Top
Begin typing your search above and press return to search.

অসমের দুটি কাগজ কল পুনরুজ্জীবিত করা নিয়ে বিজেপি সাংসদদের আশ্বাস কেন্দ্ৰের

অসমের দুটি কাগজ কল পুনরুজ্জীবিত করা নিয়ে বিজেপি সাংসদদের আশ্বাস কেন্দ্ৰের

Sentinel Digital DeskBy : Sentinel Digital Desk

  |  20 Jun 2019 10:48 AM GMT

গুয়াহাটিঃ হিন্দুস্তান পেপার কর্পোরেশনের(এইচপিসি)অসমে থাকা দুটি কাগজ কল পুনরুজ্জীবিত করার ফের আশ্বাস দিল কেন্দ্ৰীয় সরকার। এই দুটি কাগজ কল রয়েছে অসমের জাগিরোড ও কাছাড়ের পাঁচগ্ৰামে। দীর্ঘ দিন ধরে কাগজ কল দুটি বন্ধ থাকায় কলের কর্মীরা দুর্বিষহ জীবন কাটাচ্ছেন। কল দুটি পুনরুজ্জীবিত করার দাবিতে আন্দোলন করেছেন কর্মীরা। রাজ্য ও কেন্দ্ৰীয় সরকারের কাছে একাধিকবার আর্জি জানিয়েছেন কাগজ কল দুটি খোলার জন্য। অর্থাভাব ও দারিদ্ৰ্য সইতে না পারে কলের বেশকজন কর্মী আত্মহত্যার পথও বেছে নিয়েছেন। সরকারের তরফ থেকে কাগজ কল দুটি খোলার ব্যাপারে অনেকবারই আশ্বাস দেওয়া হয়েছে। কিন্তু কার্যক্ষেত্ৰে আশ্বাস বাস্তবায়নে আজ অবধি পাকাপোক্ত কোনও পদক্ষেপ নিতে দেখা যায়নি।

এইচপিসি-র এই দুটো ইউনিট খোলার ব্যাপারে কেন্দ্ৰের তরফে নতুন করে যে আশ্বাস দেওয়া হয়েছে,তাতে কলের কর্মীদের মনে কোনও আশার আলো দেখা দিয়েছে কিনা তা আগামি দিনে বোঝা যাবে।

কেন্দ্ৰীয় ভারি শিল্প দপ্তরের মন্ত্ৰী অরবিন্দ গণপত সাওন্ত বুধবার রজ্যের বিজেপি সাংসদ প্ৰতিনিধি দলকে কাগজ কল দুটি খোলার ব্যাপারে ঐ আশ্বাস দেন। প্ৰতিনিধি দলটিতে শামিল ছিলেন কেন্দ্ৰীয় খাদ্য প্ৰস্তুতকরণ দপ্তরের প্ৰতিমন্ত্ৰী রামেশ্বর তেলি,তেজপুরের সাংসদ পল্লবলোচন দাস,শিলচরের সাংসদ রাজদীপ রায়,লখিমপুরের সাংসদ প্ৰদান বরুয়া,করিমগঞ্জের সাংসদ কৃপানাথ মালা,যোরহাটের সাংসদ তপন কুমার গগৈ,মঙ্গলদৈয়ের সাংসদ দিলীপ শইকিয়া,গুয়াহাটির সাংসদ কুইন ওজা,স্বশাসিত জেলার সাংসদ হরেন সিং বে এবং অসমের স্বাস্থ্য ও পরিবার কল্যাণ দপ্তরের প্ৰতিমন্ত্ৰী পী্যূষ হাজরিকা।

কেন্দ্ৰীয় ভারি শিল্প দপ্তরের মন্ত্ৰী সামন্ত প্ৰতিনিধি দলটিকে বলেছেন,জাগিরোড ও কাছাড় কাগজ কল পুনরুজ্জীবিত করার ব্যাপারে তিনি একশো শতাংশ চেষ্টা করবেন।

হিন্দুস্তান কাগজ কলের দুটো ইউনিট পুনরুজ্জীবিত করার দাবি জানাতেই অসমের প্ৰতিনিধিদলটি কেন্দ্ৰীয় ভারি শিল্প মন্ত্ৰীর সঙ্গে দেখা করেছিলেন।

নয়াদিল্লিতে বুধবার দিলীপ শইকিয়া দ্য সেন্টিনেলকে বলেন,অসমে কাগজ কলের দুটি ইউনিটে পূর্ণ সময়ের কর্মী রয়েছেন প্ৰায় ১,২০০ জন। একথা আমরা কেন্দ্ৰীয় সরকারকে জানিয়েছি। উল্লেখ্য,দিলীপ শইকিয়া রাজ্য থেকে নির্বাচিত একজন সাংসদ। তিনি বলেন,‘আমরা কাগজ কল দুটির যাবতীয় বিষয় মন্ত্ৰীর কাছে তুলে ধরেছি।

সাংসদ শইকিয়া বলেন,আমরা কেন্দ্ৰীয় মন্ত্ৰী সাওন্তকে বলেছি কল দুটি বন্ধ থাকায় এর কর্মীরাই যে দুর্ভোগের মুখে পড়েছেন তা নয়,কলের উপর নির্ভর করে জীবন জীবিকা চালানো ব্যাপক সংখ্যক মানুষ কর্মহীন হয়ে পড়ার কথাও কেন্দ্ৰীয় মন্ত্ৰীকে খুলে বলেছেন প্ৰতিনিধিরা। কেন্দ্ৰীয় মন্ত্ৰী সাওন্ত প্ৰতিনিধি দলকে আশ্বস্ত করে বলেছেন যে পিপিপি মডেলে(পাবলিক-প্ৰাইভেট পার্টনারশিপ)রাজ্যের কাছাড় ও নগাঁও কাগজ কল দুটি খোলা হবে। ভারি শিল্প দপ্তরের মন্ত্ৰী সাওন্ত সাংবাদিকদের বলেন,অসমের কাগজ কল দুটি পুনরুজ্জীবিত করতে কেন্দ্ৰ পুরোপুরি দায়বদ্ধ। তিনি কাগজ কল দুটি বিক্ৰির বিরোধিতা করেছেন। তিনি বলেন,কল দুটি প্ৰাইভেট সংস্থার হাতে দিলে কেন্দ্ৰের দায়বদ্ধতা নিয়ে নানা প্ৰশ্ন চাড়া দেবে। কেন্দ্ৰ অসমের দুটো প্ৰতিষ্ঠান ফের চালু করতে চেষ্টায় কোনও ত্ৰুটি রাখবে না। এদিন কাগজ কল দুটি খোলার দাবিতে প্ৰতিনিধি দলের তরফ থেকে একটি স্মারকপত্ৰ কেন্দ্ৰীয় মন্ত্ৰীর হাতে তুলে দেওয়া হয়।

অন্যান্য খবরের জন্য পড়ুনঃ রাজ্যের দুটি কাগজ কল কর্মীদের দুর্দশা চরমে উঠেছে,সরকার নির্বিকার

Next Story