Begin typing your search above and press return to search.

স্ত্ৰীর পুরুষ বন্ধুকে হত্যার জন্য ভাড়াটে খুনিকে বেরেটা পিস্তন দিয়েছিলেন দিল্লির এক ব্যক্তি

স্ত্ৰীর পুরুষ বন্ধুকে হত্যার জন্য ভাড়াটে খুনিকে বেরেটা পিস্তন দিয়েছিলেন দিল্লির এক ব্যক্তি

Sentinel Digital DeskBy : Sentinel Digital Desk

  |  27 July 2019 1:43 PM GMT

নয়াদিল্লিঃ বিবাহিত জীবনে স্বামী-স্ত্ৰীর মধ্যে সন্দেহের পরিণতি যে কতটা বিপদজনক ও বেদনাদায়ক হতে পারে দিল্লির একটি ঘটনা তা চোখে আঙুল দিয়ে বুঝিয়ে দেয়। পর পুরুষের সঙ্গে স্ত্ৰীর সম্পর্ক থাকার সন্দেহে দিল্লির এক ব্যক্তি ভয়ংকর অপরাধের পথে পা বাড়িয়েছিলেন। দিল্লির এই লোকটির সন্দেহ ছিল তার স্ত্ৰী একজন ব্যবসায়ীর সঙ্গে বাড়তি বৈবাহিক সম্পর্ক রেখে চলেছেন।

পুলিশের জানানো তথ্য অনু্যায়ী পড়শি একজন ব্যবসায়ীর সঙ্গে স্ত্ৰীর অবাধ মেলামেশার অভিযোগে প্ৰচণ্ড ক্ষিপ্ত হয়ে ওঠেন স্বামী। ক্ৰোধে উন্মত্ত স্বামী এক ভাড়াটে খুনিকে হায়ার করে তার হাতে একটা দামি বেরেটা পিস্তল তুলে দেন স্ত্ৰীর সঙ্গে সম্পর্কে জড়িয়ে পড়া অভিযুক্ত পুরুষ বন্ধুকে খতম করে দেওয়ার লক্ষ্যে। ঘটনার এখানে শেষ নয়। স্ত্ৰীর আচরণে সন্ধিহান স্বামী বহুমূল্যের পিস্তলটি ভাড়াটে খুনির হাতে পেমেণ্ট হিসেবে চিরদিনের জন্য দান করে দেন।

এদিকে,পুলিশ ভাড়াটে খুনি কুলবীর দাগরকে দক্ষিণ পশ্চিম দিল্লির নাজাফগড় থেকে আটক করেছে এবং সেইসঙ্গে উদ্ধার করেছে ওই বহুমূল্য পিস্তলটি। এই পিস্তলের মূল্য প্ৰায় ৬ লক্ষ টাকা। খবরে প্ৰকাশ,ভাড়াটে খুনি দাগর মহিলাটির পুরুষ সঙ্গীকে তাক করে গুলিও চালিয়েছিল গত ২৩ জুলাই। মহিলার পুরুষ বন্ধুটি দিল্লির হরিনগর এলাকার বাসিন্দা। কিন্তু সৌভাগ্যক্ৰমে মহিলার পুরুষ বন্ধুটি প্ৰাণে বেঁচে যান। ভাড়াটে খুনির চালানো গুলি লক্ষ্যভ্ৰষ্ট হয়,গুলি গিয়ে আঘাত করে একটি প্ৰাচীরে। ফলে পড়শি ওই ব্যবসায়ী অক্ষত অবস্থায় পালিয়ে যেতে সক্ষম হন।

এ বিষয়ে তদন্ত করে পুলিশ জানতে পারে যে এই ঘটনার সঙ্গে একজন ভাড়াটে খুনি জড়িত। পুলিশের ডেপুটি কমিশনার(অপরাধ)জয় তির্কে বলেন,অপরাধ শাখা গুলি চালনার ঘটনায় দাগরের জড়িত থাকার ক্লু পেয়ে যায় এবং এরপরই তারা ভাড়াটে খুনিকে আটক করার জন্য ওত পেতে রাখে। ডিসিপি বলেন,দাগরকে বেরেটা পিস্তল ও দুটি গুলি সমেত পুলিশ গ্ৰেপ্তার করতে সফল হয়। পরে জেরার মুখে সনু পণ্ডিত নামের এক ব্যক্তি তাকে হায়ার করার কথা কবুল করে দাগর। এই সনু পণ্ডিতই তাকে দামি পিস্তলটি দিয়েছিলেন তার স্ত্ৰীর সঙ্গে সম্পর্ক রাখা পুরুষ বন্ধুকে কোতল করার জন্য।

পুলিশ জানিয়েছে ‘সনু পণ্ডিতই বহুমূল্যে বেরেটা পিস্তলটি ভাত্তাটে খুনিকে দিয়েছিল তার স্ত্ৰীর পুরুষ বন্ধুকে খতম করে দিতে। খুনের জন্য পেমেণ্ট হিসেবে দেওয়া হয়েছিল বহু মূল্যের বেরেটা পিস্তলটি’।

অন্যান্য খবরের জন্য পড়ুনঃ বন্যপ্ৰাণী হত্যায় জড়িত ৫ অপরাধীকে ৭ বছরের সশ্ৰম কারাদণ্ডের রায় বিজনি আদালতের

Next Story