পশ্চিম বাংলায়ও থাবা বসালো ঘূর্ণিঝড় ফেনি

পশ্চিম বাংলায়ও থাবা বসালো ঘূর্ণিঝড় ফেনি

গুয়াহাটিঃ বিধ্বংসী ঘূর্ণিঝড় ফেনি আজ সকালে ওড়িশার পড়শি রাজ্য পশ্চিমবঙ্গেও ঢুকে পড়েছে। ঝড়ের সঙ্গে আকাশ ভেঙে নেমে আসে বৃষ্টিধারা। ওড়িশায় ঘূর্ণিঝড় ফেনির থাবায় প্ৰাণ হারান আটজন ব্যক্তি। প্ৰলয় ঝড়ের ঝাপটায় বিভিন্ন স্থানে গাছপালা সমূলে উৎপাটিত হয়েছে,ভেঙে পড়েছে ঘরবাড়ি,বিদ্যুতের খুঁটিও প্ৰায় ২০ বছর পর এই উপ মহাদেশে ফেনির মতো বিধ্বংসী ঘূর্ণিঝড় থাবা বসালো।

ঝড়ের সঙ্গে কলকাতার একাংশ এবং শহরতলি অঞ্চলে শুক্ৰবার বিকেল থেকে মাঝারি থেকে মুষলধারায় বৃষ্টি নামে। ঘূর্ণি ঝড় এখন বাংলাদেশের দিকে গতি করছে। তবে বাতাসের গতি অনেকটা হ্ৰাস পেয়ে ঘণ্টায় ৯০ কিলোমিটারে দাঁড়িয়েছে। প্ৰধানমন্ত্ৰী নরেন্দ্ৰ মোদি আজ সকালে টুইটযোগে বলেন,ফেনির আক্ৰমণে পশ্চিমবঙ্গের পরিস্থিতি সম্পর্কে রাজ্যের রাজ্যপাল কেশরীনাথ ত্ৰিপাঠির সঙ্গে তাঁর কথা হয়েছে। ঝড়ের মোকাবিলায় সব ধরনের সাহা্য্য দিতে কেন্দ্ৰের প্ৰস্তুতির কথাও তিনি উল্লেখ করেছেন।

ঘূর্ণিঝড় ফেনি পশ্চিমবঙ্গে প্ৰবেশের আগে তুলনামূলকভাবে অনেকটাই দুর্বল হয়ে পড়ে। শুক্ৰবার রাতে উপকূলীয় জেলা পুব মেদিনীপুরে কমপক্ষেও ১৫ হাজার মানুষ আশ্ৰয় শিবিরে রাত কাটান। পশ্চিম মেদিনীপুরে আরও ২০ হাজার মানুষকে আশ্ৰয় শিবিরে ঠাঁই দেওয়া হয়েছে। এদিকে কলকাতা বিমানবন্দর শুক্ৰবার বিকেল থেকে বন্ধ রাখা হয়েছিল যদিও আজ সকাল ৮টা থেকে বিমানবন্দর ফের খুলে দেওয়া হয়। ওড়িশার বালাশোর হয়ে রাত ১২.৩০ নাগাদ ঘূর্ণি ঝড় ফেনি খড়গপুর অতিক্ৰম করে। ওই সময় ঝড়ের গতিবেগ ছিল ঘণ্টায় ৭০-৮০ কিলোমিটার। কখনো কখনো ঝড়ের গতি ঘণ্টায় ৯০ কিলোমিটারে বৃদ্ধি পেতে দেখা গেছে। আঞ্চলিক আবহাওয়া কেন্দ্ৰের ডেপুটি ডিরেক্টর জেনারেল সঞ্জীব বন্দ্যোপাধ্যায় একথা জানান।

এই ঝড় ক্ৰমশ উত্তর ও উত্তর পূর্ব দিকে ধাবিত হয়ে পূর্ব বর্ধমান-হুগলি বর্ডারে ঢুকবে এবং শনিবার বিকেলের মধ্যে নদীয়া হয়ে বাংলাদেশের দিকে ধাবিত হবে। ঝড়ের সঙ্গে নামবে মুষলধারে বৃষ্টি।

পশ্চিমবঙ্গের দিঘায় ঝড়ের গতি ঘণ্টায় ৭০ কিলোমিটার এবং ফ্ৰাজেরগঞ্জে ঝড়ের গতি ৬০-৭০ কিলোমিটার প্ৰতি ঘণ্টায়।

ভারতের আবহাওয়া বিভাগ(আইএমডি)উত্তর পূর্বাঞ্চলের রাজ্যগুলিকেও সতর্ক থাকতে বলেছে। বিভাগটির মতে ঘূর্ণিঝড় ফেনি বাংলাদেশ অতিক্ৰম করে উত্তর-পূর্বাঞ্চলেও থাবা বসাতে পারে। সরকারি খবর মতে,আগরতলা ও কলকাতার মধ্যে বিমান সেবা এদিন ব্যাহত হওয়ায় সম্ভাবনা রয়েছে।

logo
Sentinel Assam- Bengali
bengali.sentinelassam.com