Begin typing your search above and press return to search.

অজিত পাওয়ারের পদত্যাগে মহারাষ্ট্ৰে ফড়নবিশের পতন

অজিত পাওয়ারের পদত্যাগে মহারাষ্ট্ৰে ফড়নবিশের পতন

Sentinel Digital DeskBy : Sentinel Digital Desk

  |  27 Nov 2019 9:12 AM GMT

মুম্বইঃ মহারাষ্ট্ৰে অবশেষে ভারতীয় জনতা পার্টিকে(বিজেপি)একটা বড় ধরনের হার স্বীকার করতে হলো। তড়িঘড়ি মুখ্যমন্ত্ৰী হয়েও দেবেন্দ্ৰ ফড়নবিশ কুর্শি ধরে রাখতে পারলেন না। অজিত পাওয়ার উপ মুখ্যমন্ত্ৰী পদে ইস্তফা দেওয়ার কয়েক ঘন্টা পর মঙ্গলবার দেবেন্দ্ৰ ফড়নবিশও মুখ্যমন্ত্ৰীর পদ থেকে সরে দাঁড়ালেন। ২৩ নভেম্বর সাত সকালে ফড়নবিশ ও অজিত পাওয়ার যথাক্ৰমে রাজ্যের মুখ্যমন্ত্ৰী ও উপমুখ্যমন্ত্ৰী হিসেবে শপথ নিয়েছিলেন। কিন্তু শপথগ্ৰহণের ৮০ ঘন্টা কাটতে না কাটতেই ফড়নবিশের রাজপাটে যবনিকা নেমে এলো। সুপ্ৰিমকোর্ট বুধবার বিকেলের মধ্যে ফড়নবিশকে বিধানসভায় সংখ্যাগরিষ্ঠতা প্ৰমাণের নির্দেশ দেওয়ার পরই অজিত পাওয়ার ইস্তফা দাখিল করেন। বাধ্য হয়ে ফড়নবিশও একই পথ বেছে নেন। সুপ্ৰিম কোর্ট ওই নির্দেশে স্পষ্ট জানিয়ে দিয়েছিল ২৭ নভেম্বর বিধানসভায় ওপেন ভোটিং ও লাইভ টেলিকাস্টের মাধ্যমে ফড়নবিশকে সংখ্যাগরিষ্ঠতা প্ৰমাণ করতে হবে। তাই মহারাষ্ট্ৰে বিজেপি-র চমকের রাজনীতি চুপসে গেল তিন দিনের মধ্যেই। ফড়নবিশের পতনের সঙ্গে সঙ্গে মহারাষ্ট্ৰে বিজেপি-র সরকার গড়ার শেষ চেষ্টাও বুমেরাং হয়ে গেলো।

এদিকে ফড়নবিশ মঙ্গলবার বিকেলে এখানে এক জনাকীর্ণ সাংবাদিক সম্মেলনে বলেছেন,‘অজিত পাওয়ার ব্যক্তিগত কিছু কারণে মঙ্গলবার সকালে আমার হাতে তাঁর পদত্যাগপত্ৰ দিয়েছেন। তাই সরকারে বহাল থাকার জন্য আমাদের হাতে প্ৰয়োজনীয় সংখ্যাগরিষ্ঠতা নেই। তদনু্যায়ী আমিও ইস্তফা দেওয়ার সিদ্ধান্ত নেই। আমি রাজ্যপালের সঙ্গে দেখা করে আজই পদত্যাগ পত্ৰ সমঝে দিচ্ছি’।

ফড়নবিশ সোমবার সকালে তাঁর নতুন দায়িত্ব গ্ৰহণ করেছিলেন। তবে অজিত পাওয়ার দায়িত্ব গ্ৰহণ না করে মঙ্গলবার সকালে তাঁর পদত্যাগপত্ৰ দাখিল করেন।

তিনি বলেন,বিজেপি এখন বিধানসভায় বিরোধী আসনে বসবে এবং গঠনমূলক কাজ করে যাবে। কৃষক,গরিব এবং সমাজের অন্যান্য শ্ৰেণির ইস্যুগুলি বিধানসভায় উত্থাপন করবে-বলেন তিনি।

ফড়নবিশ এদিন প্ৰধানমন্ত্ৰী নরেন্দ্ৰ মোদি,স্বরাষ্ট্ৰমন্ত্ৰী অমিত শাহ,তাঁর সহকর্মী সহ মহারাষ্ট্ৰের মানুষ ও বিজেপিকে ধন্যবাদ জানিয়েছেন গত পাঁচ বছর তাঁকে রাজ্যশাসনের সু্যোগ দেওয়ার জন্য।

মহারাষ্ট্ৰে রাজনৈতিক পালা বদলের ঘটনায় শিবসেনা,এনসিপি ও কংগ্ৰেস জোট এদিন মিষ্টি বিতরণ করে জয়ের আনন্দে মেতে ওঠে। এই তিন দলীয় জোটের নাম দেওয়া হয়েছে ‘মহা বিকাশ অঘাড়ি’।

অন্যান্য খবরের জন্য পড়ুনঃ জেহাদিদের যোগাযোগের তথ্য ফাঁসে উঠেপড়ে লেগেছে পুলিশ

অধিক খবরের জন্য ভিডিও দেখুন: Constitution Day observed in Guwahati

Next Story