Begin typing your search above and press return to search.

অনুপ্ৰবেশকারীদের এক ইঞ্চি জমিও দেওয়া হবে নাঃ রঞ্জিৎ কুমার দাস

অনুপ্ৰবেশকারীদের এক ইঞ্চি জমিও দেওয়া হবে নাঃ রঞ্জিৎ কুমার দাস

Sentinel Digital DeskBy : Sentinel Digital Desk

  |  3 Jan 2020 8:48 AM GMT

গুয়াহাটিঃ ‘অসম সরকার ইতিমধ্যেই রাজ্যের ভূমিনীতি চূড়ান্ত করেছে এবং কোনও অনুপ্ৰবেশকারী যাতে এক ইঞ্চি জমিও না পায় সে ব্যাপারে আমরা প্ৰতিশ্ৰুতিবদ্ধ’। বৃহস্পতিবার দিশপুরে পিডব্লিউডি ট্ৰেনিং সেন্টারে এক সাংবাদিক সম্মেলনে বক্তব্য রাখতে গিয়ে একথা ঘোষণা করেন বিজেপি-র রাজ্য সভাপতি রঞ্জিৎ কুমার দাস। বিরোধীদের তাক করে দাস বলেন,‘পূর্বতন কংগ্ৰেস সরকার রাজ্যের ভূমিপুত্ৰদের জমির অধিকার সুনিশ্চিত করতে কোনও কিছুই করেনি। তারা চর এলাকায় বসবাসকারীদের জমির পাট্টা দিয়েছে। কিন্তু যুগ যুগ ধরে অসমে বসবাসকারী ভূমিপুত্ৰ মিশিং,সোনোয়াল এবং বোড়ো সম্প্ৰদায়ের কথা তারা ভাবেইনি’। কিন্তু ‘আমাদের নতুন ভূমিনীতি সমস্ত ভূমিপুত্ৰদের জমির অধিকার সুনিশ্চিত করার লক্ষ্যেই প্ৰস্তুত করা হয়েছে। আমরা গোটা রাজ্যে কেবল ভূমিপুত্ৰদেরই জমির পাট্টা দেবো’। এব্যাপারে কেউ প্ৰতিবাদ করলে অথবা রাজ্য বিধানসভা চত্বরে যদি আত্মহত্যাও করে আমাদের তাতে কিছু যায় আসে না’।

অসমে অবৈধ অনুপ্ৰবেশের জন্য কংগ্ৰেসই একমাত্ৰ দায়ী বলে অভিযোগ করে দাস বলেন,রাজীব গান্ধী প্ৰধানমন্তী থাকাকালে স্বাক্ষরিত অসম চুক্তিতে ১৯৭১ সালকে বিদেশি চিহ্নিতকরণের ভিত্তি বছর ধরা হয়েছে। দীর্ঘ ছয় বছর অসম আন্দোলনের পর রাজ্যের মানুষ আশা করেছিলেন ১৯৫১ সালই হবে বিদেশি চিহ্নিতকরণের ভিত্তি বছর। ৫১-র বদলে ৭১ কে ভিত্তি বছর করায় কয়েক লক্ষ বাংলাদেশি কোনওরকম আবেদন না করেই ভারতীয় নাগরিকত্ব পেয়ে গেছেন। কংগ্ৰেসের প্ৰধানমন্ত্ৰী রাজীব গান্ধীর আমলেই এটা হয়েছিল-দাবি করেন রঞ্জিৎ দাস। অবৈধ বিদেশিদের বহিষ্কার প্ৰসঙ্গে দাস উল্লেখ করেন,‘এক্ষেত্ৰে কিছুটা জটিলতা রয়েছে। সরকারকে এক্ষেত্ৰে আন্তর্জাতিক প্ৰক্ৰিয়া মেনে চলতে হবে। তাছাড়া এটা সময় সাপেক্ষ ব্যাপার’।

দাস আরও অভি্যোগ করেন নাগরিকত্ব সংশোধনী আইন(ক্যা)নিয়ে কিছু ন্যস্ত স্বার্থান্বেষী গুজব ছড়াচ্ছে। তিনি বলেন,ওই শক্তিগুলো এমনও প্ৰচার করছে যে ক্যা রূপায়িত হলে রাজ্যে বিদেশিরা সীমান্তের ওপার থেকে এখানে চলে আসবে। এটা সম্পূর্ণ মিথ্যে। ৪২ লক্ষ বিজেপি কর্মী একজনও বাংলাদেশিকে অসমে ঢুকতে দেবে না। তাই ক্যা নিয়ে কোনও ভারতীয়র আশংকার কারণ নেই-বলেন তিনি। দাস আরও বলেন অসমিয়াদের ভাষা,সংস্কৃতি,কৃষ্টি ও অস্তিত্ব রক্ষায় সরকার অসম চুক্তির ৬নং দফা অনুসারে ব্যবস্থা নিচ্ছে।

অন্যান্য খবরের জন্য পড়ুনঃ নাগরিকত্ব সংশোধনী আইন বাতিলের দাবিতে চাবুয়ায় বিশাল গণসমাবেশ

অধিক খবরের জন্য ভিডিও দেখুন: Man dies after bike hits electric pole in Chirang District

Next Story