Begin typing your search above and press return to search.

এনআরসি ছুট শিশুদের বন্দি শিবিরে পাঠানো হবে না,সুপ্ৰিম কোর্টকে বললো কেন্দ্ৰ

এনআরসি ছুট শিশুদের বন্দি শিবিরে পাঠানো হবে না,সুপ্ৰিম কোর্টকে বললো কেন্দ্ৰ

Sentinel Digital DeskBy : Sentinel Digital Desk

  |  7 Jan 2020 9:36 AM GMT

নয়াদিল্লিঃ কেন্দ্ৰীয় সরকার সোমবার সুপ্ৰিম কোর্টকে বলেছে অসমে এনআরসি-র মাধ্যমে যে সমস্ত শিশুর মা বাবাকে নাগরিকত্ব দেওয়া হয়েছে অথচ তাদের শিশুদের নাম অন্তর্ভুক্ত হয়নি সেই সব শিশুদের পরিবার থেকে আলাদা করা এবং তাদের ডিটেনশন কেন্দ্ৰে পাঠানো হবে না। সোমবার অসমের এনআরসি সংক্ৰান্ত ইস্যু নিয়ে সুপ্ৰিম কোর্টে শুনানি গ্ৰহণ করা হয়েছে। এই শুনানিকালে আইনজীবী অপর্ণা ভাট সিটিজেনস অফ জাস্টিস অ্যান্ড পিস নামে একটি পাবলিক ট্ৰাস্টের পক্ষে আদালতে একটি আবেদন দাখিল করেন। ওই আবেদনে তিনি উল্লেখ করেছেন ২০১৯-এর ৩১ আগস্ট অসমে এনআরসির চূড়ান্ত তালিকা কিভাবে প্ৰকাশ করা হয়েছে যেখানে অযৌক্তিকতা এবং অস্বচ্ছতা থেকে গেছে। ওই তালিকা থেকে নির্দিষ্ট শ্ৰেণির লোকেদের নাম বাদ গেছে। একই পরিবারের কারো নাম এনআরসিতে অন্তর্ভুক্ত হয়েছে আবার কারো নাম বাদ গেছে। এতে সম্মিলিত পরিবার তন্ত্ৰের মূল ধারাই লঙ্ঘিত হয়েছে বলে আবেদনে উল্লেখ করা হয়েছে। ‘কোথাও দেখা গেছে এনআরসিতে মা-বাবার নাম ঠাঁই পেলেও তাদের শিশু সন্তানদের নাম বাদ পড়েছে’-এটা বাস্তবিকই উদ্বেগের বিষয় বলে উল্লেখ করা হয়েছে আবেদনে।

সুপ্ৰিমকোর্টের মুখ্য বিচারপতি এসএ বোবদে এবং বিচারপতি বিআর গাভাই এবং বিচারপতি সূর্যকান্তকে নিয়ে গঠিত বেঞ্চের কাছে এই তথ্য তুলে ধরেন আইনজীবী ভাট। আইনজীবী ভাট তাঁর আবেদনে আরও উল্লেখ করেছেন,এনআরসি প্ৰক্ৰিয়া চলাকালে আবেদনকারীরা প্ৰয়োজনীয় নথিপত্ৰ গেঁথে দেওয়া সত্ত্বেও অনেক ক্ষেত্ৰে অভিভাবকদের নাম অন্তর্ভুক্ত হলেও তাদের শিশুসন্তানদের নাম ওঠেনি। এধরনের প্ৰায় ৬০টি শিশুর নাম এনআরসি থেকে ছুট গেছে বলে আবেদনে উল্লেখ করেছেন তিনি।

‘অসমে চূড়ান্ত এনআরসি প্ৰকাশের চার মাস ইতিমধ্যেই পেরিয়ে গেছে। এনআরসি প্ৰকাশের নামে বহু পরিবারের মধ্যে বিভাজন সৃষ্টি করা হয়েছে। অভিভাবকদের আবেদনের সঙ্গে জুড়ে থাকা শিশুদের নাম কর্তন করে স্বেচ্ছাচারী প্ৰক্ৰিয়ার নজির তুলে ধরা হয়েছে বলে উল্লেখ করেছেন ভাট। অ্যাটর্নি জেনারেন কেকে বেনুগোপাল অসমে এনআরসিতে অভিভাবকের নাম উঠলেও তাদের যে সব শিশুদের নাম বাদ পড়েছে সেই সব শিশুদের ডিটেনশন ক্যাম্পে না পাঠাতে যে বক্তব্য রেখেছেন শীর্ষ আদালত তা রেকর্ড করেছে।

বেনুগোপাল শীর্ষ আদালতকে আরও জানান,অসমে চূড়ান্ত এনআরসি থেকে ১৯ লাখেরও বেশি মানুষের নাম বাদ পড়েছে। বিশেষ করে মা-বাবার নাম এনআরসি রয়েছে অথচ তাদের শিশু সন্তানের নাম ওঠেনি কিংবা তত্ত্বাবধায়কের নাম থাকলে শিশুর নাম বাদ গেছে সে সব ক্ষেত্ৰে আদালত অবিলম্বে এনআরসি সমন্বয়ককে ব্যবস্থা নেওয়ার নির্দেশ দিয়েছে যাতে এধরনের একটি শিশুর নামও বাদ না পড়ে সেটা সুনিশ্চিত করতে।

অন্যান্য খবরের জন্য পড়ুনঃ বাজেটের আগে দেশের অর্থনীতি পুনরুজ্জীবিত করা নিয়ে শীর্ষ শিল্পপতিদের সঙ্গে বৈঠক মোদির

অধিক খবরের জন্য ভিডিও দেখুন: Torch Relay of 3rd Khelo India Youth Games received by District Administration in Kokrajhar

Next Story