সংবাদ শিরোনাম

বেআইনি কার্যকলাপে জড়ালে আত্মসমর্পনকারী বিদ্ৰোহীরা সরকারের পুনর্বাসন নীতির সুবিধা পাবেন না

আত্মসমর্পনকারী

গুয়াহাটিঃ আত্মসমর্পণকারী বিদ্ৰোহীরা কোনও ধরনের বেআইনি এবং সমাজবিরোধী কার্যকলাপে জড়ালে অসম সরকারের প্ৰস্তাবিত সুসংহত ত্ৰাণ ও পুনর্বাসন নীতি থেকে তাদের বাদ দেওয়া হবে। সম্প্ৰতি রাজ্য সরকার ঘোষণা করেছিল,ন্যাশনাল ডেমোক্ৰ্যাটিক ফ্ৰন্ট অফ বোড়োল্যান্ড(এনডিএফবি)-এর চারটি গোষ্ঠীর যে ১৬০০ জনেরও বেশি নেতা ও ক্যাডার আত্মসমর্পণ করেছে তাদের জন্য একটি সুসংহত ত্ৰাণ ও পুনর্বাসন নীতি প্ৰস্তুত করা হবে,ভবিষ্যতে তারা যাতে ভুল পথে পরিচালিত না হয় তা ঠেকাতে।

রাজ্যের গৃহ বিভাগ অসম পুলিশ এবং এনডিএফবি-র চারটি গোষ্ঠীর নেতা ও অন্যান্য দাবিদারদের সঙ্গে পরামর্শ করেই এই স্কিমটি প্ৰস্তুত করবে।

‘কিন্তু আত্মসমর্পণকারী বিদ্ৰোহীদের কেউ বেআইনি এবং সমাজ বিরোধী কোনও কার্যকলাপে উস্কানি দিতে দেখা গেলে তারা সরকারের এই প্ৰস্তাবিত নীতির সু্যোগ সুবিধা লাভের ক্ষেত্ৰে অযোগ্য বলে বিবেচিত হবেন। আত্মসমর্পণকারী বিদ্ৰোহীদের পুনর্বাসন নীতিতে অন্তর্ভুক্তির আগে সরকার তাদের সম্পর্কে,পুলিশের কাছ থেকে রিপোর্ট সংগ্ৰহ করবে’-জানিয়েছে একটি সূত্ৰ।

জানা গিয়েছে যে এনডিএফবি-র চারটি গোষ্ঠীর ১৬০০ জনেরও বেশি ক্যাডার সম্প্ৰতি ব্যাপক সংখ্যক হাতিয়ার সমর্পণ করলেও সমস্ত অস্ত্ৰ ও গোলাবারুদ তারা সমর্পণ করেছে কিনা তা নিয়ে একটা অনিশ্চয়তা ও ভয় থেকেই যাচ্ছে। সেইহেতু পুলিশ ও নিরাপত্তা বাহিনীকে আত্মসমর্পণকারী বিদ্ৰোহীদের কাজকর্মের প্ৰতি তীক্ষ্ণ নজর রাখতে হবে,যাতে তারা সরকারের হাতে জমা না দেওয়া অস্ত্ৰের সাহা্য্যে কোনও রকমের বেআইনি কার্যকলাপ বা অপরাধে উস্কানি দিতে না পারে তা সুনিশ্চিত করতে। অতীতেও এমন উদাহরণ দেখা গেছে কিছু বিদ্ৰোহী আত্মসমর্পণকারী বিদ্ৰোহী অত্যাধুনিক অস্ত্ৰ নিয়ে হিংসাশ্ৰয়ী ঘটনায় উস্কানি দিয়েছে।

অন্যদিকে,কেন্দ্ৰের নতুন পুনর্বাসন নীতি অনুয়ায়ী যে সব জঙ্গি সংগঠন সরকারের সঙ্গে আলোচনার জন্য এগিয়ে আসবে তাদের প্ৰত্যেক ক্যাডার ৬ হাজার টাকা করে মাসিক স্টাইপেন্ড পাবেন এবং অতিরিক্ত ইনসেনটিভও দেওয়া হবে যদি তারা অস্ত্ৰ সমর্পণ করে এবং অস্ত্ৰের গুরুত্ব বুঝেই এই স্টাইপেন্ড দেওয়া হবে।

অধিকন্তু,প্ৰতিজন জঙ্গির খাতে ৪ লক্ষ টাকা করে ফিক্সড ডিপোজিট রাখা হবে। তবে যুদ্ধ বিরতি চলাকালে আত্মসমর্পণকারী কোনও বিদ্ৰোহী অপরাধমূলক কার্যকলাপে জড়িত পাওয়া গেলে সেই ক্যাডার আর্থিক সাহা্য্য পাবেন না।

 

অন্যান্য খবরের জন্য পড়ুনঃ কাজিরঙা রাষ্ট্ৰীয় উদ্যানে অবৈধ জবরদখল অব্যাহত

অধিক খবরের জন্য ভিডিও দেখুন: Another case of Daylight Robbery in Tinsukia; 2 Lakh Rupees stolen.