Begin typing your search above and press return to search.

হাজেলাকে ডেপুটেশনে বদলির সিদ্ধান্তে কেন্দ্ৰের অনুমোদন,ঝুলে রইলো রিজেকশন অর্ডার

হাজেলাকে ডেপুটেশনে বদলির সিদ্ধান্তে কেন্দ্ৰের অনুমোদন,ঝুলে রইলো রিজেকশন অর্ডার

Sentinel Digital DeskBy : Sentinel Digital Desk

  |  5 Nov 2019 7:40 AM GMT

গুয়াহাটিঃ সুপ্ৰিম কোর্টের পক্ষ থেকে কেন্দ্ৰকে দেওয়া নির্দেশিকার প্ৰেক্ষিতে অসমের রাষ্ট্ৰীয় নাগরিক পঞ্জি(এনআরসি)সমন্বয়ক অসম-মেঘালয় ক্যাডারের আইএএস আধিকারিক প্ৰতীক হাজেলাকে সর্বোচ্চ তিন বছরের জন্য মধ্যপ্ৰদেশে ডেপুটেশনে বদলি করার ব্যাপারে ভারত সরকারের পার্সোনাল অ্যান্ড ট্ৰেনিং(এআইএস)বিভাগের প্ৰস্তাবটি কেন্দ্ৰীয় ক্যাবিনেটের অ্যাপয়েন্টমেন্ট কমিটি অনুমোদন দিয়েছে। সরকারের এজাতীয় সিদ্ধান্তে নাগরিক পঞ্জি ঘিরে ধোঁয়াশার সৃষ্টি হয়েছে। এরফলে এনআরসি থেকে নাম ছুটদের কবে নাগাদ রিজেকশন অর্ডার(আরওএস)ইস্যু করা হবে তা নিয়ে দেখা দিয়েছে অনিশ্চয়তা। চলতি বছরের ৩১ আগস্ট রাজ্যে চূড়ান্ত এনআরসি প্ৰকাশিত হয়েছিল। চূড়ান্ত এনআরসি থেকে বাদ পড়েছিলেন ১৯,০৬,৬৫৭ জন ব্যক্তির নাম। চূড়ান্ত এনআরসি প্ৰকাশের দুমাস ইতিমধ্যেই কেটে গেছে। রাজ্যের রাষ্ট্ৰীয় নাগরিক পঞ্জিতে এই ১৯ লক্ষাধিক লোকের নাম অন্তর্ভুক্তির অযোগ্য বিবেচিত হয়েছিল।

অযোগ্য ঘোষিত এই সমস্ত ব্যক্তিরা রিজেকশন অর্ডার পাওয়ার ১২০ দিনের মধ্যে ফরেনার্স ট্ৰাইবুনালে(এফটি)তাদের নাম অন্তর্ভুক্তির জন্য ফের আবেদন জানানোর কথা ছিল। এনআরসিতে নাম অন্তর্ভুক্তির জন্য রাজ্যের ৩.২৯ কোটি মানুষ আবেদন জানিয়েছিলেন। এর মধ্যে চূড়ান্ত এনআরসিতে ৩.১০ কোটি মানুষের নাম অন্তর্ভুক্তির যোগ্য বলে বিবেচিত হয়েছিল।

২০১৯-এর ১৮ অক্টোবর সর্বোচ্চ আদালত হঠাৎ করে এনআরসি সমন্বয়ক প্ৰতীক হাজেলাকে এক সপ্তাহের মধ্যে তাঁর গৃহভূমি মধ্যপ্ৰদেশে সর্বোচ্চ তিন বছরের জন্য ডেপুটেশনে বদলির নির্দেশ দেয়।

শীর্ষ আদালত কেন্দ্ৰীয় সরকারকে আরও নির্দেশ দিয়েছিল হাজেলার বদলির ব্যাপারে সাত দিনের মধ্যে বিজ্ঞপ্তি ইস্যু করতে। কিন্তু স্বরাষ্ট্ৰমন্ত্ৰক বদলির সমস্ত আনুষঙ্গিক বিষয়গুলি প্ৰস্তুত করার জন্য অতিরিক্ত কিছুটা সময় চেয়েছিল।

সূত্ৰটি দ্য সেন্টিনেলকে জানিয়েছে,হাজেলা এখন রাজ্য সরকারের কাছ থেকে রিলিজ অর্ডার পেয়ে যাবেন। এর জন্য বড়জোর এক সপ্তাহ সময় লাগবে। তবে ডেপুটেশনে রাজ্য ছাড়ার আগে তিনি এনআরসি ছুটদের রিজেকশন অর্ডার ইস্যু করার ব্যাপারে জেলাশাসক এবং রাজ্যের সার্কল অফিসারদের বিস্তারিত নির্দেশ দিয়ে যাবেন। নামছুটদের উদ্দেশে রিজেকশন অর্ডার কীভাবে এবং কখন ইস্যু করতে হবে হাজেলা সম্ভবত সেই নির্দেশ বাতলে দেবেন। রিজেকশন অর্ডার কবে থেকে ইস্যু করা হবে সে ব্যাপারে রাজ্য এনআরসি কর্তৃপক্ষ বিস্তারিত তথ্য বিজ্ঞাপন আকারে প্ৰকাশ করবেন বলে ওই সূত্ৰটি উল্লেখ করেছেন।

২০১৩ সালের অক্টোবর থেকে হাজেলা নাগরিক পঞ্জি নবায়নের কাজ এগিয়ে নিয়েছেন। প্ৰায় ছয় বছর এই কাজে ব্যস্ত থাকার পর এবার তিনি রাজ্য থেকে চলে যাবেন। হাজেলার পদে এনআরসি সমন্বয়কের ওই গুরুত্বপূর্ণ পদে কাকে নিয়োগ করা হবে সেটা সুপ্ৰিম কোর্টই ঠিক করবে। তবে সুপ্ৰিমকোর্ট এবিষয়ে কিছু বলেনি এখনও। এদিকে নাগরিক পঞ্জি সংক্ৰান্ত ইস্যু নিয়ে আগামি ২৬ নভেম্বর শীর্ষ আদালতে ফের শুনানি হবে।

অন্যান্য খবরের জন্য পড়ুনঃ বহু প্ৰকল্প নির্মাণ করেও সেগুলোকে কার্যকরী না করার অভিযোগ

অধিক খবরের জন্য ভিডিও দেখুন: CITU staged protest rally against State Education Minister Siddhartha Bhattacharya

Next Story