Begin typing your search above and press return to search.

দুই সন্তান নীতি নিয়ে আজমলের মন্তব্যের সমালোচনা শিক্ষিত মুসলিমদের

দুই সন্তান নীতি নিয়ে আজমলের মন্তব্যের সমালোচনা শিক্ষিত মুসলিমদের

Sentinel Digital DeskBy : Sentinel Digital Desk

  |  29 Oct 2019 11:33 AM GMT

গুয়াহাটিঃ এআইইউডিএফ সুপ্ৰিমো তথা সাংসদ বদরুদ্দিন আজমল রাজ্য সরকারের দুই সন্তান নীতি সম্পর্কে দায়িত্বজ্ঞানহীন মন্তব্য করার অভিযোগের সমালোচনা করেছেন শিক্ষিত মুসলিম ব্যক্তি এবং বিভিন্ন সংগঠন।

সম্প্ৰতি রাজ্য মন্ত্ৰিসভা একটি সিদ্ধান্ত নিয়েছে। যেখানে বলা হয়েছে দুই সন্তানের বেশি থাকা কোনও ব্যক্তি সরকারি চাকরির জন্য আবেদন জানানোর উপযুক্ত বিবেচিত হবেন না। এই ব্যবস্থা ২০২১-এর ১ জানুয়ারি থেকে কার্যকর করার সিদ্ধান্ত নিয়েছে রাজ্য সরকার। রাজ্যে জন্মের হার অস্বাভাবিক এবং দ্ৰুত হারে বৃদ্ধি নিয়ন্ত্ৰণ করার লক্ষ্যেই সরকারের জনসংখ্যা নীতির অংশ হিসেবেই এই সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে।

সরকারের ওই সিদ্ধান্তে প্ৰতিক্ৰিয়া ব্যক্ত করে আজমল বলেছেন,‘মুসলিমরা শিশুর জন্মে কোনও বিধিনিষেধ আরোপের পক্ষপাতী নয় এবং এব্যাপারে কারো কথা শুনবে না। মুসলিমদের চাকরি পাওয়া রুখতেই সরকার আইন আনছে। সাচার কমিটির রিপৰ্টে সুপারিশ করা হয়েছিল দুই শতাংশেরও কম মুসলিম সরকারি চাকরি পাচ্ছেন’।

প্ৰখ্যাত চিকিৎসক ডা.ইলিয়াস আলি বলেন,আজমলের ওই বিবৃতি দুর্ভাগ্যজনক এবং দায়িত্বজ্ঞানহীন। ড. আলি বলেন,অতিরিক্ত শিশুর জন্ম দেওয়া কিছু মুসলিম পরিবারকে সর্বনাশের মুখে ঠেলে দেওয়ার বিষয়টি প্ৰমাণিত হয়েছে। তাই ছোট পরিবারের ধারণা সম্পর্কে সম্প্ৰদায়ের মধ্যে সচেতনতা বোধ সৃষ্টির প্ৰয়োজন রয়েছে।

আজমলের এই বিবৃতি পরস্পরবিরোধী। একজন সাংসদবিদ হয়ে এধরনের একটা গুরুত্বপূর্ণ ইস্যু নিয়ে এজাতীয় মন্তব্য করার আগে তাঁর ভাবা উচিত ছিল-বলেন ড. আলি। উল্লেখ্য,ডা. আলি এবছর পদ্মশ্ৰী সম্মান পেয়েছেন।

কলেজ শিক্ষক তাসনিম আহমেদ বলেন,আজমলের ওই বিবৃতি তাঁর জ্ঞানের অভাব ও মধ্যযুগীয় মানসিকতারই পরিচায়ক। ‘মুসলিমরা ব্যাপক হারে সরকারি চাকরি না পাওয়ার অন্য কারণ রয়েছে। অধিক শিশুর জন্ম দেওয়ার সঙ্গে সরকারি চাকরির কোনও সম্পর্ক নেই-বলেন আহমেদ।

রাজ্যের বিজেপি নেতা সৈয়দ মোমিনুল আওয়াল দুই সন্তানের নীতি সম্পর্কে আজমলের মন্তব্যকে বিতর্কিত আখ্যা দিয়ে অভিযোগ করেন নিজের ন্যস্ত রাজনৈতিক স্বার্থ চরিতার্থ করতেই আজমল এমন বিবৃতি দিয়েছেন। তিনি বলেন,পবিত্ৰ কোরাণেও অধিক শিশুর জন্ম দেওয়া নিয়ে কোনও উল্লেখ নেই।

‘আজমল পূর্ব পাকিস্তান(বর্তমান বাংলাদেশ)থেকে আসা মুসলিমদের ভোট ব্যাংক হিসেবে ব্যবহারের জন্য এমন রাজনীতি করছেন। ভোট ব্যাংক বাড়াতেই তিনি মুসলিমদের অধিক সন্তান জন্ম দেওয়ার জন্য উস্কাচ্ছেন’-বলেন আওয়াল।

অন্যান্য খবরের জন্য পড়ুনঃ টুইন টাওয়ার প্ৰকল্প বাস্তবায়নের কোনও নামগন্ধ নেই এখনও

অধিক খবরের জন্য ভিডিও দেখুন: River Dhansiri is flowing above the danger mark

Next Story