সংবাদ শিরোনাম

৩৪ বছরেও অসম চুক্তি রূপায়ণ না করায় ক্ষুব্ধ আসু

এনআরসি

গুয়াহাটিঃ ঐতিহাসিক অসম চুক্তি স্বাক্ষরের দেখতে দেখতে ৩৪টা বছর পূর্ণ হয়ে গেল। ১৯৮৫ সালের ১৪ আগস্ট মাঝ রাতে স্বাক্ষরিত হয়েছিল এই চুক্তি। আসু(সারা অসম ছাত্ৰ সংস্থা)ওই চুক্তির অন্যতম প্ৰধান স্বাক্ষরকারী ছিল। বিগত ৩৪ বছরে দিশপুর ও দিল্লির মাসনদে বসে যে সব দল শাসন করেছে তারা কেউই রাজ্যের বিদেশি সমস্যার সমাধানে অসম চুক্তির মূল শর্তগুলি রূপায়ণে তেমন আগ্ৰহ দেখায়নি। এই বিষয়টি নিয়ে আসু নেতারা বিমর্ষ। আসু নেতারা এই বিষয় নিয়ে পৃথক সময় নির্ধারণ করতে চান না। অসম চুক্তির প্ৰতিটি শর্ত হুবহু রূপায়ণ করা হোক-আসু সেটাই চায়।

বুধবার প্ৰচার মাধ্যমের উদ্দেশে দেওয়া এক বিবৃতিতে আসুর সভাপতি দীপাঙ্ক কুমার নাথ এবং সাধারণ সম্পাদক লুরিনজ্যোতি গগৈ বলেন,এটা অত্যন্ত দুর্ভাগ্যের বিষয় যে গত ৩৪ বছর ধরে বিদেশিরা অবৈধভাবে রাজ্যে ঘাঁটি গেড়ে বসে আছে। তাদের চিহ্নিতকরণ ও বহিষ্কারে কোনও পদক্ষেপ নেওয়া হয়নি। এমনকি ভোটার তালিকা থেকেও এই সব বিদেশির নাম ছেঁটে ফেলার ব্যবস্থা নিতে দেখা যায়নি। উভয় ছাত্ৰ নেতা বলেন,এমন কি আজও অসম-বাংলাদেশে লাগোয়া ২৮৬ কিলোমিটার দীর্ঘ জমি ও নদী অববাহিকার সীমান্ত অঞ্চল উন্মুক্ত অবস্থায় রয়েছে। ‘সীমান্তের এই উন্মুক্ত পথ দিয়ে মৌলবাদীরা অসমে ঢুকছে। রাজ্য বাংলাদেশিদের আস্তানায় পরিণত হচ্ছে। এটা খুবই দুঃখজনক বিষয় যে ৩৪ বছরেও রাজ্য ও কেন্দ্ৰীয় সরকার রাজ্যের খিলঞ্জিয়া ভূমিপুত্ৰদের জন্য সাংবিধানিক রক্ষাকবচের ব্যবস্থা করতে পারেনি। পারেনি উপজাতি ব্লক ও বলয় এবং সন্দেহভাজন বিদেশিদের দখল থেকে সত্ৰের জমি মুক্ত করত। এটা কি অসমের প্ৰতি সরকারের অবহেলা ও উদাসীনতার ছবি তুলে ধরছে না’? বিবৃতিতে আসু উল্লেখ করেছে একথা।

আসুর মুখ্য উপদেষ্টা সমুজ্জ্বল কুমার ভট্টাচার্য বলেন,‘অসম চুক্তি হচ্ছে রাষ্ট্ৰীয় পর্যায়ের একটা প্ৰতিশ্ৰুতি। দীর্ঘ ৩৪ বছর ধরে অসম চুক্তি রূপায়ণ করতে না পারাটা কেন্দ্ৰ ও রাজ্য সরকারের তরফে অসমের জনগণকে সরাসরি অপমানেরই শামিল। তবে অসম চুক্তির আধারে রাজ্যে রাষ্ট্ৰীয় নাগরিক পঞ্জি(এনআরসি)নবায়নের কাজ এগিয়ে চলেছে। সুপ্ৰিমকোর্টের সরাসরি তত্ত্বাবধানে চলছে এনআরসি নবায়নের কাজ। ‘আমরা আশা করছি শীর্ষ আদালতের তত্ত্বাবধানে আমরা একটা নির্ভুল এনআরসি পাবো। এনআরসির চূড়ান্ত খসড়া প্ৰকাশের ১৫ দিনও বাকি নেই। আমরা সংশ্লিষ্ট সব দলের কাছে আবেদন জানিয়েছে একটা নির্ভুল নাগরিক পঞ্জির প্ৰকাশ সুনিশ্চিত করতে’।

 

অন্যান্য খবরের জন্য পড়ুনঃ রাজ্যে জাপানি এনকেফেলাইটিসে মৃত্যু বেড়ে ৩৩,সরকারকে দুষলো আসু

অধিক খবরের জন্য ভিডিও দেখুন: 73rd Independence Day: CM Sonowal visits Shraddhanjali Kanan in Guwahati