Begin typing your search above and press return to search.

নাগরিকদের জীবনের মান উন্নত করতে দিশপুরকে প্ৰস্তাব ডিএএএ-র

নাগরিকদের জীবনের মান উন্নত করতে দিশপুরকে প্ৰস্তাব ডিএএএ-র

Sentinel Digital DeskBy : Sentinel Digital Desk

  |  1 March 2020 11:28 AM GMT

গুয়াহাটিঃ দিল্লি অ্যালুমনি অ্যাসোসিয়েশন অফ আসাম(ডিএএএ)অসমে নাগরিকদের জীবন ধারণের মান উন্নত করার জন্য অসম সরকারের কাছে বিভিন্ন প্ৰস্তাব ও সুপারিশ রেখেছে। জনগণের জীবনের মান উন্নত করতে ২০২০-২১ সালের রাজ্য বাজেটে প্ৰস্তাবগুলো অন্তর্ভুক্ত করার জন্য সুপারিশ করেছে তারা। ডিএএএ নাগরিকদের জীবনের মান উন্নত করতে যে সেক্টরগুলোতে গুরুত্ব দেওয়ার সুপারিশ করেছে সেগুলি হচ্ছে স্বাস্থ্য,শিক্ষা,কৃষি,সামাজিক কল্যাণ,সিটিজেন সার্ভিসেস,পরিবেশ,পরিকাঠামো ইত্যাদি। অসমকে প্ৰগতিশীল ও সঠিকভাবে উন্নত রাজ্যে পরিণত করাই তাদের এই সুপারিশের মোক্ষম উদ্দেশ্য। ডিএএএ-র সভাপতি অধ্যাপক চন্দন মহন্ত শনিবার দ্য সেন্টিনেলকে একথা বলেন।

ডিএএএ-র প্ৰতিনিধিরা শনিবার রাজ্যের মুখ্যসচিব কুমার সঞ্জয় কৃষ্ণের সঙ্গে সাক্ষাৎ করে বিভিন্ন বাজেট প্ৰস্তাব সম্পর্কে সুপারিশ করে তাঁর হাতে একটি স্মারকপত্ৰ তুলে দেন।

‘শিক্ষা ক্ষেত্ৰের বিকাশে রাজ্যে একটা শিক্ষা পরিষদ সৃষ্টির প্ৰস্তাব রেখেছি আমরা। শিক্ষামন্ত্ৰীকে চেয়ারম্যান হিসেবে নিয়ে এবং বিভিন্ন শিক্ষা সংস্থার প্ৰতিনিধি,এনজিও এবং বিশিষ্ট ব্যক্তিদের নিয়ে এই শিক্ষা পরিষদ গঠনের সুপারিশ করেছি আমরা। সদর্থক শিক্ষা,জ্ঞানের আলো ছড়িয়ে সুস্থ নাগরিক গড়ে তোলার ক্ষেত্ৰে এই পরিষদ সরকারকে গাইড করতে ও পরামর্শ দিতে পারবে। শুধু তাই নয়,প্ৰগতিশীল স্কুল ক্যারিকুলাম,শিক্ষাদানের কাঙ্খিত মান উন্নয়ন,শিক্ষাদানকে একটা আকর্ষণীয় পেশায় উন্নত করতেও পরিষদ সরকারের সামনে প্ৰয়োজনীয় সুপারিশ তুলে ধরবে। এধরনের কার্যকলাপের মাধ্যমে রাজ্যে শিক্ষা দানের প্ৰকৃত উদ্দেশ্য এবং ছাত্ৰ ও নাগরিকদের মধ্যে সুস্থ চেতনার জন্ম দেওয়া সম্ভব হবে-বলেন মহন্ত।

জনস্বার্থ সম্পর্কিত বিষয়,সরকারি স্কিম,গণ অভিযোগ গ্ৰহণ ও তার নিষ্পত্তি কল্পে ডিএএএ শহর ও নগরগুলোতে সিটিজেন অ্যাসিস্টেন্ট সেন্টার স্থাপনেরও প্ৰস্তাব রেখেছে। এই কেন্দ্ৰ জনকল্যাণে নাগরিকদের সুপারিশ সরকারের কাছে তুলে ধরতে পারবে। প্ৰতিটি পুলিশ থানার এক্তিয়ারে এধরনের একটি কেন্দ্ৰ স্থাপন করা উচিত হবে বলে তিনি মনে করেন।

রোগ প্ৰতিরোধে সক্ৰিয় ব্যবস্থা গ্ৰহণে এবং নাগরিকদের স্বাস্থ্যের উন্নতির জন্য পরিচ্ছন্নতা এবং ভাল অভ্যাসগুলো রপ্ত করা অত্যন্ত প্ৰয়োজনীয়। বিশুদ্ধ পাণীয় জল,স্বাস্থ্যকর খাবার এবং স্বাস্থ্যকর পরিবেশে বসবাস করার ওপরও গুরুত্ব আরোপ করছে ডিএএএ। এব্যাপারে স্বাস্থ্য বিভাগ,জনস্বাস্থ্য কারিগরি বিভাগ,শিক্ষা ও সমাজ কল্যাণ বিভাগের মধ্যে সমন্বয় বজায় রেখে কাজ করতে হবে যাতে অসমের মানুষের সুস্বাস্থ্যের ব্যবস্থা সুনিশ্চিত করা যায়।

শহর ও নগরগুলোতে এবং রাষ্ট্ৰীয় সড়কে ৫০ কিলোমিটার অন্তর পে অ্যান্ড উইজ পাবলিক কনভিনিয়েন্স সেন্টার স্থাপনেরও প্ৰস্তাব রেখেছে ডিএএএ। সরকার এব্যাপারে জমি বরাদ্দ করে এধরনের কেন্দ্ৰ স্থাপনে অনায়াসে উদ্যোগ নিতে পারে-বলেন তিনি।

অন্যান্য খবরের জন্য পড়ুনঃ ক্যা-র বিরুদ্ধে উত্তর পূর্বাঞ্চল এখনও একজোট রয়েছেঃ সমুজ্জ্বল ভট্টাচার্য

অধিক খবরের জন্য ভিডিও দেখুন: AASU and other organizations welcomed the introduction of the one way road at Garali and KB Road

Next Story
সংবাদ শিরোনাম