Begin typing your search above and press return to search.

বন্যার ক্ষতি পুষিয়ে উঠতে কেন্দ্ৰের কাছ থেকে অতিরিক্ত তহবিল এখনও পায়নি অসম

বন্যার ক্ষতি পুষিয়ে উঠতে কেন্দ্ৰের কাছ থেকে অতিরিক্ত তহবিল এখনও পায়নি অসম

Sentinel Digital DeskBy : Sentinel Digital Desk

  |  26 Sep 2019 8:26 AM GMT

গুয়াহাটিঃ রাজ্যে বার্ষিক বন্যার ক্ষয়ক্ষতি মেটাতে বিপুল পরিমাণ অর্থের প্ৰয়োজন। কিন্তু রাজ্য সরকার গত কবছর ধরে এব্যাপারে কেন্দ্ৰের কাছ থেকে অতিরিক্ত কোনও তহবিল পায়নি। এটা বাস্তবিকই উদ্বেগের বিষয়। চলতি অর্থ বছর(২০১৯-২০)রাজ্যে বন্যায় যে ক্ষয়ক্ষতি হয়েছে তার সরকারি হিসেব দাঁড়িয়েছে ৩,৩০৫.৬৭ কোটি টাকা। কেন্দ্ৰের একটি প্ৰতিনিধিদল বন্যার সময় রাজ্য সফর করে ক্ষয়ক্ষতির পরিমাণ দেখে গেছেন।

এবছর জাতীয় দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা কর্তৃপক্ষের(এনডিএমএ)উপদেষ্টা(অপারেশনস)ব্ৰিগোডিয়ার অজয় গাংওয়ারের নেতৃত্বে সাতজনের একটি ইন্টার-মিনিস্ট্ৰিয়েল সেণ্ট্ৰাল টিম(আইএমসিটি)বন্যার পরবর্তী পর্যায়ে রাজ্য সফর করেছে। বন্যায় সবচেয়ে বেশি ক্ষতিগ্ৰস্ত বরপেটা,বঙাইগাঁও,ধেমাজি,ডিব্ৰুগড়,গোলাঘাট,যোরহাট,লখিমপুর,মরিগাঁও এবং নলবাড়ি এই নটি জেলা পরিদর্শন করেছেন আইএমসিটি-র প্ৰতিনিধি দলটি। প্ৰতি বছরই বর্ষার মরশুমে ব্ৰহ্মপুত্ৰ ও এর উপনদীগুলোর কূল ছাপানো জলে ব্যাপক হারে ভাঙন,সরকারি ও বেসরকারি কাঠামো,সড়ক,সেতু এবং বাঁধের বিস্তর ক্ষতি সাধন করে চলেছে। বন্যায় বহু মানুষের গবাদি পশু ইত্যাদি ভেসে গেছে।

আইএমসিটি-র প্ৰতিনিধি দলটি তাদের রিপোর্টে এসব বিষয় সবিস্তারে উল্লেখ করেছে কিনা তা নিয়ে সন্দেহের অবকাশ রয়েছে। গত ৩ মে থেকে ২ সেপ্টেম্বর ২০১৯ পর্যন্ত সরকারি তথ্যে ইঙ্গিত দেওয়া হয়েছে যে ২০১৯-এর বন্যা ও ভূমিস্খলনে রাজ্যে ৯৭ জন ব্যক্তি প্ৰাণ হারিয়েছেন। চলতি বছরের বন্যায় রাজ্যের ৩৩ জেলার ১৪৩টি রাজস্ব সার্কলের ৬,৩৩৭টি গ্ৰামের মোট ৭৩.০৪ লক্ষ মানুষ ক্ষতিগ্ৰস্ত হয়েছেন। মোট ২৮,১৫২টি কুড়ে ঘর ক্ষতিগ্ৰস্ত হয়েছে,১২,৬২৫টি ঘর পুরোপুরি ধ্বংস হয়েছে বন্যায় এবং আংশিক ক্ষতিগ্ৰস্ত বাড়ির সংখ্যা ১,৪৫,০১৬টি। বন্যায় গবাদি পশুর মোট ১৬,৬৩৬টি আস্তানা ক্ষতিগ্ৰস্ত হয়েছে। ১,৫৫৬টি পোলট্ৰি ভেসে গেছে। ত্ৰাণ শিবির খোলা হয়েছিল মোট ১,২৬২টি এবং ত্ৰাণ বণ্টন শিবির স্থাপন করা হয়েছিল ১,২৪২টি।

রাজ্য সরকার ক্ষয়ক্ষতির হিসেব তুলে ধরে আইএমসিটির কাছে অন্তর্বর্তী ফ্লাড রিপোর্টও দাখিল করেছিল। তবে অসম স্টেট ডিজেস্টার রিলিফ ফান্ডের(এসডিআরএফ)৯০ শতাংশ অর্থ কেন্দ্ৰের কাছ থেকে নিয়মিত পেয়ে যাচ্ছে। চলতি অর্থ বছরে কেন্দ্ৰ এসডিআরএফ-এর ৫০ শতাংশ শেয়ার ইতিমধ্যেই রাজ্যের জন্য রিলিজ করেছে,যার পরিমাণ ২৫১.৫৫ কোটি টাকা। তবে কেন্দ্ৰের তরফে সম পরিমাণ অর্থ এখনও রাজ্যকে দেওয়া বাকি আছে।

অন্যান্য খবরের জন্য পড়ুনঃ রাজ্যের ৩৩ জেলার ৭৯টি স্থানে বসছে ২০০টি অতিরিক্ত বিদেশি ট্ৰাইবুনাল

অধিক খবরের জন্য ভিডিও দেখুন: Irani Thieves chased and caught by two daring ladies in Nagaon | The Sentinel News | Assam News

Next Story