সংবাদ শিরোনাম

রাষ্ট্ৰীয় নাগরিক পঞ্জি প্ৰকাশের পরবর্তী পরিস্থিতি মোকাবিলায় প্ৰস্তুত সরকার

রাষ্ট্ৰীয় নাগরিক পঞ্জি

গুয়াহাটিঃ অসমে চূড়ান্ত রাষ্ট্ৰীয় নাগরিক পঞ্জি(এনআরসি)নির্ধারিত সময়ে প্ৰকাশের বিষয়টি সংশয়ের আবর্তে ঢুকে পড়লেও চূড়ান্ত ও নবায়িত নাগরিক পঞ্জি প্ৰকাশ নিয়ে কর্তৃপক্ষ কাজে কোনওরকম ঢিলেমি দিচ্ছে না। চূড়ান্ত এনআরসির তালিকা প্ৰকাশের পরবর্তী সময়ে রাজ্যে আইনশৃঙ্খলা পরিস্থিতি যাতে কোনওভাবে ব্যাহত না হয় তার জন্য সরকার পুরোদস্তর প্ৰস্তুত রয়েছে। এনআরসি-র চূড়ান্ত তালিকা প্ৰকাশের পরবর্তী পরিস্থিতি সামাল দিতে পুলিশ ও জেলা প্ৰশাসন তৈরি হয়ে আছে। গত ২৬ জুন প্ৰকাশিত এনআরসি-র অতিরিক্ত কর্তন তালিকায় যে ১,০২,৪৬২ জন ব্যক্তির নাম বাদ পড়েছিল তাদের পুনরাবেদন ও শুনানির গুরুত্বপূর্ণ কাজ একই সঙ্গে চালানো হয় এবং শুক্ৰবার এই কাজ শেষ হয়েছে। এই ১.২ লক্ষের বেশি লোক চূড়ান্ত এনআরসিতে অন্তর্ভুক্তির অযোগ্য বিবেচিত হওয়ায় এদের নাম তুলে ধরে গত ২৬ জুন অতিরিক্ত কর্তন তালিকাটি প্ৰকাশ করা হয়। খসড়া ছুট এই ১.০২ লক্ষ লোকের পুনরাবেদন ও শুনানি পর্ব গত ৫ জুলাই থেকে একই সঙ্গে শুরু করা হয়েছিল। তবে গত বছর প্ৰকাশিত এনআরসির সম্পূর্ণ খসড়ায় এই সব লোকেদের নাম অন্তর্ভুক্ত হয়েছিল। দাবি ও আপত্তির যাবতীয় শুনানি পর্ব শুক্ৰবার শেষ হয়েছে। শুনানিতে হাজির হওয়ার নোটিশ না পাওয়া কিছু লোক এনআরসিতে নাম অন্তর্ভুক্তির জন্য অনলাইনে যে আবেদন করেছেন তাদের শুনানি আগামি সপ্তাহের মধ্যে শেষ করা হবে। কদিন আগে নাগরিক পঞ্জি কর্তৃপক্ষ বিজ্ঞাপন প্ৰকাশ করে পুনরাবেদনের শুনানিতে উপস্থিত থাকার নোটিশ যাদের বাড়িতে পৌঁছয়নি তাদের অনলাইনে আবেদনের সু্যোগ দিয়েছিলেন। সেই অনু্যায়ী কিছু লোক অনলাইনে ফের আবেদন করেন। এদের শুনানি আগামি সপ্তাহের মধ্যে সেরে ফেলা হবে বলে নাগরিক পঞ্জি কর্তৃপক্ষ জানিয়েছেন।

এই শুনানি পর্ব পুরোপুরি শেষ হওয়ার পর এনআরসি কর্তৃপক্ষ জনগণের সঙ্গে যোগাযোগ বন্ধ করে দেবে এবং নিজেদের এনআরসি-র চূড়ান্ত তালিকা প্ৰকাশের কাজে ব্যস্ত রাখবে। সুপ্ৰিমকোর্টের বেঁধে দেওয়া চূড়ান্ত সময় অনু্যায়ী এনআরসি-র চূড়ান্ত তালিকা আগামি ৩১ জুলাই প্ৰকাশ হওয়ার কথা।

এদিকে কেন্দ্ৰ ও রাজ্য সরকার চূড়ান্ত তালিকা প্ৰকাশের পরবর্তী সময়ে যে কোনও ধরনের আইন শৃঙ্খলাজনিত পরিস্থিতি বা অপ্ৰীতিকর ঘটনা সামাল দিতে ছক প্ৰস্তুত করছে। স্বরাষ্ট্ৰমন্ত্ৰক ইতিমধ্যেই দিশপুরকে ৩১ জুলাইয়ের পরবর্তী আইনশৃঙ্খলা পরিস্থিতি রক্ষায় ব্যবস্থা নেওয়ার নির্দেশ ইস্যু করেছে।

এরই প্ৰেক্ষিতে দিশপুর গোটা রাজ্যকে ছটি জোনে বিভক্ত করেছে,জেলা ওয়াড়ি ব্যবস্থা গ্ৰহণের জন্য। রাজ্যের গৃহ,রাজনৈতিক বিভাগ এবং অসম পুলিশের উপস্থিতিতে এক বৈঠকে ছটি জোনের স্ট্ৰ্যাটিজি প্ৰস্তুত করা হবে। এধরনের প্ৰথম বৈঠকটি শুক্ৰবার তেজপুরে অনুষ্ঠিত হয়। এই বৈঠকে শোণিতপুর,বিশ্বনাথ,ধেমাজি,লখিমপুর এবং ওদালগুড়িতে কী স্ট্ৰ্যাটিজি গ্ৰহণ করা হবে তা নিয়ে আলোচনা করা হয়। অতিরিক্ত মুখ্যসচিব(গৃহ ও রাজনৈতিক বিভাগ)কুমার সঞ্জয় কৃষ্ণ,অতিরিক্ত ডিজি(আইনশৃঙ্খলা)মুকেশ আগরওয়াল এবং আইজিপি(এসবি)হিরেন চন্দ্ৰ নাথ বৈঠকে উপস্থিত ছিলেন। নগাঁও জোনের বৈঠক হবে আজ অর্থাৎ ১৩ জুলাই। যোরহাট জোন ১৬,শিলচর ১৮,বঙাইগাঁও ২১ ও গুয়াহাটি জোনের বৈঠক হবে ২৩ জুলাই।

 

 

অন্যান্য খবরের জন্য পড়ুনঃ এনআরসির অতিরিক্ত খসড়া তালিকা থেকে লক্ষাধিক লোকের নাম বাদ