Begin typing your search above and press return to search.

জনগণনা হলেও অসমে এনপিআর হচ্ছে না

জনগণনা হলেও অসমে এনপিআর হচ্ছে না

Sentinel Digital DeskBy : Sentinel Digital Desk

  |  6 Sep 2019 1:15 PM GMT

গুয়াহাটিঃ ন্যাশনাল পপুলেশন রেজিস্ট্ৰার(এনপিআর)২০২১ সালে অসমে জনগণনার কাজ বাদ দিলেও রেজিস্ট্ৰার জেনারেল অফ ইন্ডিয়া(আরজিআই)অসমে ওই বছর জনগণনার কাজ চালাবে।

২০২০ সালের ১ এপ্ৰিল থেকে ৩০ সেপ্টেম্বরের মধ্যে অসম ছাড়া সারা দেশেই এনপিআর-এর কাজ চলবে। সূত্ৰটি বলেছে,রাষ্ট্ৰীয় নাগরিক পঞ্জি(এনআরসি)নবায়নের প্ৰেক্ষিতেই এনপিআর-এর কাজ থেকে অসমকে বাদ দেওয়া হয়েছে।

‘আরজিআই অসমে জনগণনার কাজ চালাবে। এনআরসি নবায়নের জন্য অসমে এনপিআর-এর কাজ পরিচালনা করা হবে না। তবে দেশের অন্যান্য রাজ্যে জনগণনা এবং এনপিআর দুটো কাজই চলবে’। ডিরেক্টরেট অফ সেনসাস অপারেশনস অসম-এর ডেপুটি ডিরেক্টর জেনারেল ভারতী চন্দ দ্য সেন্টিনেলকে একথা জানিয়েছেন।

১০ বছর অন্তর যে জনগণনা হয়ে থাকে তার থেকে এনপিআর-এর কাজ ভিন্ন ধরনের। দেশের স্থায়ী আবাসিকদের রেজিস্ট্ৰার এটা। ১৯৫৫ সালের নাগরিকত্ব আইন এবং সিটিজেনশিপ(রেজিস্ট্ৰেশন অফ সিটিজেন্স অ্যান্ড ইস্যু অফ ন্যাশনাল আইডেনটিটি কার্ডস)রুলস ২০০৩-এর বিধি ব্যবস্থা অনু্যায়ী লোকাল(গ্ৰাম/সাব টাউন),উপ জেলা,জেলা,রাজ্য এবং জাতীয় পর্যায়ে এটি প্ৰস্তুত করা হয়ে থাকে।

ভারতে বসবাসকারী প্ৰত্যেক স্থায়ী আবাসিকের এনপিআর-এ নাম নথিভুক্ত করা বাধ্যতামূলক। কোনও ব্যক্তি যদি নির্দিষ্ট কোনও এলাকায় গত ছমাস অথবা বেশি সময় থেকেছেন কিংবা ওই এলাকায় আরও ৬ মাস বা বেশি সময় থাকতে চান তাহলে তার এনপিআর-এ নাম নথিভুক্ত করা উচিত। দেশের প্ৰত্যেক স্থায়ী আবাসিকের রেকর্ড এবং আইডেনটিটি ডাটা বেস ধরে রাখাই এনপিআর-এর উদ্দেশ্য।

অন্যান্য খবরের জন্য পড়ুনঃ এনআরসি কর্তৃপক্ষের ‘রিজেকশন অর্ডার’ পাওয়ার ১২০ দিনের মধ্যে আপিল করতে পারবেন নামছুটরা

অধিক খবরের জন্য ভিডিও দেখুন: Watch Video | 58th Teachers' Day observed at Tinsukia and Digboi

Next Story