Begin typing your search above and press return to search.

গুয়াহাটি বিস্ফোরণ নাশকতায় পুরনো ক্যাডারদের ব্যবহার করছে আলফাঃ পুলিশ

গুয়াহাটি বিস্ফোরণ নাশকতায় পুরনো ক্যাডারদের ব্যবহার করছে আলফাঃ পুলিশ

Sentinel Digital DeskBy : Sentinel Digital Desk

  |  18 May 2019 11:59 AM GMT

গুয়াহাটিঃ মহানগরীর আরজি বরুয়া রোডে বুধবারের গ্ৰেনেড বিস্ফোরণের তদন্ত একটা গুরুত্বপূর্ণ মোড় নিয়েছে। পুলিশ দাবি করেছে নিষিদ্ধ ঘোষিত সংগঠন আলফা(আই)এধরনের মাশকতামূলক কার্যকলাপ চালাতে তাদের পুরনো ক্যাডেরদের কাজে লাগাচ্ছে। ওদিকে বিদ্ৰোহী সংগঠনের প্ৰধান পরেশ বরুয়া অভিযোগ করেছেন যে পুলিশ প্ৰাণময় রাজগুরু ও জাহ্নবীর বিরুদ্ধে মিথ্যে অভিযোগ এনেছে।

গুয়াহাটির পুলিশ কমিশনার দীপক কুমার শুক্ৰবার এখানে সাংবাদিকদের বলেছেন,বুধবারের গ্ৰেনেড বিস্ফোরণে আলফা(আই)একজন মহিলাকে কাজে লাগাতে পারে একথা কেউ কল্পনা বা বিশ্বাসই করতে পারেননি। তিনি বলেন,পুলিশের কাছে খবর রয়েছেন বিভিন্ন পরিকল্পনা কার্যকরী করতে আলফা স্বাধীন তাদের পুরনো ক্যাডারদের কাজে লাগাচ্ছে।

মহানগর পুলিশ আরজি বরুয়া রোডে গ্ৰেনেড বিস্ফোরণের ঘটনায় জড়িত অভি্যোগে বৃহস্পতিবার সংগঠনের স্বঘোষিত নেতা প্ৰাণময় রাজগুরু এবং অভিনেত্ৰী জাহ্নবী শইকিয়াকে গ্ৰেপ্তার করে। ওই বিস্ফোরণে এসএসবি-র দুই জওয়ান,শিশু সহ ১২ জন ব্যক্তি আহত হন।

পাঞ্জাবারির নামঘর পথের নীহারিকা বাইলেনের একটি ভাড়া ঘর(নং-১০)থেকে রাজগুরু ও জাহ্নবীকে গ্ৰেপ্তার করা হয়।

এদিকে আলফা(আই)র প্ৰধান পরেশ বরুয়া একশ্ৰেণির সংবাদ মাধ্যমকে বলছেন সংগঠন এই বিস্ফোরণের ঘটনায় জড়িত থাকলেও তাদের লক্ষ্য ছিল সিআরপিএফ ও এসএসবি জওয়ান। বিস্ফোরণের ঘটনায় রাজগুরু এবং জাহ্নবী কোনওভাবেই জড়িত নয়। বরুয়া আরও বলেছেন রাজগুরু এবং জাহ্নবী প্ৰত্যক্ষ বা পরোক্ষ কোনওভাবেই আলফার সঙ্গে জড়িয়ে নেই।

বরুয়া অভিযোগ করেন,পুলিশ নিজেদের সাফল্যের গাথা প্ৰকাশ্যে তুলে ধরতেই রাজগুরু ও জাহ্নবীর বিরুদ্ধে মিথ্যে অভি্যোগ তুলেছে। বিস্ফোরণের পর জাহ্নবীর ভাড়া বাড়িতে সংগঠনের কিছু ক্যাডার আশ্ৰয় নিতে পারে। কিন্তু তাদের আশ্ৰয় দেওয়া এটা বোঝায় না যে জাহ্নবী বিস্ফোরণের ঘটনায় জড়িত। বরুয়া বলেন,নিরাপত্তারক্ষীরাই বিস্ফোরণের লক্ষ্য ছিল,সধারণ নাগরিক নয়।

অন্যদিকে,শুক্ৰবার পুলিশ জাহ্নবীর পাঞ্জাবাড়িস্থ ভাড়া বাড়ি থেকে একটি স্কুটি(এএস-০১-ডিকিউ-৪৪২০)উদ্ধার করেছে। বুধবারের বিস্ফোরণে এই স্কুটিটি ব্যবহার করা হয়েছিল বলে সন্দেহ করছে পুলিশ। তাছাড়া বৃহস্পতিবার ওই ভাড়া বাড়ি থেকে পুলিশ একটি নাইন এমএম পিস্তল,২৫ রাউন্ড গুলি,দুটো খালি কার্তুজ,২০ কেজি গান পাউডার,আলফার প্যাড এবং বোমা তৈরির কিছু সামগ্ৰী উদ্ধার করেছিল।

রাজগুরু এবং জাহ্নবীকে সিজেএম আদালত শুক্ৰবার ১০ দিনের জন্য পুলিশি হেফাজতে রাখার নির্দেশ দিয়েছে। এদিকে গুয়াহাটির বিস্ফোরণ কাণ্ডে জড়িত সন্দেহে আলফার একজন প্ৰাক্তন বোমা বিশেষজ্ঞ অমিত বল্লভ গোস্বামীকে গোলাঘাট থেকে আটক করা হয়েছে।

এদিকে মুখ্যমন্ত্ৰী সর্বানন্দ সোনোয়াল শুক্ৰবার সন্ধ্যায় রাজভবনে রাজ্যপাল জগদীশ মুখির সঙ্গে দেখা করে বর্তমান পরিস্থিতি সম্পর্কে তাঁকে অবগত করান।

Next Story