সংবাদ শিরোনাম

এনআরসি: নাম ছুটদের পিঠে ‘ডি’ ভোটার ট্যাগ বসবে

এনআরসি

গুয়াহাটিঃ আগামি ৩১ আগস্ট চূড়ান্ত এনআরসি(রাষ্ট্ৰীয় নাগরিক পঞ্জি)প্ৰকাশের পর যে সব ব্যক্তির নাম এনআরসিতে অযোগ্য হিসেবে পাওয়া যাবে তাদের সচিত্ৰ ভোটার তালিকায় ‘ডি’(সন্দেহভাজন)ভোটার ট্যাগ বসিয়ে দেওয়া হবে। রাজ্যের গৃহ ও রাজনৈতিক বিভাগের একটি সূত্ৰ একথা জানিয়েছে। ‘ডি’ ভোটাররা নির্বাচনের সময় ভোট দিতে পারবেন না। নির্বাচন কমিশন ১৯৭৭ সালে এই ট্যাগ চালু করেছিল। ওই সময়েই এধরনের ‘ডি’ ভোটারের সংখ্যা ছিল ২,২০,২০৯ জন। উল্লেখযোগ্য যে ভারতের মধ্যে অসমই হচ্ছে একমাত্ৰ রাজ্য যেখানে ‘ডি’ ট্যাগের ব্যবস্থা রয়েছে। বর্তমানে অসমে ‘ডি’ ভোটার রয়েছেন প্ৰায় ১.১৩ লক্ষ।

চূড়ান্ত এনআরসিতে যাদের নাম অন্তর্ভুক্ত হবে না রাজ্য সরকার সেই সব ব্যক্তিদের মামলাগুলি বিদেশি ট্ৰাইবুনালে(এফটি)পাঠাবে। এই সব ব্যক্তিরা সরাসরি বিদেশি ট্ৰাইবুনালে হাজির হতে পারবেন। এধরনের মামলাগুলো একবার বিদেশি ট্ৰাইবুনালে গেলে ওই সমস্ত ব্যক্তিদের নামের পিছনে ‘ডি’ ট্যাগ বসিয়ে দেওয়া হবে। এব্যাপারে গৌহাটি হাইকোর্টও তাদের নির্দেশিকা জারি করেছে। তবে বিদেশি ট্ৰাইবুনাল যদি  কোনও ব্যক্তিকে ‘ভারতীয়’ বলে ঘোষণা করে তাহলে ওই সমস্ত পুরুষ বা মহিলার সচিত্ৰ ভোটার তালিকা থেকে ‘ডি’ ট্যাগ অপসারণ করা হবে। কিন্তু এফটি যদি কোনও ব্যক্তিকে বিদেশি হিসেবে ঘোষণা করে তাহলে সংশ্লিষ্ট ব্যক্তির নাম অপসারণ করা হবে সচিত্ৰ ভোটার তালিকা থেকে।

২০১৩ সাল থেকে সুপ্ৰিম কোর্টের নির্দেশেই রাজ্যে এনআরসি নবায়নের কাজ চলছে। ওই সময় থেকেই শীর্ষ আদালত গোটা প্ৰক্ৰিয়াটি গভীরভাবে তদারক করছে। অসমে এনআরসি নবায়ন প্ৰক্ৰিয়া দেশের অন্যান্য অঞ্চল থেকে ভিন্ন এবং এটি পরিচালিত হচ্ছে রুল ৪এ ধারা এবং ২০০৩ সালের(রেজিস্ট্ৰেশন অফ সিটিজেন্স অ্যান্ড ইস্যু অফ ন্যাশনাল আইডেনটিটি কার্ডস)-এর নীতি অনু্যায়ী। অসম চুক্তির শর্ত অনু্যায়ী ১৯৭১ সালের ২৪ মার্চ(মধ্যরাত)কে কাট অফ ডেট ধরেই এই রুলগুলো প্ৰস্তুত করা হয়েছে।

এনআরসির আবেদনপত্ৰ গ্ৰহণের প্ৰক্ৰিয়া শুরু হয় ২০১৫ সালের মে-র শেষাশেষি। আবেদনপত্ৰ গ্ৰহণ প্ৰক্ৰিয়া শেষ হয় ২০১৫-র ৩১ আগস্ট। মোট ৩,২৯,৯১,৩৮৪ জন ৬৮,৩১,৩৩০টি আবেদনপত্ৰের মাধ্যমে এনআরসিতে নাম অন্তর্ভুক্তির আবেদন জানিয়েছিলেন।

সব আবেদনগুলোর সম্পূর্ণ ভেরিফিকেশনের পর ২০১৮ সালের ৩০ জুলাই এনআরসির সম্পূর্ণ খসড়া প্ৰকাশিত হয়। সম্পূর্ণ খসড়ায় যোগ্য ব্যক্তিদের নামই ঠাঁই পেয়েছে। সম্পূর্ণ খসড়ায় মোট ২,৮৯,৮৩,৬৭৭ জনের নাম অন্তর্ভুক্তির যোগ্য পাওয়া গিয়েছে।

২০১৯-এর ২৬ জুন নাম ছুটদের নিয়ে এনআরসির একটি অতিরিক্ত খসড়া প্ৰকাশিত হয়। এই তালিকায় খসড়া ছুট ১,০২,৪৬২ জনের নাম রয়েছে। সূত্ৰটি বলেছে,গত বছর জুলাইয়ে প্ৰকাশিত এনআরসি-র সম্পূর্ণ খসড়ায় নাম থাকলেও পরবর্তী সময়ে তাদের নাম বিভিন্ন কারণে অন্তর্ভুক্তির অযোগ্য বিবেচিত হয়। সেই সব ব্যক্তিদের নাম অন্তর্ভুক্ত করে অতিরিক্ত খসড়াটি প্ৰকাশ করা হয়েছে। তবে নাম ছুট এই সব ব্যক্তিদের নাম অন্তর্ভুক্তির জন্য এনআরসি কর্তৃপক্ষ বাড়তি সু্যোগ দিয়েছেন।

 

অন্যান্য খবরের জন্য পড়ুনঃ গুয়াহাটির নারেঙ্গিতে এনআরসি সেবাকেন্দ্ৰ লন্ডভণ্ড করল দুষ্কৃতীরা,তদন্তের নির্দেশ পুলিশের

অধিক খবরের জন্য ভিডিও দেখুন: Bipasa Hrangkhawal- the first woman air traffic controller of Tripura