Top
undefined
Begin typing your search above and press return to search.

অসমে জমে উঠেছে রাজ্যসভা আসনের নির্বাচন পর্ব

অসমে জমে উঠেছে রাজ্যসভা আসনের নির্বাচন পর্ব

Sentinel Digital DeskBy : Sentinel Digital Desk

  |  12 March 2020 7:46 AM GMT

গুয়াহাটিঃ অসমে রাজ্যসভার আসনের নির্বাচন পর্ব বুধবার থেকে জমে উঠেছে। বিশ্বজিৎ দৈমারি বিপিএফ প্ৰার্থী হিসেবে বুধবার তাঁর মনোনয়নপত্ৰ জমা দিয়েছেন। ওদিকে বিজেপি তাদের প্ৰার্থীর নাম ঘোষণা করেছে। কংগ্ৰেস-এআইইউডিএফ সম্মিলিতভাবে ঘোষণা করেছে তাদের প্ৰার্থীর নাম। ১৩ মার্চ হচ্ছে মনোনয়নপত্ৰ দাখিলের শেষ দিন। উচ্চ সদনে অর্থাৎ রাজ্যসভায় অসমের তিনটি আসনের নির্বাচন অনুষ্ঠিত হচ্ছে আগামি ২৬ মার্চ। এরআগে গতকাল বিজেপি ভুবনেশ্বর কলিতাকে তাদের প্ৰার্থী হিসেবে ঘোষণা করে। ওদিকে কংগ্ৰেস-এআইইউডিএফ সম্মিলিতভাবে বরিষ্ঠ সাংবাদিক অজিত কুমার ভূঞাকে তাদের যৌথ প্ৰার্থী হিসেবে ঘোষণা করেছে। অন্যদিকে ভূঞাকে বিরোধী শিবিরের প্ৰার্থী করার পর তৃতীয় আসনে বিজেপি-র প্ৰার্থী দেওয়ার সম্ভাবনা এই পর্যায়ে উড়িয়ে দেওয়া যায় না। তৃতীয় আসনে প্ৰার্থী দেওয়া নিয়ে শাসক জোটে জল্পনা-কল্পনা চলছে।

মুখ্যমন্ত্ৰী সর্বানন্দ সোনোয়াল,অর্থমন্ত্ৰী হিমন্তবিস্ব শর্মা,বিটিসির চিফ এগজিকিউটিভ সদস্য(সিইএম)হাগ্ৰামা মহিলারি,অগপ সভাপতি অতুল বরার উপস্থিতিতে বিশ্বজিৎ দৈমারি তাঁর মনোনয়নপত্ৰ দাখিল করেছেন। মনোনয়ন দাখিলের পর দৈমারি বলেছেন,‘আমাদের জোটে যথেষ্ট সংখ্যক সদস্য রয়েছে। সেইহেতু আমার জয় নিশ্চিত’। মুখ্যমন্ত্ৰী সর্বানন্দ সোনোয়াল বলেছেন,‘শাসক জোটের প্ৰার্থীর জয় নিশ্চিত’।

তৃতীয় আসনে বিজেপি কোনও প্ৰার্থী দেবে কি না সাংবাদিকরা জানতে চাইলে সোনোয়াল বলেন,‘এব্যাপারে দলের রণনীতি ও পরিকল্পনা সঠিক সময়ে আমরা আপনাদের জানাবো’।

অর্থমন্ত্ৰী হিমন্তবিশ্ব শর্মা বলেন,২০১৬ সালে বিধানসভা নির্বাচনের আগেই অগপ এবং বিপিএফ-এর সঙ্গে আমাদের জেন্টেলম্যান সুলভ সমঝোতা হয়েছিল। ওই সমঝোতা অনু্যায়ী আমরা অগপকে রাজ্যসভার একটি আসন ছেড়ে দিয়েছিলাম এবং এখন আমরা বিপিএফকে একটি আসন ছেড়েছি’।

রাজ্যসভার তৃতীয় আসনটি সম্পর্কে জানতে চাওয়া হলে শর্মা বলেন,‘তৃতীয় আসনেও জয়ের মতো পরিবেশ রয়েছে শাসক জোটের হাতে। তবে কংগ্ৰেস যদি কোনও বিতর্কিত মুখকে দাঁড় করায় তাহলে সেটা দেখে নিয়েই আমরা একটা সিদ্ধান্ত নেবো’।

কংগ্ৰেস-এআইইউডিএফ তৃতীয় আসনে সাংবাদিক অজিত ভূঞাকে তাদের যৌথ প্ৰার্থী হিসেবে দাঁড় করানোর কথা স্মরণ করিয়ে দিলে শর্মা বলেন,‘অসমিয়া জাতীয়তাবাদের ক্ষেত্ৰে এরচেয়ে দুর্ভাগ্যজনক আর কি হতে পারে। ভূঞার মতো ব্যক্তিত্ব শেষপর্যন্ত আজমলের মঞ্চে ঘেঁষাটা অসমের বৌদ্ধিক সমাজকেই অবমাননার শামিল’।

ওদিকে এপিসিসি সভাপতি রিপুন বরা বলেছেন,‘আমরা ভূঞাকে সমর্থন করার সিদ্ধান্ত নিয়েছি যেহেতু তিনি একজন নিরপেক্ষ প্ৰার্থী’।

অন্যান্য খবরের জন্য পড়ুনঃ করোনা ভাইরাসের আতঙ্কঃ মণিপুর,মিজোরামের আন্তর্জাতিক সীমান্ত সিল

অধিক খবরের জন্য ভিডিও দেখুন: ‘Saragdeo Puja’ by Sonowal Kachari community observed in Moran

Next Story