Top
Begin typing your search above and press return to search.

করোনা সংক্ৰমণ ঠেকাতে প্ৰাক সতর্কতামূলক ব্যবস্থা জোরদার করে তুলেছে অসম সরকার

করোনা সংক্ৰমণ ঠেকাতে প্ৰাক সতর্কতামূলক ব্যবস্থা জোরদার করে তুলেছে অসম সরকার

Sentinel Digital DeskBy : Sentinel Digital Desk

  |  18 March 2020 8:22 AM GMT

গুয়াহাটিঃ মারণ জীবাণু করোনা ভাইরাসের বিরুদ্ধে লড়াইয়ে রাজ্য সরকার যে গোড়া থেকেই সচেতন তা বলার অপেক্ষা রাখে না। স্বাস্থ্য বিভাগ প্ৰতিদিনই পরিস্থিতি পর্যালোচনা করে নতুন নতুন পদক্ষেপ নিচ্ছে। স্বাস্থ্যমন্ত্ৰী হিমন্তবিশ্ব শর্মা জন অধ্যুষিত স্থানে যে কোনও ধরনের সমাবেশ বাতিল করার পদক্ষেপ নিতে জেলাশাসকদের বলেছেন।

সামাজিক অনুষ্ঠান বিশেষ করে বিয়ে,পুজো-পার্বণ এবং নামাজ পাঠ ইত্যাদিতে জন সমাবেশের পরিমাণ যাতে কম হয় জেলাশাসকদের তার জন্য বুঝিয়ে শুনিয়ে রাজি করানোরও পরামর্শ দিয়েছেন শর্মা। স্বাস্থ্যমন্ত্ৰী মঙ্গলবার এক ভিডিও কনফারেন্সের মাধ্যমে রাজ্যের সমস্ত জেলাশাসকদের উদ্দেশে বক্তব্য রাখছিলেন। তিনি বলেন,অসমে এখনও করোনা সংক্ৰমণের একটিও পজিটিভ কেস ধরা পড়েনি যদিও তাই বলে রাজ্য এই পরিস্থিতিতে কোনও ঝুঁকি নিতে চায় না। তাছাড়া এনিয়ে আত্মতুষ্টিতে ভোগার কোনও অবকাশ নেই।তিনি বলেন,অসমের বাইরে কাজ করা বহু মানুষ তাদের ঘরে ফিরেছেন এবং তাদের সঙ্গে চোরাগোপ্তাভাবে এই মারণ জীবাণু চলে আসার সম্ভাবনাও উড়িয়ে দেওয়া যায় না।

‘রাজ্যের জন্য এই পর্যায়টা খুবই গুরুত্বপূর্ণ। যারা এতদিন বাইরে থাকার পর এখন ঘরে ফিরেছেন তাদের স্বাস্থ্যের অবস্থার প্ৰতি আমাদের তীক্ষ্ণভাবে নজর রাখতে হবে। যদি কারো শরীরে এই জীবাণুর লক্ষণ দেখা যায় তাহলে তাকে ইনকিউবেশনে রাখতে হবে। পূর্ণ সতর্কতা গ্ৰহণের এটাই উপযুক্ত সময়। যদি কারো শরীরে এই রোগের লক্ষণ দেখা যায় তাহলে তাদের সামাজিকভাবে আইসোলেশন অথবা পৃথকভাবে রাখার ব্যবস্থা করতে হবে,এই মারণ জীবাণুর সম্ভাব্য সংক্ৰমণ এড়িয়ে চলার জন্য- জেলাশাসকদের বলেন শর্মা।

অভ্যর্থনা ছাড়া বিয়ের অনুষ্ঠানে সংক্ষেপ সারতে জনগণকে বুঝিয়ে রাজি করানোর জন্য জেলাশাসকদের পরামর্শ দিয়েছেন তিনি। মন্দির,মসজিদ,গির্জায় কোনওরকম ভিড় এবং শপিং মল ইত্যাদিতে ব্যাপক সমাবেশ যাতে না হয় সেদিকে নজর রাখতেও শর্মা জেলাশাকদের পরামর্শ দিয়েছেন। হোটেল এবং অতিথিশালাগুলোতে কোয়ারেন্টাইনের ব্যবস্থা করার পদক্ষেপ নিতেও জেলাশাসকদের বলা হয়েছে। সংক্ৰমণ সংক্ৰান্ত সন্দেহভাজন ব্যক্তিকে কমপক্ষেও ১৪ জন কোয়ারেন্টাইনে রাখতে হবে। ট্ৰেন যাত্ৰীদের নিরাপত্তা প্ৰসঙ্গে শর্মা বলেন,অসমে রাজধানী এক্সপ্ৰেসের ক্ষেত্ৰে প্ৰতি স্টেশনে একটাই এগজিট পয়েন্ট থাকবে,যাতে কোনও যাত্ৰী মেডিক্যাল স্ক্ৰিনিং থেকে বাদ না পড়েন। অসম-বাংলাদেশ,অসম-ভুটান সীমান্তের এন্ট্ৰি পয়েন্টেও মেডিক্যাল স্ক্ৰিনিং জোরদার করে তোলা হয়েছে। বিটিএডিতে আসন্ন বিটিসি নির্বাচনে গণ সমাবেশ এড়াতে সরকার একটি পৃথক নির্দেশিকা জারি করবে-উল্লেখ করেন শর্মা।

অন্যান্য খবরের জন্য পড়ুনঃ করোনা আতঙ্কে অসমের হোটেলে ঠাঁই পেলেন না স্প্যানিশ সাইক্লিস্ট

অধিক খবরের জন্য ভিডিও দেখুন: Covid-19: NHM conducts temporary screening camp at Paltan BazaarCongress-AIUDF

Next Story