Begin typing your search above and press return to search.

জাতীয় সংগীত গেয়ে ক্যা বিরোধী প্ৰতিবাদকারীদের হৃদয় জয় করলেন বেঙ্গালুরুর পুলিশ কর্তা

জাতীয় সংগীত গেয়ে ক্যা বিরোধী প্ৰতিবাদকারীদের হৃদয় জয় করলেন বেঙ্গালুরুর পুলিশ কর্তা

Sentinel Digital DeskBy : Sentinel Digital Desk

  |  21 Dec 2019 11:09 AM GMT

বেঙ্গালুরুঃ ক্যা বিরোধী প্ৰতিবাদকারীদের হৃদয় জয় করলেন বেঙ্গালুরুর আইপিএস রেঙ্কের একজন পুলিশ অফিসার। ওই পুলিশ অফিসার প্ৰতিবাদকারীদের একই সঙ্গে জাতীয় সংগীত গাইতে উৎসাহিত করেন এবং এরপরই প্ৰতিবাদকারী শান্তিপূর্ণভাবে প্ৰতিবাদ স্থল থেকে চলে যান।

‘আপনাদের যদি আমার ওপর আস্থা থাকে তাহলে আমি যা বলছি তা আপনারা অবশ্যই শুনবেন বলে আমার বিশ্বাস। আপনাদের আমার সঙ্গে একটি গান গাইতে হবে। এই বলেই ওই পুলিশ অফিসার জাতীয় সংগীত ‘জনগণ মনো’ গাইতে শুরু করেন। ক্যা বিরোধী প্ৰতিবাদকারীরা তাঁর সঙ্গে গলা মেলান’। ওই পুলিশ অফিসার হলেন বেঙ্গালুরুর(সেন্ট্ৰাল)পুলিশ কমিশনার চেতন সিং রাঠোর। বৃহস্পতিবার বেঙ্গালুরুর টাউন হলে ক্যা বিরোধী প্ৰতিবাদকারীদের সঙ্গে সমবেত কন্ঠে জনগণ মনো গেয়ে এভাবেই তাঁদের হৃদয় জয় করে নিতে সক্ষম হন তিনি। ওই সময় বেঙ্গালুরুর ওই এলাকায় ১৪৪ ধারা নিষেধাজ্ঞা বলবৎ ছিল। রাঠোর সংবাদ সংস্থাকে বলেছেন,টাউন হলে যে সমস্ত প্ৰতিবাদকারীরা জড়ো হয়েছিলেন তাদের কোনও নেতা ছিল না। ‘আমি তাদের বলেছি,আপনাদের মধ্যে কোনও নেতা নেই। আপনাদের মধ্যে যে কোনও অজ্ঞাত ও অশুভ শক্তি প্ৰবেশ করে হিংসাশ্ৰয়ী ঘটনায় উস্কানি দিতে পারে। অশুভ শক্তির প্ৰভাব থেকে প্ৰতিবাদকারীদের সতর্ক থাকার পরামর্শ দেন রাঠোর। শুক্ৰবার রাঠোর যেভাবে প্ৰতিবাদকারীদের বুঝিয়ে শুনিয়ে শান্ত করেছেন তার ভিডিও ক্লিপ সোসিয়েল মিডিয়ায় ভাইরাল হয়ে যায়। অন্যের উস্কানিতে তারা যাতে নিজের বিপদ ডেকে না আনেন প্ৰতিবাদকারীদের সেকথাও শান্ত মেজাজে বুঝিয়ে বলেন রাঠোর।

পুলিশ কর্তার এই সৎ উপদেশ ও পরামর্শ শিরোধার্য করে প্ৰতিবাদকারীরা তাঁর উচ্ছ্বসিত প্ৰশংসা করেন। এরপরই প্ৰতিবাদকারীরা হাত তালি দিয়ে এবং হুইসেল বাজিয়ে রাঠোরের সঙ্গে একই সঙ্গে জাতীয় সংগীত গাইতে শুরু করেন। এরপর প্ৰতিবাদকারীরা জয়হিন্দ ধ্বনি দিয়ে কোনওরকম হৈহুল্লা না করে ওই স্থান পরিত্যাগ করেন। পুলিশ কর্তা রাঠোর তাঁদের আরও বলেছিলেন ‘সুসংগঠিতভাবে যারা আন্দোলন করে তাদের একজন শক্তিশালী নেতা থাকে,যিনি আলোচনার মাধ্যমে যেকোনও সমস্যার সমাধান অথবা পরবর্তী কার্যব্যবস্থা সম্পর্কে সিদ্ধান্ত নেন। কিন্তু বর্তমানের এই শোচনীয় পরিস্থিতিতে নেতাহীন কোনও আন্দোলন সদর্থক হতে পারে না। উল্টে অশুভ শক্তি এর মধ্যে ঢুকে বিভিন্ন শ্ৰেণির মানুষকে লড়িয়ে দেওয়ার সম্ভাবনা থেকে যায়। প্ৰতিবাদকারীরা পুলিশ কর্তার প্ৰতিটি কথা হৃদয়ঙ্গম করে ওই স্থান থেকে চলে যান।

অন্যান্য খবরের জন্য পড়ুনঃ বাংলাদেশি ভোটের লালসায়ই ক্যা এনেছে সরকারঃ আসু

অধিক খবরের জন্য ভিডিও দেখুন: AATASU staged protest against the Citizenship Amendment Act. 2019 in Golaghat

Next Story