Top
Begin typing your search above and press return to search.

অপরাধের রম্যভূমি হয়ে পড়ছে গুয়াহাটি রেলস্টেশন,নিরাপত্তাহীন বোধ করছেন যাত্ৰীরা

অপরাধের রম্যভূমি হয়ে পড়ছে গুয়াহাটি রেলস্টেশন,নিরাপত্তাহীন বোধ করছেন যাত্ৰীরা

Sentinel Digital DeskBy : Sentinel Digital Desk

  |  25 Nov 2019 10:10 AM GMT

গুয়াহাটিঃ গুয়াহাটি রেলওয়ে স্টেশন কি অপরাধীদের আখড়া হয়ে উঠছে? গত চার বছরে এই রেল স্টেশনে বিভিন্ন ধরনের অবৈধ ও নিষিদ্ধ সামগ্ৰী বাজেয়াপ্ত করার পরিসংখ্যান হিসেব করলে নিঃসন্দেহে উল্লিখিত জবাবই পাওয়া যাবে।

২০১৬ সালে রেলওয়ে সুরক্ষা বাহিনী(আরপিএফ)৫৯ কার্টুন অবৈধ সিগারেট বাজেয়াপ্ত করেছিল,যার মূল্য ৯.৫৬ কোটি টাকা। ওই বছরই এই রেল স্টেশন থেকে ৫.৫০ লক্ষ টাকা মূল্যের ১১২ কেজি গাঁজা এবং ২৩ কার্টুন ফেন্সিডিল কফ সিরাপ(মূল্য ৭.৭৪ লাখ)বাজেয়াপ্ত করা হয়েছিল।

এছাড়াও আরপিএফ ১৮১ কেজি গাঁজা,যার মূল্য ১.১০ কোটি,৩০ কার্টুন এবং ৮৫৮৫ বোতল নিষিদ্ধ কফ সিরাপ(মূল্য ২.১১ কোটি)এবং ২২৯ বোতল অবৈধ বিদেশি মদ বাজেয়াপ্ত করেছিল,যার মূল্য ২৮,৮৪৬ টাকা।

২০১৮ সালে,৪০৪.৫ কেজি গাঁজা,যার মূল্য ২,৫,৩২,৫০০ টাকা এবং ১৮ হাজার টাকা মূল্যের নয় বোতল ব্ৰাউন সুগার বাজেয়াপ্ত করা হয়েছিল এই রেল স্টেশন থেকে।

এবছর আরপিএফ এই রেল স্টেশন থেকে ১১১ কেজি গাঁজা(মূল্য ৯.৪২ লক্ষ),২২৬ বোতল অবৈধ বিদেশি সুরা(মূল্য ১৬,৫৮০ টাকা),মায়ানমার থেকে আসা ৭ কার্টুন সিগারেট(মূল্য ২১ লক্ষ),৫০০ গ্ৰাম মরফিয়া এবং ৩০৫ গ্ৰাম অন্যান্য নেশাজাতীয় সামগ্ৰী যার মূল্য ক্ৰমে ৩৫ ও ২২ লক্ষ টাকা)এপর্যন্ত বাজেয়াপ্ত করে।

রেলওয়ের একটি সূত্ৰ বলেছে,পুরো স্টেশন চত্ত্বরে ২৫টি সিসিটিভি ক্যামেরা রয়েছে। একমাত্ৰ স্কেনারটি রয়েছে স্টেশনের মূল প্ৰবেশদ্বারে,যেটি গত বছর খানেক ধরে অকেজো পড়ে আছে।

‘আমরা স্টেশনে পৌঁছনো প্ৰতিটি ট্ৰেনে তল্লাশির জন্য শুধু আরপিএফ মোতায়েন করতে পারি। চারজন আরপিএফ কর্মী দীর্ঘ একটা ট্ৰেনে তল্লাশি চালানোর জন্য মোটেই পর্যাপ্ত নয় এবং সেজন্যই অপরাধীরা সু্যোগের সদব্যবহার করতে পারছে। নিরাপত্তা ব্যবস্থায় ত্ৰুটি এবং আরপিএফ-এর সংখ্যা কম থাকার জন্যই গুয়াহাটি রেল স্টেশন নেশা জাতীয় দ্ৰব্য,গাঁজা,অবৈধ মদ,কফ সিরাপ এবং নিষিদ্ধ সিগারেট ইত্যাদি পাচারের ট্ৰেনজিট পয়েন্ট হয়ে দাঁড়িয়েছে। সূত্ৰটি আরও বলেছে,সীমিত সংখ্যক আরপিএফ জওয়ানদের পক্ষে রেল স্টেশনে আসা প্ৰতিজন ব্যক্তিকে চেক করা সম্ভব নয়। গুয়াহাটি রেল স্টেশন যে অপরাধীদের অবাধ বিচরণের ক্ষেত্ৰ হয়ে উঠছে সূত্ৰটি তা স্বীকার করেছে। এরফলে ভ্ৰমণকারীরাও নিরাপত্তাহীনতা অনুভব করেছেন।

অন্যান্য খবরের জন্য পড়ুনঃ অসমে ফের এনআরসি নবায়নের বিরোধী নেতা দেবব্ৰত শইকিয়া

অধিক খবরের জন্য ভিডিও দেখুন: Eviction Drive at Railway Gandhi colony in Lumding by Railway Department

Next Story