Top
undefined
Begin typing your search above and press return to search.

নিষেধাজ্ঞা সত্ত্বেও কলেজ শিক্ষকরা ঢালাও প্ৰাইভেট টিউশন করছেন

নিষেধাজ্ঞা সত্ত্বেও কলেজ শিক্ষকরা ঢালাও প্ৰাইভেট টিউশন করছেন

Sentinel Digital DeskBy : Sentinel Digital Desk

  |  17 Sep 2019 12:59 PM GMT

গুয়াহাটিঃ কলেজ শিক্ষকদের প্ৰাইভেট টিউশনের বিরুদ্ধে দুবছর আগেই নিষেধাজ্ঞা চাপিয়েছিল দিশপুর। কিন্তু কলেজ শিক্ষকদের প্ৰাইভেট টিউশন করার এই অভ্যেস এখনও ঢালাও হারে চলছে,দিশপুর ওই নিষেধাজ্ঞা কার্যকর করতে ব্যর্থ হওয়ায়।

প্ৰাইভেট টিউশন করার প্ৰবণতা কলেজ শিক্ষকদের কিছু পরিমাণে হ্ৰাস পেলেও অনেক শিক্ষকের কাছে আজও এটা একটা লোভনীয় ব্যবসাই থেকে গেছে। রাজ্য সরকার প্ৰাইভেট টিউশনের ওপর নিষেধাজ্ঞা আরোপ করার পর কলেজ শিক্ষকরা প্ৰাইভেট টিউশনের ন্যা্য্যতা প্ৰতিপন্ন করতে বেশকিছু সতর্কতামূলক ব্যবস্থা গ্ৰহণ করেন। কলেজ শিক্ষকদের অধিকাংশই গ্ৰুপ ভিত্তিতে ছাত্ৰ পড়াচ্ছেন। এব্যাপারে শিক্ষকদের অভিমত হলো দুর্বল ছাত্ৰদের শৈক্ষিক পারফরম্যান্স উন্নত করতেই গ্ৰুপ ওয়াড়ি তারা ছাত্ৰদের শিক্ষা দান করছেন। তারা বলেন,এধরনের ছাত্ৰদের প্ৰতি বিশেষ দৃষ্টি দেওয়ার প্ৰয়োজন রয়েছে এবং এটা ক্লাশরুমের বাইরেও ওই সমস্ত ছাত্ৰের ভবিষ্যৎ গড়তে নিছকই শিক্ষকদের একটা প্ৰয়াস মাত্ৰ। অনেক ক্ষেত্ৰে দেখা গেছে,আইনের ফাঁক থেকে বাঁচতে শিক্ষকরা এধরনের টিউশন শুরু করার আগে অভিভাবকদের লিখিত মতামত সংগ্ৰহ গ্ৰহণ করছেন’-অসম কলেজ শিক্ষক সংস্থার একজন সদস্য মঙ্গলবার এখানে একথা জানান।

এসিটিএ-র এই সদস্যটি প্ৰাইভেট টিউশনের বিরোধী। তিনি অভি্যোগ করেন শিক্ষা বিভাগ প্ৰাইভেট টিউশনের বিরোধিতা করেছে। তিনি অভিযোগ করেন,শিক্ষা বিভাগ ওই নিষেধাজ্ঞা কার্যকরী করতে ব্যর্থ হয়েছে। তাঁর আরও অভিযোগ,যারা প্ৰাইভেট টিউশন করছেন তাঁরা শিক্ষা বিভাগের কর্তা ব্যক্তিদের সঙ্গে ‘সুসম্পর্ক’ রেখে চলেছেন। প্ৰথম সারির সব কলেজগুলোর শিক্ষকরাই প্ৰাইভেট টিউশন করছেন-বলেন তিনি।

২০১৭ সালে উচ্চ শিক্ষা বিভাগের তদানীন্তন প্ৰধান সচিব অজয় তিওয়ারি একটি সরকারি নির্দেশ জারি করে পর্যায়ক্ৰমে শিক্ষকদের সংগঠিত প্ৰাইভেট টিউশন অথবা এধরনের প্ৰাইভেট কোচিং সেন্টার/টিউশন হাউসে ছাত্ৰ পড়ানো নিষিদ্ধ ঘোষণা করেছিলেন। বলা হয়েছিল কোনও কলেজ শিক্ষককে এধরনের প্ৰাইভেট টিউশনে শামিল পাওয়া গেলে সংশ্লিষ্ট শিক্ষকের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা গ্ৰহণ করা হবে।

উচ্চ শিক্ষা বিভাগের কাছে এমন খবর রয়েছে যে সমস্ত শিক্ষক প্ৰাদেশিকৃত অথবা সরকারি ডিগ্ৰি কলেজে কর্মরত রয়েছেন তারাও প্ৰাইভেট টিউশনে জড়িয়ে আছেন।

শিক্ষা বিভাগের মতে,কলেজ শিক্ষকরা প্ৰাইভেট টিউশনের দিকে ঝুঁকে পড়ায় কলেজের ক্লাশরুমে ছাত্ৰরা ক্ষতিগ্ৰস্ত হচ্ছে। প্ৰাইভেট টিউশনের জন্য কলেজের ছাত্ৰদের শিক্ষাদানে তারা ততটা মন সংযোগ করছেন না বলেও অভিযোগ রয়েছে উচ্চ শিক্ষা বিভাগের হাতে। যে সমস্ত ছাত্ৰের প্ৰাইভেট টিউশন আছে সেই সব ছাত্ৰরা কলেজের ক্লাশে তেমন আগ্ৰহ দেখায় না। তাই নিয়মিত ক্লাশে ছাত্ৰদের উপস্থিতির হারও কমে যেতে দেখা যায়। দিশপুর এই অভ্যেস ঠেকাতে অন্যভাবে চিন্তা চর্চা করছে।

অন্যান্য খবরের জন্য পড়ুনঃ বৈজ্ঞানিক গবেষণার জন্য মেডিক্যাল কলেজগুলিতে মানুষের দেহদানের প্ৰবণতা বেড়েছে

অধিক খবরের জন্য ভিডিও দেখুন: Minority Scholarship Scam Busted in Nagaon, One Arrested | The Sentinel News | Assam News

Next Story