সংবাদ শিরোনাম

কাশ্মীর ইস্যুতে পাকিস্তানকে বাস্তব সত্য মেনে নেওয়ার বার্তা দিল ভারত

কাশ্মীর ইস্যু

নয়াদিল্লিঃ জম্মু ও কাশ্মীর নিয়ে বাস্তবটা উপলব্ধি করা উচিত পাকিস্তানের। কারণ জম্মু ও কাশ্মীর ভারতের অবিচ্ছেদ্য অংশ। তাই এই বাস্তব সত্যটা পাকিস্তানের মেনে নিয়ে ভারতের অভ্যন্তরীণ বিষয়ে নাক গলানো তাদের বন্ধ করা উচিত। শুক্ৰবার কেন্দ্ৰীয় বিদেশ মন্ত্ৰক পাকিস্তান এই বার্তা দিয়েছে। কেন্দ্ৰীয় বিদেশ মন্ত্ৰকের মুখপাত্ৰ রবীশ কুমার শুক্ৰবার বলেছেন,জম্মু ও কাশ্মীর ভারতের অভ্যন্তরীণ বিষয়। তাই বাস্তব সত্যটা মেনে নিয়ে কাশ্মীর বিষয়ে তাদের মাথা ঘামানো বন্ধ করা উচিত। কাশ্মীর থেকে ৩৭০ ধারা প্ৰত্যাহার এবং রাজ্যকে দ্বিখণ্ডিত করে জম্মু ও কাশ্মীর এবং লদাখ দুটো কেন্দ্ৰশাসিত অঞ্চল ঘোষণার পর থেকেই পাকিস্তান ভারতের অভ্যন্তরীণ বিষয়ে নাক গলাতে শুরু করেছে। অন্য দেশের আভ্যন্তরীণ বিষয়ে হস্তক্ষেপের চেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছে। তাই বাস্তব পরিস্থিতি মেনে ইসলামাবাদের এবিষয়ে নাক গলানো বন্ধ করার এটাই সময়। তিনি বলেন,৩৭০ ধারা রদের পর কাশ্মীরে ব্যাপক উন্নয়নের পরিকল্পনা রয়েছে কেন্দ্ৰের। বিভিন্ন ক্ষেত্ৰে ভারতের সঙ্গে সম্পর্ক ছিন্ন করতে উঠেপড়ে লেগেছে পাকিস্তান। দ্বিপাক্ষিক সম্পর্ক ছিন্ন করতে ইসলামাবাদ একতরফা সিদ্ধান্ত নিয়ে চলেছে। সমঝোতা এক্সপ্ৰেস ইতিমধ্যেই বন্ধ করে দিয়েছে পাকিস্তান। এখন তারা বলেছে থর এক্সপ্ৰেসও চলতে দেবে না। রাজস্থানের যোধপুর থেকে করাচি পর্যন্ত চলাচল করে থর এক্সপ্ৰেস। কাশ্মীরে ৩৭০ ধারা বাতিলের জেরে পাকিস্তান একের পর এক এই সব সিদ্ধান্ত নিলেও ভারত এগুলো পুনর্বিবেচনা করতে ইসলামাবাদের কাছে আর্জি জানিয়েছে।

তিনি জোরের সঙ্গে বলেন,জম্মু ও কাশ্মীর সম্পর্কিত সমস্ত ঘটনা ভারতের অভ্যন্তরীণ বিষয়। কাশ্মীরে সন্ত্ৰাসী কার্যকলাপে উস্কানি এবং কাশ্মীরিদের ভুল পথে চালিত করার সু্যোগ পাকিস্তানকে আর দেওয়া হবে না-বলেন রবীশ কুমার। ‘আমরা চাই পাকিস্তান পরিস্থিতির গুরুত্ব বোঝার চেষ্টা করুক’।

তিনি বলেন,জম্মু ও কাশ্মীরে অস্থির পরিস্থিতি চলার মতো একটা চিত্ৰ পাকিস্তান বিশ্বের সামনে তুলে ধরার চেষ্টা করছে। জম্মু ও কাশ্মীর থেকে ৩৭০ ধারা রদ করা ভারতের সার্বভৌমত্বের বিষয়। এনিয়ে পাকিস্তানের লাফালাফি কখনোই সফল হবে না। ‘ভারতের হাইকমিশনারকে বহিষ্কার করা ছাড়াও দ্বিপাক্ষিক বাণিজ্য ও অন্যান্য ব্যবস্থা বন্ধ করার কথাও একতরফাভাবে ঘোষণা করেছে পাকিস্তান। আমরা আশা করছি ইসলামাবাদ এই বিষয়গুলি পুনর্বিবেচনা করবে’।

কেন্দ্ৰীয় মুখপাত্ৰ আরও বলেন, বিদেশ মন্ত্ৰী এস জয়শংকর কাশ্মীরে ভারত সরকারের পদক্ষেপ সম্পর্কে বেশকটি বিদেশি সরকার ও বহু জাতিক সংগঠনকে জানিয়েছেন।

‘কাশ্মীর ইস্যু আন্তর্জাতিক অঙ্গনে তোলার পাক পরিকল্পনা সম্পর্কে জানতে চাওয়া হলে রবীশ কুমার বলেন,পাকিস্তান ইস্যুটি আন্তর্জাতিক মঞ্চে তুললে এব্যাপারে আমাদের কী করতে হবে সেই সিদ্ধান্ত আমরা নেবো’। রাষ্ট্ৰপুঞ্জের কাছে ভারতের অবস্থান পরিষ্কারই রয়েছে। আমরা ৩৭০ ধারা রদের যে পদক্ষেপ নিয়েছি,সেটা সম্পূর্ণভাবে আমাদের অভ্যন্তরীণ বিষয়’।

 

অন্যান্য খবরের জন্য পড়ুনঃ ৩৭০ ধারা রদঃ জম্মু ও কাশ্মীরকে দ্বিখণ্ডিত করতে কিভাবে পরিকল্পনা করেছিল মোদি সরকার

অধিক খবরের জন্য ভিডিও দেখুন: Two illegal saw mills seized in Kampur