Top
undefined
Begin typing your search above and press return to search.

সময়ের আগে সরকারি বাংলো ছেড়ে নজির গড়লেন সুষমা স্বরাজ

সময়ের আগে সরকারি বাংলো ছেড়ে নজির গড়লেন সুষমা স্বরাজ

Sentinel Digital DeskBy : Sentinel Digital Desk

  |  29 Jun 2019 1:29 PM GMT

নয়াদিল্লিঃ বার বার নোটিশ ইস্যু করার পরও সরকারি বাড়ি ছাড়ার ক্ষেত্ৰে প্ৰাক্তন মন্ত্ৰীদের মধ্যে একটা অনীহা বরাবরই লক্ষ্য করা গেছে। কিন্তু এক্ষেত্ৰে সুষমা স্বরাজ একেবারেই ব্যতিক্ৰম। বরং বলা যায় সরকারি বাড়ি সময়ের আগেই ফাঁকা করে দিয়ে তিনি এক অনন্য দৃষ্টান্ত রাখলেন। প্ৰাক্তন বিদেশমন্ত্ৰী সুষমা স্বরাজ আজ তাঁর সরকারি আবাসন খালি করে দিয়েছেন।

নরেন্দ্ৰ মোদির নেতৃত্বাধীন নতুন মন্ত্ৰিসভায় কোনও মন্ত্ৰীপদে না থাকায় স্বরাজ মনে করেন,যেহেতু তিনি এখন আর মন্ত্ৰী নন সেইহেতু সরকারি বাড়ি আঁকড়ে থাকাটা কোনওভাবেই যুক্তিগ্ৰাহ্য নয় এবং সেইহেতু তিনি বাড়িটি ফাঁকা করে দিয়ে সঠিক সময়ে সঠিক কাজই করেছেন।

কেন্দ্ৰে নতুন সরকার শপথ নেবার একমাসও পূর্ণ হয়নি এবং নতুন বিজেপি সরকারের কোনও পদে না থাকায় স্বরাজ সরকারি বাড়ি ছেড়ে দিয়ে নিয়ম নীতি ও সময়ানুবর্তিতার ক্ষেত্ৰে এক নজিরে সৃষ্টি করলেন। প্ৰাক্তন বিজেপি মন্ত্ৰীর দায়িত্বপূর্ণ এই আচরণের জন্য ইন্টারনেটে তাঁর উচ্ছ্বসিত প্ৰশংসা করা হয়েছে। সরকারি বাড়ি ছেড়ে অন্যত্ৰ শিফট করা সম্পর্কে স্বরাজ টুইট করলে ব্যবহারকারীরা এই ভূমিকার জন্য তাঁকে শুভেচ্ছা ও প্ৰশংসা বার্তায় ভরিয়ে দেন।

এরআগে শনিবার সকালে স্বরাজ যে টুইটটি করেছেন তা পড়তে হবে এভাবে ‘আমি নয়াদিল্লির সফদারজং লেনের ৮নং সরকারি আবাস গৃহ ছেড়ে যাচ্ছি। তাই অনুগ্ৰহ করে পূর্বের ঠিকানা ও ফোন নম্বরে আমাকে পাওয়া যাবে না’।

প্ৰবীণ বিজেপি নেতার প্ৰশংসা করে টুইটারে তাঁর প্ৰশংসক ও গুণমুগ্ধরা যা লিখেছেন তার বয়ান হলো ‘সরকারে আপনার ক্যারিসমাটিক উপস্থিতি আমরা মিস করবো’

আপনার সুস্বাস্থ্য ও সৌভাগ্য কামনা করছি। ভারতীয় মহিলা রাজনীতিকদের মধ্যে স্বরাজ এক বলিষ্ঠ ব্যক্তিত্ব।

অন্য এক ব্যবহারকারী লিখেছেন,‘অন্যান্য রাজনীতিকদের সরকারি বাড়ি থেকে বের করতে যেখানে কোর্টের সাহায্য নিতে হয় সেই জায়্গায় স্বরাজ নিজে থেকেই সময়ের আগেই সরকারি বাংলো ফাঁকা করে দিয়েছেন। এটা শিষ্ঠাচার ও নিষ্ঠার প্ৰকৃষ্ট উদাহরণ’।

তবে নতুন মন্ত্ৰিসভায় সুষমা স্বরাজ না থাকায় তাঁর শুভানুধ্যায়ী এবং দেশের অন্যান্য সংশ্লিষ্ট নাগরিকরা মনে মনে কষ্টই পেয়েছেন। কারো কারো মতে নোংরা রাজনীতি থেকে সরে দাঁড়াতে তাঁর স্বাস্থ্যজনিত সমস্যাটা একটা অজুহাত মাত্ৰ। তবে অন্যরা বলেছেন,রাজনৈতিক অঙ্গনে একজন বিচক্ষণ ও সুদক্ষ ব্যক্তিকে তারা মিস করছেন। তাঁর রাজনৈতিক সন্ন্যাসে অনেকেই দুঃখিত।

অন্যান্য খবরের জন্য পড়ুনঃ ২০১৯-এর লোকসভা নির্বাচনে লড়ছেন না সুষমা স্বরাজ

Next Story