করা হবে। বলেছে সুপ্ৰিম কোর্টের পাঁচ সদস্যের বেঞ্চ।

২০১০-এ এলাহাবাদ হাইকোর্ট অযোধ্যার বিতর্কিত জমি সমান তিনভাগে ভাগ করার যে রায় নিয়েছিল তার বিরুদ্ধে জানানো আবেদনের প্ৰেক্ষিতেয় এই রায় দেয়।

অযোধ্যার বিতর্কিত মামলার রায় ঘিরে মুম্বাই শহরে আগামিকাল বেলা ১১টা পর্যন্ত ১৪৪ ধারা জারি করা হয়েছে। রায় বলা হয়েছে,১৮৫৬-৫৭ সালের আগেও হিন্দুরা ওখানে পূজা অর্চনা করতেন। তাই অযোধ্যার বিতর্কিত ওই জমি হিন্দুদের পূজা অর্চনার জন্য থাকছে। মুসলিমদের জন্য বিকল্প জমির ব্যবস্থা করা হবে। বলেছে সুপ্ৰিম কোর্টের পাঁচ সদস্যের বেঞ্চ।

২০১০-এ এলাহাবাদ হাইকোর্ট অযোধ্যার বিতর্কিত জমি সমান তিনভাগে ভাগ করার যে রায় নিয়েছিল তার বিরুদ্ধে জানানো আবেদনের প্ৰেক্ষিতেয় এই রায় দেয়।

অন্যান্য খবরের জন্য পড়ুনঃ অযোধ্যার বিতর্কিত জমিতে রাম মন্দিরই হচ্ছে,মুসলিমদের জন্য পৃথক জমি,রায় সুপ্ৰিমকোর্টের

অধিক খবরের জন্য ভিডিও দেখুন: 80 Students fell sick in Tinsukia after consuming Mid-day Meal

Next Story