Begin typing your search above and press return to search.

দিল্লির সাংবাদিক প্ৰশান্ত কানোজিয়াকে অবিলম্বে মুক্তি দেওয়ার নির্দেশ এসসি-র

দিল্লির সাংবাদিক প্ৰশান্ত কানোজিয়াকে অবিলম্বে মুক্তি দেওয়ার নির্দেশ এসসি-র

Sentinel Digital DeskBy : Sentinel Digital Desk

  |  11 Jun 2019 1:36 PM GMT

নয়াদিল্লিঃ দিল্লির সাংবাদিক প্ৰশান্ত কানোজিয়াকে মঙ্গলবার সুপ্ৰিমকোর্ট অবিলম্বে মুক্তি দেওয়ার নির্দেশ দিয়েছে। উত্তর প্ৰদেশের মুখ্যমন্ত্ৰী যোগি আদিত্যনাথের বিরুদ্ধে সোশ্যাল মিডিয়ায় একজন মহিলার দেওয়া পোস্ট শেয়ার করায় কানোজিয়াকে গ্ৰেপ্তার করে পুলিশ জেলে পাঠায়।

তবে সাংবাদিকের পত্নী জেল থেকে তাঁর স্বামী মুক্তি পাওয়ার যোগ্য বলে দাবি জানিয়ে সুপ্ৰিম কোর্টে দ্বারস্থ হন। সুপ্ৰিমকোর্টও মামলাটি নিয়ে শুনানির শেষে কানোজিয়ার মুক্তির নির্দেশ দেয়।

পুলিশের মতে কানোজিয়ার ভুলটো ছিল সোশ্যাল মিডিয়ায় একটা পোস্টকে শেয়ার করা। জনৈক মহিলা উত্তরপ্ৰদেশের মুখ্যমন্ত্ৰী যোগী আদিত্যনাথের বিরুদ্ধে অভিযোগ এনে সোশ্যাল মিডিয়ায় ওই পোস্টটি করেছিলেন। সাংবাদিক কানোজিয়া শুধু ওই পোস্টটি শেয়ার করেছিলেন।

এই ঘটনার পর শনিবার সকালে দিল্লির বাড়ি থেকে পুলিশ প্ৰশান্ত কানোজিয়াকে গ্ৰেপ্তার করে এবং সন্ধ্যায় জেলে পাঠিয়ে দেয়। যে মহিলাটি সোশ্যাল মিডিয়ায় পোস্টটি করেছিলেন তাঁকেও গ্ৰেপ্তার করেছে পুলিশ।

সাংবাদিকের এই মামলা নিয়ে শুনানি শেষে কোর্ট বলেছে,পুলিশ মামলা নিয়ে এগোতে পারে। তবে গ্ৰেপ্তার কদাপি নয়।

সোশ্যাল মিডিয়ায় এই পোস্ট দেওয়া নিয়ে সাংবাদিককে গ্ৰেপ্তারের পক্ষে ওকালতি করে উত্তর প্ৰদেশ পুলিশ বলেছে,অতীতেও এই সাংবাদিক এধরনের উদ্দীপক টুইট করেছেন।

অ্যাডিশনাল সলিসিটর জেনারেল বিক্ৰমজিৎ ব্যানার্জি বলেন,অতীতে শুধু জাতপাতই নয়,ইশ্বর নিয়ে উদ্দীপক বিবৃতি টুইট করায় তাকে গ্ৰেপ্তারও করা হয়েছিল।

সুপ্ৰিমকোর্ট বেঞ্চের মতে,শুধু কিছু পোস্টের ওপর বিচার করে সাংবাদিককে গ্ৰেপ্তারের বিষয়টি একজন ব্যক্তির স্বাধীনতার বিরোধী। সেদিক থেকে শীর্ষ আদালতের রায় ন্যায়সঙ্গত হয়েছে বলা যায়।

মানুষ যখন বলার অধিকার এবং বক্তব্য পেশ করার স্বাধীনতা হারাচ্ছে সেই সময় শীর্ষ আদালতের এই রায় প্ৰশংসার যোগ্য এবং এতে সাধারণ মানুষের নৈতিক মনোবলকে চাঙ্গা করবে।

Next Story