Begin typing your search above and press return to search.

রাজ্যে হিংসাশ্ৰয়ী ঘটনার তদন্ত করবে এনআইএ এবং এসআইটিঃ হিমন্ত

রাজ্যে হিংসাশ্ৰয়ী ঘটনার তদন্ত করবে এনআইএ এবং এসআইটিঃ হিমন্ত

Sentinel Digital DeskBy : Sentinel Digital Desk

  |  18 Dec 2019 8:45 AM GMT

গুয়াহাটিঃ সংশোধিত নাগরিকত্ব আইনের(সিএএ)বিরুদ্ধে আন্দোলন চলাকালে গত বুধবার দিশপুরে জনতা ভবনে আগুন দেওয়ার ভয়ঙ্কর ষড়যন্ত্ৰের বেশকিছু ভিডিও ও টেলিফোনিক সাক্ষ্য প্ৰমাণ সরকারের হাতে এসেছে। আন্দোলনের সু্যোগ নিয়ে ভাঙচুর,অগ্নিসংযোগ,হিংসাশ্ৰয়ী ঘটনায় মেতে উঠেছিল একটি বিশেষ চক্ৰ। ‘সমস্ত হিংসাত্মক ঘটনাটা ছিল পূর্ব পরিকল্পিত। হিংসার তাণ্ডবে মেতে উঠা ব্যক্তিদের আড়ালে থেকে টেলিফোনের মাধ্যমে পরিচালনা করেছেন রাজ্যের একজন অগ্ৰণী বুদ্ধিজীবী ও শিক্ষাবিদ। এই শিক্ষাবিদ কেন্দ্ৰীয় সরকারের একটি সংস্থায় কর্মরত রয়েছেন। তবে তদন্তের স্বার্থে তাঁর নাম এই মূহুর্তে প্ৰকাশ করা যাবে না’। রাজ্যের অর্থমন্ত্ৰী হিমন্তবিশ্ব শর্মা মঙ্গলবার প্ৰচার মাধ্যমের কাছে একথা ব্যক্ত করেন। তিনি আরও বলেছেন,ওই সমস্ত হিংসাত্মক ঘটনায় কংগ্ৰেসের একাংশ নেতা,কর্মী জড়িত থাকার তথ্যও সরকারের হাতে এসেছে। ঘটনার পিছনে পিএফআই-র(পপুলার ফ্ৰন্ট অফ ইন্ডিয়া)জড়িত থাকারও সাক্ষ্যপ্ৰমাণ পাওয়া গেছে। শর্মা আরও বলেন,‘যারা হিংসার খেলায় মেতেছিল তারা লতাশিল বা চান্দমারির মাঠ থেকে আসেনি। এদের সরাসরি জনতাভবনের সামনে জড্ৰো হওয়ার নির্দেশ দেওয়া হয়েছিল’। সেদিনের ভয়াবহতার কথা বিবেচনা করে সরকার পুরো ঘটনার তদন্তের দায়িত্ব এনআইএ-এর(ন্যাশনাল ইনভেস্টিগেশন এজেন্সি)হাতে তুলে দিয়েছে।

সাংবাদিকদের কাছে কথাগুলো ব্যক্ত করে শর্মা বলেন,জনতা ভবন এবং আশপাশ এলাকায় যে ভাঙচুর ও নারকীয় তাণ্ডব চালানো হয়েছে তার তদন্তে সরকার একটি বিশেষ তদন্তকারী সংস্থা(এসআইটি)গঠন করেছে। সিআইডি-র ডিআইজি মৃদুলানন্দ শর্মার নেতৃত্বে গঠন করা হয়েছে এই বিশেষ তদন্তকারী সংস্থা(এসআইটি)। এসআইটির অন্যান্য সদস্যরা হলেন পুলিশ সুপার লীনা দোলে,জগদীশ সিনহা,হিতেশ শর্মা ও বুলারাম টেরাং। গুয়াহাটিতে অগ্নিসংযোগ,ভাঙচুর ও অন্যান্য ঘটনার তদন্তে এসআইটিকে সাহায্য করার জন্য সিবিআই অথবা এনআইএ-র একজন বরিষ্ঠ কর্মকর্তাকে পাঠানোর জন্য কেন্দ্ৰের কাছে আর্জি জানিয়েছে রাজ্য সরকার-বলেন শর্মা।

তিনি আরও বলেন,গুয়াহাটিতে অগ্নিসংযোগ ও অন্যান্য হিংসাত্মক ঘটনায় নিম্ন অসমের নলবাড়ি,বরপেটা ও ধুবড়ি থেকে কিছু লোক আনা হয়েছিল। জনতা ভবনের সামনে অগ্নিসংযোগের ঘটনার উল্লেখ করে মন্ত্ৰী বলেন,এই অগ্নিসংযোগের ঘটনায় অসম যুব কংগ্ৰেসের সভাপতি কামরুল ইসলাম জড়িত থাকার ভিডিও ফুটেজ আমাদের হাতে এসেছে। কংগ্ৰেসেরও একাংশ লোক রাজ্যের বিভিন্ন স্থানে হিংসাত্মক ঘটনায় জড়িত থাকার তথ্য পাওয়া গেছে। সিএএ বিরোধী আন্দোলনের নামে রাজ্যে অগ্নিসংযোগ এবং ধ্বংসলীলা চালানোর ঘটনায় জড়িত একাংশ কংগ্ৰেস ও পিআইএফ সদস্যের বিরুদ্ধে সিবিআই তদন্তের ব্যবস্থা করতে স্বরাষ্ট্ৰমন্ত্ৰী অমিত শাহকে তিনি অনুরোধ জানাবেন বলে উল্লেখ করেন শর্মা। মন্ত্ৰী জানান,ভিডিও ফুটেজ থেকে এটা পরিষ্কার হয়েছে যে অগ্নিসংযোগ ও হিংসাত্মক ঘটনায় আসু বা অন্য কোনও ছাত্ৰ সংগঠন জড়িত নয়।

অন্যান্য খবরের জন্য পড়ুনঃ সিএএ নিয়ে আজ শুনানি,সুপ্ৰিম কোর্টের ওপর আমাদের সম্পূর্ণ আস্থা রয়েছেঃ আসু

অধিক খবরের জন্য ভিডিও দেখুন: AJYCP & 30 other organizations launched 'Gana Satyagraha Programme' against CAA in Biswanath

Next Story