Begin typing your search above and press return to search.

‘বিচ্ছিন্নতাবাদীরা অশুভ শক্তি নয় বলা ভুল ছিল,’সুপ্ৰিম কোর্টকে কেন্দ্ৰ

‘বিচ্ছিন্নতাবাদীরা অশুভ শক্তি নয় বলা ভুল ছিল,’সুপ্ৰিম কোর্টকে কেন্দ্ৰ

Sentinel Digital DeskBy : Sentinel Digital Desk

  |  24 Jan 2020 9:21 AM GMT

নয়াদিল্লিঃ বিচ্ছিন্নতাবাদীরা অশুভ শক্তি নয় এই কথাটি বলা ভুল ছিল। কেন্দ্ৰ বৃহস্পতিবার সুপ্ৰিম কোর্টকে একথা বলেছে। জম্মু কাশ্মীর থেকে সংবিধানের ৩৭০ ধারার বিধি ব্যবস্থা বাতিল করার সিদ্ধান্তের সাফাই গাইতে গিয়েই একথা বলেছে কেন্দ্ৰ। ৩৭০ ধারার মাধ্যমে তদানীন্তন জম্মু ও কাশ্মীর রাজ্যকে বিশেষ মর্যাদা দেওয়া হয়েছিল।

অ্যাটর্নি জেনারেল কে কে বেণুগোপাল বলেছেন,‘যুদ্ধের প্ৰশিক্ষণ নেওয়া হামলাবাজদের বিভিন্ন বিশ্বাসযোগ্য বই এবং রেকর্ডগুলি পাঠিয়েছিল পাকিস্তান,এরই ফলস্বরূপ কাশ্মীরের তদানীন্তন মহারাজা ভারতের সাহায্য চেয়েছিলেন’।

‘লর্ড মাউন্টব্যাটেন গুরুত্ব দিয়েছিলেন,ভারত সরকার পুরোপুরি তথ্য না পাওয়া পর্যন্ত তড়িঘড়ি করে কোনও পদক্ষেপ নেওয়া উচিত হবে না। মাউন্টব্যাটেন আরও বলেছিলেন,ওই সময়ে একটি স্বাধীন দেশ কী অবস্থায় ছিল তাতে ভারতীয় সেনা কাশ্মীর থেকে সরিয়ে নেওয়া অনুচিত হবে,কারণ কাশ্মীর ওই সময়ে ভারত বা পাকিস্তানকে মেনে নেওয়ার সিদ্ধান্ত নেয়নি। ভিপি যেনন-এর ‘দ্য ইন্টিগ্ৰেশন অফ দ্য ইন্ডিয়ান স্টেটস’ গ্ৰন্থের উদ্ধৃতি দিয়ে একথা বলেন এজি।

কাশ্মীর থেকে সংবিধানের ৩৭০ ধারা বাতিল করার বিরুদ্ধে চ্যালেঞ্জ জানিয়ে যে আবেদন দাখিল করা হয়েছে বিচারপতি এনভি বমনার নেতৃত্বে পাঁচ সদস্যের একটি বেঞ্চে তার শুনানি চলছে। এই বেঞ্চের বাকি সদস্যরা হলেন বিচারপতি এম কে কৌল,বিচারপতি আর সুভাষ রেড্ডি,বিআর গাওয়াই এবং বিচারপতি সূর্যকান্ত। এজি জোরের সঙ্গে বলেন,জম্মু ও কাশ্মীরকে যেখানে ভারতের অবিচ্ছেদ্য অংশ ঘোষণা করা হয়েছে সেই ক্ষেত্ৰে গণভোটের কোনও প্ৰশ্নই আসে না। কাশ্মীর নিয়ে মার্জার চুক্তি স্বাক্ষরিত না হওয়ার প্ৰসঙ্গটিকে এজি একটা অপ্ৰাসঙ্গিক যুক্তি বলে অভিহিত করেন। এজি সন্তোষ গুপ্তার রায়(২০১৭)-এর উদ্ধৃতিও দেন এজি। আদালতকে এজি এটা স্পষ্ট করে দিয়েছেন যে জম্মু ও কাশ্মীরে ভারতের সংবিধান ও তার নিজস্ব সংবিধানের বাইরে সার্বভৌমত্বের কোনও চিহ্ন নেই,যা আসলে সংবিধানের অনুচ্ছেদ ১-এর মাধ্যমে ভারতের সংবিধানেরই সহায়ক।

শীর্ষ আদালত এটা পর্যবেক্ষণ করেছে যে এই বিষয়টি বৃহত্তর বেঞ্চের কাছে পাঠানো হবে কিনা সেব্যাপারে প্ৰাথমিকভাবে সিদ্ধান্ত নেওয়া উচিত। তবে শীর্ষ আদালত এই দিকটি নিয়ে রায় আপাতত সংরক্ষিত রেখেছে।

অন্যান্য খবরের জন্য পড়ুনঃ ক্যা ইস্যুর শুনানি,সুপ্ৰিম কোর্টের ওপর আমাদের পূর্ণ আস্থা রয়েছেঃ আসু

অধিক খবরের জন্য ভিডিও দেখুন: KMSS leader Akhil Gogoi produced before Special NIA Court in Guwahati

Next Story