Begin typing your search above and press return to search.

ইসলামিক সন্ত্ৰাসের বিরুদ্ধে হুংকার,ভারত-মার্কিন সম্পর্ক নতুন অধ্যায়ের সূচনা করবেঃ ট্ৰাম্প

ইসলামিক সন্ত্ৰাসের বিরুদ্ধে হুংকার,ভারত-মার্কিন সম্পর্ক নতুন অধ্যায়ের সূচনা করবেঃ ট্ৰাম্প

Sentinel Digital DeskBy : Sentinel Digital Desk

  |  25 Feb 2020 8:55 AM GMT

আহমেদাবাদ/নয়াদিল্লিঃ ভারত সফরে এসে আমেরিকার রাষ্ট্ৰপতি ডোনাল্ড ট্ৰাম্প সোমবার ইসলামিক সন্ত্ৰাস খতমে রণশিঙ্গা বাজালেন। বললেন,ইসলামিক সন্ত্ৰাসের বিরুদ্ধে আমেরিকা ও ভারত যৌথভাবে কাজ করতে প্ৰতিশ্ৰুতিবদ্ধ। মোতেরায় বিশ্বের বৃহত্তম ক্ৰিকেট স্টেডিয়ামে আয়োজিত একবিশাল সমাবেশে প্ৰায় ১,২৫০০০ দর্শককে সম্বোধন করে ভাষণ দিচ্ছিলেন ট্ৰাম্প। প্ৰেসিডেন্ট ট্ৰাম্প বলেন,বিশ্বের আরও একটা প্ৰান্ত থেকে প্ৰায় আট হাজার মাইল পথ পাড়ি দিয়ে তিনি ভারত এসেছেন। এর কারণ,‘ভারতকে ভালোবাসে আমেরিকা’। আমেরিকা শ্ৰদ্ধা করে ভারতকে এবং ভারতীয় মানুষের কাছে আমেরিকা বরাবর বিশ্বস্ত বন্ধু হয়েই থাকবে। আজকের এই দিন থেকে আমাদের হৃদয়ে সবসময় একটা বিশেষ জায়গায় থাকবে ভারত’।

মার্কিন রাষ্ট্ৰপ্ৰধান বলেন,ভারত-আমেরিকা দুটো দেশই ইসলামিক সন্ত্ৰাসে দীর্ণ এবং উভয় দেশ এই ইস্যুতে পরস্পরের মধ্যে মতবিনিময় করে আসছে। ইসলামিক সন্ত্ৰাসের কবল থেকে দেশের নাগরিকদের বাঁচাতে আমেরিকা-ভারত একজোট হয়েছে। তিনি বলেন,বিশ্বের প্ৰতিটি দেশই চায় তার সীমান্তের সুরক্ষা ও নিরাপত্তা। তাই সন্ত্ৰাস,উগ্ৰবাদের বিরুদ্ধে আমাদের সীমান্ত চিরকালের জন্য বন্ধ থাকবে। কেউ আমাদের নিরাপত্তায় হুমকির সৃষ্টি করলে তাদের এর জন্য বড়সড় মূল্য চুকোতে হবে’। ট্ৰাম্পের একথায় গোটা স্টেডিয়ামে হর্ষধ্বনি ওঠে।

ট্ৰাম্প বলেন,ইসলামিক সন্ত্ৰাসের বিরুদ্ধে তাঁর সরকার কড়া পদক্ষেপ নিয়েছে। ‘আমার প্ৰশাসন মার্কিন সামরিক বাহিনীকে পূর্ণ ক্ষমতা দিয়েছে আইএসআইএস-এর রক্তপিপাসু ঘাতকদের শিরদাঁড়া ভেঙে দিতে। আইএসআইএস-এর একশো শতাংশ আঞ্চলিক ঘাঁটি ধ্বংস করে দিয়েছে মার্কিন সেনা। আল বাগদাদি ইতিমধ্যেই নিহত হয়েছে’-বলেন তিনি।

মোদি সরকার গতবছর জম্মু ও কাশ্মীরের বিশেষ মর্যাদা তুলে নেওয়া সম্পর্কে ট্ৰাম্প এদিন কোনও মন্তব্য করেননি। কাশ্মীরের পুলওমায়ায় সন্ত্ৰাসী হামলা এবং পাকিস্তানের বালাকোটে ভারতের সার্জিক্যাল স্ট্ৰাইকের পর ট্ৰাম্প ভারত-পাক দ্বিপাক্ষিক সম্পর্কে হস্তক্ষেপ করার আগ্ৰহ দেখিয়েছিলেন। কিন্তু এবার ভারত সফরে এসে মার্কিন রাষ্ট্ৰপতি পরোক্ষ পাকিস্তানকেই কড়া বার্তা দিলেন। সন্ত্ৰাসী কার্যকলাপের বিরুদ্ধে ভারতের ভূমিকার প্ৰতি সমর্থন ব্যক্ত করে ট্ৰাম্প বলেন,‘নিজেদের সার্বভৌমত্ব ও সীমান্ত সুরক্ষার অধিকার প্ৰত্যেক রাষ্ট্ৰের রয়েছে’। এই বক্তব্যে ও ইসলামিক সন্ত্ৰাসের মূলোৎপাটনে পরোক্ষে পাকিস্তানকেই হুমকি দিয়েছেন তিনি।

প্ৰায় আধ ঘন্টার ভাষণে রাষ্ট্ৰপতি ট্ৰাম্প ভারতীয় গণতন্ত্ৰ,এর মূল্যবোধ,বৈচিত্ৰ্য,আধ্যাত্মিক,সাংস্কৃতিক ও সামাজিক ব্যবস্থার উচ্ছ্বসিত প্ৰশংসা করেন। প্ৰশংসায় ভরিয়ে দেন প্ৰধানমন্ত্ৰী নরেন্দ্ৰ মোদির নেতৃত্বকে।

জাতির জনক মহাত্মা গান্ধী,আধ্যাত্মিক নেতা স্বামী বিবেকানন্দ,ক্ৰিকেট তারকা শচিন তেণ্ডুলকর,বলিউড ছবি দিলওয়ালে দুলহনিয়া লে জায়েঙ্গে এবং ভারতের চন্দ্ৰযান মিশনের প্ৰসঙ্গও তাঁর দরাজ কন্ঠে প্ৰাণ পেয়ে ওঠে। গুজরাটের একটা সাদামাটা পরিবার থেকে মোদি যেভাবে দিল্লির তখতে বসেছেন সেটা একটা ব্যতিক্ৰমী সাফল্যের জ্বলন্ত উদাহরণ-বলেন ট্ৰাম্প। ট্ৰাম্পের সঙ্গে এদিন ফাস্ট লেডি মেলোনিয়া ট্ৰাম্পও ছিলেন। এদিন ট্ৰাম্প দম্পতি এবং তাঁর কন্যা ইভাস্কা ও তাঁর স্বামী জ্যারেড কুশনার আগ্ৰায় গিয়ে প্ৰেমের উজ্জ্বল স্মৃতিসৌধ তাজমহল পরিদর্শন করে তার অনিন্দ্য সৌন্দর্য উপভোগ করেন। তাজ দর্শন করে ভিজিটর্স বুকে ট্ৰাম্প লেখেন,তাজ ভারতীয় সংস্কৃতির এক বিচিত্ৰ রূপ,যা সবাইকে মুগ্ধ করে। ইতিহাসের কালজয়ী এই স্থাপত্য ভারতীয় ঐতিহ্যের এক অক্ষয় দলিল’।

অন্যান্য খবরের জন্য পড়ুনঃ মন কি বাতঃ যুবকদের মধ্যে বিজ্ঞান চেতনা বৃদ্ধির আহ্বান নরেন্দ্ৰ মোদির

অধিক খবরের জন্য ভিডিও দেখুন: Khelo India Lawn Bowl Gold Medalist Suranjana Baruah shares candid moment with THE SENTINEL DIGITAL

Next Story