Top
Begin typing your search above and press return to search.

এনআরসির চূড়ান্ত তালিকার বিরুদ্ধে লখিমপুরে প্ৰতিবাদ

এনআরসির চূড়ান্ত তালিকার বিরুদ্ধে লখিমপুরে প্ৰতিবাদ

Sentinel Digital DeskBy : Sentinel Digital Desk

  |  4 Sep 2019 1:12 PM GMT

লখিমপুরঃ ৩১ আগস্ট প্ৰকাশিত চূড়ান্ত রাষ্ট্ৰীয় নাগরিক পঞ্জি(এনআরসি)নিয়ে রাজ্যের অন্যান্য অঞ্চলের সঙ্গে লখিমপুরেও প্ৰতিক্ৰিয়ার ঝড় উঠেছে। হিন্দু যুব ছাত্ৰ পরিষদ,অসম(এইচওয়াইসিপিএ)-এর কর্মীরা মঙ্গলবার এনআরসির ডামি কপি পুড়িয়ে প্ৰতিবাদ জানায়। প্ৰতিবাদ জানিয়ে সংগঠনটি এনআরসি প্ৰত্যাখ্যান করে। অসমের ভূমিপুত্ৰদের রক্ষা কবচের ব্যবস্থা করতেই এনআরসি-র চিন্তাভাবনা করা হয়েছিল। পরিষদের সভাপতি যুগমাজ্যোতি দত্ত এবং সাধারণ সম্পাদক মাধব দাস এই ইস্যুর বিরুদ্ধে জোরালো প্ৰতিবাদ জানান। সাংবাদিকদের সামনে তাঁরা বলেন,সম্প্ৰতি প্ৰকাশিত এই এনআরসি রাজ্যে গ্ৰহণযোগ্য হবে না। ভারতীয় সংবিধান লঙ্ঘন করে ‘১৯৭১ সালকে ভিত্তি বছর ধরে এই এনআরসি নবায়ন করা হয়েছে। এর মাধ্যমে ১৯৫১ থেকে ১৯৭১ সালের মধ্যে আসা অবৈধ বিদেশির বোঝা রাজ্যের কাঁধে চাপিয়ে দেওয়া হচ্ছে। অনুরূপভাবে লক্ষাধিক অবৈধ বিদেশি এই এনআরসিতে নাম অন্তর্ভুক্ত করে নিয়েছে। মুখ্য বিচারপতি রঞ্জন গগৈর ভূমিকার জন্যই এটা সম্ভব হয়েছে বলে অভি্যোগ করেছেন পরিষদ সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদক।

সংগঠনের কেন্দ্ৰীয় কমিটি ১৯৫১ সালকে ভিত্তি বছর ধরে এনআরসি নবায়নের দাবি জানিয়েছে। ১৯৭১ সালকে ভিত্তি হিসেবে নিয়ে এনআরসি নবায়ন না করার দাবি তুলেছে তারা। সংগঠন আরও অভি্যোগ করেছে,প্ৰকাশিত এনআরসি রাজ্য সরকারের স্বেচ্ছাচারিতার চরম উদাহরণ,যারা জনস্বার্থের প্ৰতি কোনও গুরুত্বই দেয়নি। সেই হেতু সংগঠন ৩১ আগস্টকে কালো দিবস হিসেবে অভিহিত করে।

অন্যদিকে এইচওয়াইসিপিএ-র কেন্দ্ৰীয় কমিটির সাংগঠনিক সম্পাদক বিতুমণি গগৈ অভিযোগ করেন এনআরসির রাজ্য সমন্বয়ক প্ৰতীক হাজেলা ইচ্ছাকৃতভাবে লাখ খানিক হিন্দু নাগরিকের নাম বাদ দিয়েছেন এবং সেই জায়গায় বাংলাদেশি অনুপ্ৰবেশকারীদের নাম ঢুকিয়েছেন।

অন্যান্য খবরের জন্য পড়ুনঃ রাজ্যে প্ৰকাশিত হলো বহু প্ৰতীক্ষিত রাষ্ট্ৰীয় নাগরিক পঞ্জি(এনআরসি)

অধিক খবরের জন্য ভিডিও দেখুন: AGP holds press conference at party office in Guwahati | The Sentinel News | Assam News

Next Story