ইন্টারন্যাশনাল

অবিশ্ৰান্ত বৃষ্টিতে পুনেতে আবাসিক কমপ্লেক্সের প্ৰাচীর ধসে নিহত ১৭

প্ৰাচীর
Source: Google

পুনেঃ অবিশ্ৰান্ত বৃষ্টিতে পুনের কোন্দওয়া এলাকায় ৬০ ফুটের একটি বিশাল প্ৰাচীর ধসে নিকটবর্তী কুড়ে ঘরগুলোর ওপর পড়ায় কমপক্ষেও ১৭ জন ব্যক্তি প্ৰাণ হারান। কুড়ে ঘরগুলি ওই প্ৰাচীর ঘেঁষেই ছিল। মৃতদের মধ্যে চারটি শিশু ও একজন মহিলাও রয়েছেন। শুক্ৰবার মাঝরাত প্ৰায় ১টা ৪৫ মিনিট নাগাদ এই মর্মান্তিক ঘটনাটি ঘটে। অবিশ্ৰান্ত বৃষ্টির দরুন প্ৰাচীরের নিচে থাকা মাটি ভিজে নরম হয়ে যায় এবং বৃষ্টির তোড়ে মাটি সরে যেতেই প্ৰাচীরটি ধসে পাশে থাকা কুড়ে ঘরগুলোর ওপর আছড়ে পড়ে। পুনের কোন্দওয়া এলাকার তালাব মসজিদের কাছে দুর্ঘটনাটি ঘটে। শ্ৰমিকদের আশ্ৰয়ের জন্য টিনের চাল দিয়ে ঘরগুলো নির্মাণ করা হয়েছিল। পাশেরই একটা নির্মাণ স্থলে কাজ করছিল এই সব শ্ৰমিক। এভাবে আচমকা প্ৰাচীর ধসে শ্ৰমিকদের জীবনে দুর্যোগ ঘনিয়ে আসবে ঘটনার আগ মুহূর্ত পর্যন্ত কেউই তা আঁচ করতে পারেননি। দুর্ঘটনার কারণ জানতে তদন্তের ব্যবস্থা করা হয়েছে। পুলিশ আশ্বাস দিয়ে বলেছে,হৃদয় বিদারক এই দুর্ঘটনার জন্য যারা দায়ী তাদের বিরুদ্ধে কঠোর ব্যবস্থা গ্ৰহণ করা হবে।

তবে দুর্ঘটনার পরপরই পুলিশ উদ্ধার অভিযানে নেমে পড়ে। অগ্নি নির্বাপক বাহিনী এবং জাতীয় দুর্যোগ প্ৰশমন ফোর্স(এনডিআরএফ)বাহিনী প্ৰাচীরের ধ্বংসস্তূপে আটকে পড়া লোকেদের উদ্ধার অভিযান চালায়।

সূত্ৰটি জানাচ্ছে,তিনজন আহত ব্যক্তি এবং ধ্বংসস্তূপে আটকে পড়া অন্যান্যদের উদ্ধার করে নিকটবর্তী হাসপাতালে ভর্তি করানো হয়েছে। যে প্ৰাচীরটি ধসে পড়েছে,সেটি একটা আবাসন কমপ্লেক্সের পার্কিং ওয়াল ছিল বলে রিপোর্টে প্ৰকাশ।

পুনের জেলা কালেক্টর নাভাল কিশোর রাম বলেছেন,প্ৰচণ্ড বৃষ্টির জন্য প্ৰাচীর ধসলেও এই ঘটনায় নির্মাণ কোম্পানির গাফিলতি থাকার বিষয়টি প্ৰকাশ্যে আসছে। ১৫ জন লোকের মৃত্যুর ঘটনা ছোটখাটো বিষয় নয়। নিহত শ্ৰমিকদের অধিকাংশ বিহার ও বাংলার। ‘সরকার ক্ষতিগ্ৰস্তদের সাহায্য দেবে’।

প্ৰাচীর ধসের ঘটনায় নির্মাণ কোম্পানিকে দোষারোপ করা হচ্ছে। প্ৰশাসনের তরফ থেকে আশ্বাস দিয়ে বলা হয়েছে,তদন্তে দোষী পাওয়া গেলে নির্মাণ কোম্পানির বিরুদ্ধে কঠোর শাস্তিমূলক ব্যবস্থা গ্ৰহণ করা হবে। পুনে শহরে এখন প্ৰচণ্ড বৃষ্টি হচ্ছে। তাই প্ৰাকৃতিক বিপর্যয়ের হাত থেকে বাঁচাতেশহরের আবাসিক এলাকাগুলোতে অতিরিক্ত নিরাপত্তা ও সাবধানতা অবলম্বনের ওপর গুরুত্ব আরোপ করা হয়েছে।

 

 

অন্যান্য খবরের জন্য পড়ুনঃ হিমাচল প্ৰদেশে বৃষ্টিতে ৫ জনের মৃত্যু,হাইওয়েতে আটকে শতাধিক মানুষ