Top
Begin typing your search above and press return to search.

চাকরি নিয়মিতকরণের দাবিতে মুখ্যমন্ত্ৰীর হস্তক্ষেপের আর্জি বিক্ষোভকারী শিক্ষকদের

চাকরি নিয়মিতকরণের দাবিতে মুখ্যমন্ত্ৰীর হস্তক্ষেপের আর্জি বিক্ষোভকারী শিক্ষকদের

Sentinel Digital DeskBy : Sentinel Digital Desk

  |  8 Aug 2019 12:44 PM GMT

গুয়াহাটিঃ অল আসাম সেকেন্ডারি অ্যাডিশনাল(কনট্ৰ্যাকচুয়েল)টিচার্স অ্যাসোসিয়েশন(এএএসএসিটিএ)তাদের চাকরি নিয়মিত না করার প্ৰতিবাদে বুধবার রাজ্যজুড়ে বিক্ষোভ প্ৰদর্শন করেন। কামরূপ(মেট্ৰো)জেলায়ও বিক্ষোভ প্ৰদর্শন করেন শিক্ষকরা। কামরূপ(মেট্ৰো)জেলাশাসকের কার্যালয়ের সামনে বিক্ষোভ প্ৰদর্শন করে শিক্ষকরা তাদের দাবি পূরণে মুখ্যমন্ত্ৰীর উদ্দেশে জেলাশাসকের হাতে একটি স্মারকপত্ৰ তুলে দেন। শিক্ষকরা ওই স্মারকপত্ৰে তাদের দাবি পূরণে মুখ্যমন্ত্ৰীর হস্তক্ষেপের আর্জি জানান।

২০১০ সালে গোটা রাজ্যে মাধ্যমিক শিক্ষার মান শক্তিশালী ও উন্নত করার লক্ষ্যে গৃহীত স্কিম ও মন্ত্ৰিসভার সিদ্ধান্ত মর্মে মাধ্যমিক ঠিকা শিক্ষকদের কাজে লাগানো হয়েছিল। সংস্থার সভাপতি মানব জ্যোতি শর্মার মতে,প্ৰাথমিক পর্যায়ে মাধ্যমিক ঠিকা শিক্ষকদের মাসিক বেতন ধার্য করা হয়েছিল ৮ হাজার টাকা। পারিশ্ৰমিকের অর্থ সময়ে সময়ে বৃদ্ধিও পাচ্ছিলো। বর্তমানে সরকার এই সব শিক্ষকদের মাসিক ২০ হাজার টাকা করে বেতন দিচ্ছে।

‘বেতনের এই অর্থ নিতান্তই কম উল্লেখ করে শর্মা বলেন,সেকেন্ডারি ঠিকা শিক্ষকদের কাজ ও অভিজ্ঞতার নিরিখে বেতন আশানুরূপ নয়। এর মধ্যে সবচেয়ে উদ্বেগের বিষয়টি হচ্ছে সরকার সময় মতো বেতন দিতে না পারাটাও’।

হাইস্কুল শিক্ষান্ত পরীক্ষায়(এইচএলসি)পাসের হার উন্নীত করা এবং মাধ্যমিকে গুণগত শিক্ষাদানের ব্যবস্থা করতে তদানীন্তন সরকার ২০১৬ সালের ২৮ ফেব্ৰুয়ারি এক ক্যাবিনেট বৈঠকে এই সব শিক্ষকদের চাকরি নিয়মিত করার সিদ্ধান্ত নিয়েছিল। এরপর বর্তমানে খালি পড়ে থাকা পদগুলোতে এই সব শিক্ষকদের নিয়োগ করার যাবতীয় আনুষঙ্গিক কাজও সারা হয়েছিল। কিন্তু নতুন শিক্ষামন্ত্ৰী গৌহাটি হাইকোর্টে ঝুলে থাকা মামলাগুলি পর্যালোচনা করে মন্ত্ৰিসভায় ওই সিদ্ধান্ত রদ করে দেন। ওই সিদ্ধান্তে দুঃখ প্ৰকাশ করে সংস্থার সম্পাদক হিমাংশু কলিতা বলেন,কেন নতুন সরকার শিক্ষকদের চাকরি নিয়মিত করণের সিদ্ধান্ত বাতিল করলো তা আমরা কল্পনাও করতে পারিনি।

সংস্থা হাইকোর্টে পেশ করা রিভিউ পিটিশনটি যত তাড়াতাড়ি সম্ভব প্ৰত্যাহার করে নেওয়ার আর্জি জানিয়েছে। তাহলে শিক্ষকদের চাকরি নিয়মিতকরণে আইনি বাধা দূর হবে। এব্যাপারে একটা পাকাপোক্ত সিদ্ধান্ত নেওয়ার জন্য সংস্থা সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষের কাছে অনুরোধ জানিয়েছে।

অন্যান্য খবরের জন্য পড়ুনঃ রাজ্যে বহু শিক্ষা প্ৰতিষ্ঠানে শিক্ষকের পদ খালি

অধিক খবরের জন্য ভিডিও দেখুন: Nalbari mourns death of former Union Minister Sushma Swaraj

Next Story